গরু পালনে স্বাবলম্বী আতাউর

বাংলারজমিন

মো. সাওরাত হোসেন সোহেল, চিলমারী (কুড়িগ্রাম) থেকে | ১৮ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার
গরু পালনে স্বাবলম্বীর সঙ্গে সঙ্গে সুখের ঠিকানায় আতাউর রহমান ও তার পরিবার। বর্তমানে আতাউর এলাকায় একজন পরিশ্রমী, কর্মঠ ও লাখপতি যুবক নামে পরিচিত। কর্মের মাধ্যমে তিনি নিজেকে পরিবর্তন করেছেন। গরুর খামার দেখাশোনা ও পরিচর্যা করে সংসারের চাকা ঘুরিয়েছেন তিনি। আল্লাহ্‌র রহমতে এখন তিনি স্বাবলম্বী নেই অভাব অনটন, নেই পরিবারে কোনো অভিযোগ। আতাউরের বাড়ি কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার বহরের ভিটা গ্রামে তার পিতার নাম আলহাজ আ. রহমান।
জানা গেছে, সংসারে অভাব অনটনের কারণে আতাউর বিভিন্ন চাকরির পর প্রায় ১৫ বছর আগে উদ্দীপন নামে একটি এনজিওতে চাকরি নেন। দীর্ঘ ১১ বছর চাকরি জীবনেও তিনি পরিশ্রমী বলেও সবার মন জোগাতে পেরেছিলেন। কিন্তু হঠাৎই শারীরিক অসুস্থতার কারণে চাকরি ছাড়তে হয় তাকে। ফিরে আসেন বাড়িতে পড়েন বিপাকে স্ত্রী, সন্তান পরিবারের লোকজনকে নিয়ে। পরিকল্পনা করেন পরিশ্রম করে সংসারের অভাব দূর করবেন। পরে এনজিওতে কাজ করার অভিজ্ঞতা ও মানুষের সফলতা দেখে নিজেও বেঁচে নেই গরু পালন প্রক্রিয়া। আর দেখাও পান সফলতা। পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০১৪ সালে ২টি হলস্টিন ফ্রিজিয়ান জাতের গরু ক্রয় করেন তিনি। তার পরিশ্রম পরিবারের সহযোগিতার সঙ্গে সঙ্গে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের পরামর্শে গড়ে তোলেন খামার। ধীরে ধীরে তার সফলতার চাকা ঘুরতে শুরু করে আর হয়ে উঠেন স্বাবলম্বী দেখা পান সুখের ঠিকানা। হয়ে উঠেন পুরোপুরি সুস্থ। বিক্রি করেন বেশ ক’টি গরু। বর্তমানে আতাউরের খামারে ফ্রিজিয়ান জাতের ১৩টি গরু আছে। খামারের গাভীগুলো থেকে প্রতিদিন ৪০ থেকে ৪২ লিটার দুধ পাচ্ছেন তিনি। এই দুধ বিক্রি করে তাদের সংসার ও সন্তানদের লেখাপড়ার খরচ ভালোই চলছে। জমাও থাকছে কিছু টাকা। এছাড়াও ইতিমধ্যে গরু বিক্রি করেও জমিও ক্রয় করেছেন। আতাউর রহমান নিজ বাড়িতে ৫ শতাংশ জমির ওপর নির্মিত গরুর খামারটি। গাভীর খাবার ও পরিচর্যার কাজে বেশির ভাগ সময় ব্যস্ত থাকেন তিনি। আতাউর রহমান বলেন, অসুস্থতার কারণে চাকরি ছেড়ে দিতে হয় আর চাকরি ছেড়ে দেয়ার পর পড়েছিলাম মহা বিপাকে পরে এনজিওর দেখা কার্যক্রম ও সফলতা আর স্বপ্নকে কাজে লাগিয়ে আজ আমি একজন খামারের মালিক আর কোন চাকরির জন্য হয় না ঘুরতেও হয় না কারো কথাও শুনতে। সরকারি সহযোগিতা পেলে আমার এই ছোট খামারটিকে আরো বড় করার ইচ্ছা আছে। যাতে আমাদের এই খামারে এলাকার বেকার যুবক-যুবতীদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়। এ ব্যাপারে উপজেলা পশুসম্পদ কর্মকর্তা ডাক্তার মো. গোলাম রব্বানী বলেন, আমরাও গিয়েছিলাম তার খামার দেখতে। সত্যি আতাউর একজন পরিশ্রমী মানুষ। তিনি পরিশ্রম আর গরু পালন করে সফলতার পথ দেখাচ্ছে। আমি চেষ্টা করছি আতাউর রহমানকে কোনো সহযোগিতা করা যায় কিনা।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

‘নির্বাচনে না আসলে বিএনপির অস্তিত্ব বিপন্ন হবে’

নিখোঁজ প্রকৌশলীর মরদেহ উদ্ধার

মালিবাগে গুদামে আগুন

ওয়ালটনে প্রতিষ্ঠাতা নজরুল ইসলাম মারা গেছেন

সাবেক প্রক্টর কারাগারে, প্রতিবাদে অবরুদ্ধ চবি

আপন জুয়েলার্সের তিন মালিকের জামিন স্থগিত

এবারে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রশ্নপত্র ফাঁস

‘বিএনপি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেনা’

লেবাননে বৃটিশ কূটনীতিককে শ্বাসরোধ করে হত্যা

বিমানে দেখা এরশাদ-ফখরুলের

হলফনামার তথ্য গ্রহণযোগ্য নয়: সুজন

ছিনতাইকারীর টানাটানিতে মায়ের কোল থেকে পড়ে শিশুর মৃত্যু

গুজরাট ও হিমাচলে বিজেপিই জিততে চলেছে

আরো ৪০ রোহিঙ্গা গ্রাম ভস্মীভূত:  এইচআরডব্লিউ

ভর্তি জালিয়াতি সন্দেহে রাবির দুই ছাত্রলীগ নেতা আটক

‘এটাও কিন্তু একটা চ্যালেঞ্জের বিষয়’