রাবি অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার

অনলাইন

রাবি প্রতিনিধি | ১৮ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার, ৩:২৯ | সর্বশেষ আপডেট: ১০:০১
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) বাংলা বিভাগের অপহৃত ছাত্রীকে সাবেক স্বামীসহ ঢাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। তাদেরকে পুলিশ হেফাজতে রাজশাহীতে নিয়ে আসা হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেছেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও সিনিয়র সহকারী কমিশনার (এসি) ইফতেখায়ের আলম। এর আগে শনিবার বেলা ১১টার দিকে অপহৃত ছাত্রীকে দ্রুত উদ্ধারসহ ৭ দফা দাবি জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সমানে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এসময় শনিবার দুপুরের মধ্যে অপহৃত ছাত্রীকে উদ্ধারের জন্য প্রশাসনকে আল্টিমেটাম দেন তারা। দাবি পূরণ না হলে কঠোর কর্মসূচিরও ঘোষণা দেন তারা। শিক্ষার্থীদের অন্য দাবিসমূহ হলো, ক্যাম্পাসে সকল শিক্ষার্থীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, ছাত্রী হলগুলোর সামনে পুলিশের চেকপোস্ট বসানো, প্রতিটি হলসহ ক্যাম্পাসের প্রতিটি প্রবেশ পথে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা, ছাত্রী হলের সান্ধ্য আইন বাতিল করা, সব হলে অভিভাবক প্রবেশের অনুমতি দেয়া এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভাগগুলোকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের সুবিধা-অসুবিধার বিষয়টি বিবেচনা করা।
এর আগে সকাল ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের তাপসী রাবেয়া হল থেকে ছাত্রীরা বের হতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাদের বাঁধা দেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপউপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা সেখানে আসেন। তিনি ছাত্রীদের বলেন, ওই ছাত্রীর অবস্থান জানা গেছে। খুব তাড়াতাড়ি তাকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে। আমরা বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখছি। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান তাপসী রাবেয়া হলে প্রবেশ করেন। অপহৃত ওই ছাত্রীকে দ্রুত ফেরাত আনার আশ্বাস দিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন থেকে বিরত থাকতে পরামর্শ দেন। এক পর্যায়ে বেলা পৌনে ১১টার দিকে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুরু নেতৃত্বে ৫০-৬০ জন নেতাকর্মী ওই হলের সামনে আসেন। পরে ওই হলের গেটে ধাক্কাধাক্কি ও স্লোগান দিতে থাকলে ছাত্রীদের বের হতে দেন প্রক্টর। সেখান প্রায় দুইশত ছাত্রী বের হয়ে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এসে মানববন্ধনে মিলিত হয়। প্রসঙ্গত, গতকাল শুক্রবার সকালে বিশ^বিদ্যালয়ের তাপসী রায়েরা হলের সামনে থেকে বাংলা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্রীকে অপহরণ করা হয়। ওই ছাত্রীর প্রাক্তণ স্বামী সোহেল রানা ও তার সহযোগিরা মাইক্রোবাসে করে তাকে তুলে নিয়ে যায়। পরে ওই ছাত্রীর সন্ধান চেয়ে বিকাল ৪টা থেকে উপাচার্য বাসভবন ঘেরাও কর্মসূচি পালন করে শিক্ষার্থীরা। উপাচার্যের আশ্বাসে সন্ধ্যা ৭টার দিকে সেটা স্থগিত করা হয়। ওইদিন সন্ধ্যায় নগরীর মতিহার থানায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে অপহরণ মামলা দায়ের করেন। মামলায় ওই ছাত্রীর সাবেক স্বামী সোহেল রানাসহ কয়েকজনের নাম উল্লেখ করা হয়। পরে রাতে ওই ছাত্রীর শ্বশুর জয়নাল আবেদীনকে পতœীতলা থেকে আটক করা হয়। তাকে নিয়ে অপহৃত ছাত্রীকে উদ্ধার অভিযান চালায় পুলিশ।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Sk.lokman.hossain

২০১৭-১১-১৮ ০৬:০১:৫৮

ধন্যবাদ জানাই পুলিশকে

আপনার মতামত দিন

ওআইসি’র ঘোষণা নেতানিয়াহু’র প্রত্যাখ্যান

প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরেছেন

ট্রাম্পের কড়া সমালোচনা

গাজীপুরে মসজিদের ভেতর নৈশ প্রহরীকে গলা কেটে হত্যা

‘প্রেম’ করে বিয়ে, চাকরি হারালেন শিক্ষক দম্পতি

চবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির সত্যতা মিলেছে

প্রশ্ন ফাঁস হতো প্রেস থেকে

আবাসিক এলাকায় রাতে হর্ন বাজানোয় নিষেধাজ্ঞা

‘বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনে বাধা নেই’

কুয়ালালামপুরে গ্রেপ্তার ২ ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা

জামিনে আপন জুয়েলার্সের তিন মালিক

নারী সহশিল্পীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে বাধ্য করা হয় আমাকে

বিবাহ বহির্ভূত যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধ করার আবেদন প্রত্যাখ্যাত ইন্দোনেশিয়ায়

প্রথম ১ মাসে ৬৭০০ রোহিঙ্গাকে হত্যা

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে মিয়ানমার, বাংলাদেশ সফরের আহ্বান

৪ সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় ভূমিমন্ত্রীপুত্র কারাগারে