এশিয়া কাপ হকি

বাজেটের বেশি অর্থ ব্যয়ের ব্যাখ্যা চেয়েছে ফেডারেশন

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৮ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:৪২
সদ্য সমাপ্ত এশিয়া কাপ হকির আর্থিক অনিয়মের ব্যাখ্যা চেয়েছে পাঁচটি সাব কমিটিকে চিঠি দিয়েছে ফেডারেশন। ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আবদুস সাদেক স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়েছে- ‘বাজেট কমিটির দেয়া নিয়মের বাইরে অধিক অর্থ ব্যয় কীভাবে করা হয়েছে, তার ব্যাখ্যা দিতে হবে। বিল-ভাউচার যা দেয়া হয়েছে, সেখানে ত্রুটি-বিচ্যুতি দেখা গেছে।’ ফেডারেশনের এমন চিঠি পেয়ে হতবাক ট্রান্সপোর্ট কমিটির সদস্য সচিব আরিফুল হক প্রিন্স। তারমতে ফেডারেশন সাধারণ সম্পাদক ব্যক্তিগত রেষারেষি থেকেই তাদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ এনেছেন।
ঢাকায় দীর্ঘ ৩২ বছর পর অনুষ্ঠিত হয়ে গেল এশিয়া কাপ হকি। যেখানে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ভারত আর রানার্সআপ মালয়েশিয়া।
পুরো এশিয়া কাপটাই হয়েছে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের আয়োজনে। এই টুর্নামেন্ট সুষ্ঠুভাবে আয়োজনে ১১টি সাব কমিটি গঠন করেছিল বাংলাদেশ হকি ফেডারেশন। ১১টি কমিটির মধ্যে নিয়মের বাইরে গিয়ে অধিক অর্থ ব্যয় করার অভিযোগ উঠেছে পাঁচটি সাব কমিটির বিরুদ্ধে। এদের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে ফেডারেশন। কমিটিগুলো হলো-মিডিয়া, ট্রান্সপোর্ট, গ্রাউন্ডস অ্যান্ড ফেসিলিটিজ, আইনশৃঙ্খলা ও লিয়াজোঁ। বাংলাদেশ জাতীয় দলের অনুশীলন ব্যয়সহ পুরো আয়োজনে ব্যয় হয়েছে প্রায় ২ কোটি ৯০ লাখ টাকা। এই অর্থ ব্যয় হয়েছে ফেডারেশনের করে দেয়া বিভিন্ন সাব-কমিটির মাধ্যমে। আর এই অর্থ ব্যয় নিয়েই ফেডারেশনের মধ্যে নানান অভিযোগ উঠেছে। এই কমিটিগুলোর চেয়ারম্যান ও সম্পাদককে গত ১১ই নভেম্বর চিঠি দিয়ে অধিক অর্থ ব্যয়ের কারণ ব্যাখ্যা করতে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে মুঠোফোনে ফেডারেশন সাধারণ সম্পাদক আবদুস সাদেক মানবজমিনকে জানান, এই পাঁচটি সাব কমিটি বাজেট কমিটির নির্ধারিত অর্থের অধিক অর্থ ব্যয় করেছে। তাদের ব্যয়ের পক্ষে যেসব বিল ভাউচার জমা দিয়েছে তাতেও ত্রুটি আছে। এসব কারণেই এই পাঁচটি কমিটির কাছে ব্যাখ্যা চেয়ে চিঠি দিয়েছি। আসলে ফেডারেশনে সচ্ছতা আনার জন্যই এমন পদক্ষেপ।’ বড় অভিযোগ ট্রান্সপোর্ট কমিটির বিরুদ্ধে। অভিযোগের ব্যাপারে ট্রান্সপোর্ট কমিটির সদস্য সচিব আরিফুল হক প্রিন্স জানান, বাজেট কমিটি আমাদের ২৩ লাখ টাকা বাজেট দিয়েছিল। আমরা পুরো টুর্নামেন্টে চলাকালীন খরচ করেছি ২২ লাখ ৬৪ হাজার টাকা। কোথায় আমরা বেশি টাকা খরচ করলাম? আসলে ফেডারেশনের একটি পক্ষ আমাদের হেয় করতেই এসব করছে। ফেডারেশনের চিঠির ব্যাখ্যা দিয়ে জাতীয় দলের সাবেক এই খেলোয়াড় বলেন, টুর্নামেন্ট শুরু হয়েছে ১১ই অক্টোবর শেষ হয়েছে ২২শে অক্টোবর। কিন্তু ডেলিগেট আসতে শুরু করে ৬ই অক্টোবর থেকে। আর দল আসতে শুরু করেছে ৮ই অক্টোবর থেকে। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে এদেরকে আমাদের ট্রান্সপোর্ট সুবিধা দিতে হয়েছে। এএফআইইএ’র একজন কর্মকর্তাকে মাদারিপুর যাওয়ার জন্য গাড়ি দিতে হয়েছে। অথচ ফেডারেশন এখন এই টাকা দিতে চাচ্ছে না। তারা শুধু টুর্নামেন্ট চলাকালীন খরচের টাকা দিবে। তাহলে টুর্নামেন্ট শুরুর আগের ৪ লাখ ১৪ হাজার টাকা আমরা কোথায় পাবো। ফেডারেশন শুধু এই পাঁচটি কমিটিকে চিঠি দেয়ায় ক্ষুব্ধ প্রিন্স। অন্যান্য কমিটিও বাজেটের চেয়ে অধিক অর্থ ব্যয় করেছে বলে দাবি তার। এদিকে মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান ইউসুফ আলী ফেডারেশনের এমন পদক্ষেপে বেশ খুশি, ‘ফেডারেশন সচ্ছতা আনতে চায়, তাদের এমন পদক্ষেপ ইতিবাচক। আমার কমিটিতে বাজেটের বাইরে ব্যয় হয়েছে। সেটা কেন হয়েছে তা ব্যাখ্যায় বলবো’। ইউসুফ এটাকে ইতিবাচক হিসেবে দেখলেও গ্রাউন্ডস অ্যান্ড ফেসিলিটিজ, আইনশৃঙ্খলা ও লিয়াজোঁ কমিটির কর্মকর্তারা এটাকে ভালো চোখে দেখছেন না।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ওআইসি’র ঘোষণা নেতানিয়াহু’র প্রত্যাখ্যান

প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরেছেন

ট্রাম্পের কড়া সমালোচনা

গাজীপুরে মসজিদের ভেতর নৈশ প্রহরীকে গলা কেটে হত্যা

‘প্রেম’ করে বিয়ে, চাকরি হারালেন শিক্ষক দম্পতি

চবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির সত্যতা মিলেছে

প্রশ্ন ফাঁস হতো প্রেস থেকে

আবাসিক এলাকায় রাতে হর্ন বাজানোয় নিষেধাজ্ঞা

‘বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনে বাধা নেই’

কুয়ালালামপুরে গ্রেপ্তার ২ ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা

জামিনে আপন জুয়েলার্সের তিন মালিক

নারী সহশিল্পীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে বাধ্য করা হয় আমাকে

বিবাহ বহির্ভূত যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধ করার আবেদন প্রত্যাখ্যাত ইন্দোনেশিয়ায়

প্রথম ১ মাসে ৬৭০০ রোহিঙ্গাকে হত্যা

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে মিয়ানমার, বাংলাদেশ সফরের আহ্বান

৪ সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় ভূমিমন্ত্রীপুত্র কারাগারে