লেকহেড স্কুল খুলে দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৫ নভেম্বর ২০১৭, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:০৪
জঙ্গিবাদী কার্যক্রমে পৃষ্ঠপোষকতা ও উগ্রবাদিতা ছড়ানোর অভিযোগে বন্ধ করে দেয়া রাজধানীর লেকহেড গ্রামার স্কুল খুলে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ বিষয়ে জারি করা রুলের শুনানি শেষে গতকাল বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খান’র সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এক রায়ে লেকহেড স্কুল ২৪ ঘণ্টার মধ্যে 
খুলে দিতে নির্দেশ দেয়।
লেকহেড স্কুল খোলার আদেশ চেয়ে করা রিট আবেদনের শুনানি শেষে গত ৯ই নভেম্বর এ বিষয়ে রুল জারি করেন আদালত। রুলে লেকহেড স্কুল কেন খুলে দেয়া হবে না এবং ওই স্কুল বন্ধের আদেশ কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চাওয়া হয়। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী এএফ হাসান আরিফ ও ব্যারিস্টার আখতার ইমাম। সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম।
রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। গতকাল রায়ের পর রাশনা ইমাম সাংবাদিকদের বলেন, আদালত ২৪ ঘণ্টার মধ্যে লেকহেড স্কুল খুলে দিতে নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বলেন, এই স্কুলের বিরুদ্ধে জঙ্গিবাদী ও উগ্রবাদিতার অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষ যদি আপিলে যায় তাহলে আপিলেও হাইকোর্টের রায় বহাল থাকবে বলে আশা করি। অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সাংবাদিকদের জানান হাইকোর্টের এই রায়ের বিরুদ্ধে শিগগির আপিল করা হবে। ধর্মীয় উগ্রবাদ ছড়ানো, জঙ্গি সম্পৃক্ততার অভিযোগে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক নির্দেশে গত ৬ই নভেম্বর লেকহেড স্কুল ধানমন্ডি ও গুলশান শাখা বন্ধ করে দেয়া হয়। লেকহেড গ্রামার স্কুল বন্ধের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে গতকাল হাইকোর্টে তিনটি রিট আবেদন করা হয়। ওই স্কুলের ১২ শিক্ষার্থীর অভিভাবক এবং এক মালিক খালেদ হাসান মতিনের পক্ষে আইনজীবী রাশনা ইমাম এই রিট আবেদন করেন। প্রসঙ্গত, ২০০০ সালে রাজধানীতে লেকহেড স্কুলের যাত্রা শুরু হয়। এখন এর দু’টি ক্যাম্পাস (ধানমন্ডি ও গুলশান) রয়েছে। ধানমন্ডিতে ও লেভেল পর্যন্ত পড়ানো হয়। আর গুলশানে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত। ধানমন্ডিতে এখন ৭২২ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। আর গুলশানে ৪০৮। দুটি শাখায় এখন শিক্ষার্থী সংখ্যা ১ হাজার ১৩০। এর মধ্যে ছাত্রীর সংখ্যাই বেশি। প্রতিষ্ঠানটির দু’শাখায় এখন শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছে ১৮০ জন। এর মধ্যে ধানমন্ডিতে ১০০ জন ও গুলশানে ৮০ জন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

কুয়েতে সাধারণ ক্ষমা

‘ঢাবিতে যা ঘটেছে তা আওয়ামী লীগের চরিত্র’

রুয়েট ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদক গ্রুপের সংঘর্ষ: আহত ১১

চট্টগ্রাম ও সিলেটে বাম ছাত্রজোটের কর্মসূচিতে ছাত্রলীগের হামলা

পাঁচ জনের ফাঁসি বহাল

‘ছাত্রলীগ উদ্ধার না করলে ভিসির ওপর হামলার আশঙ্কা থাকতো’

সেনাপ্রধানের বাবার মৃত্যু

‘সমস্যার সমাধান করার দায়িত্ব বিশ্ববিদ্যালয়ের’

ঢাবি’র ভিসি কার্যালয় ছাত্রলীগের ঘেরাও, ধর্মঘট ডেকেছে শিক্ষার্থীরা

লিবিয়ায় গাড়িবোমা হামলায় নিহত ৩৩

ট্রাম্পকে জিজ্ঞাসাবাদ করবেন মুয়েলার

পরবর্তী যুক্তি উপস্থাপন কাল

পাথরঘাটায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

‘বাধ্য হয়ে অনেকে একই ধরনের চরিত্রে বারবার কাজ করছেন’

ছাত্রলীগে উদ্ধার ভিসি, শিক্ষার্থীদের ফের পিটুনি

ঘুষ নেয়ার সময় ধরা পড়ে নাসির বেরিয়ে আসছে আরো নাম