দ্বৈত নাগরিকত্ব নিয়ে বিপাকে ম্যালকম টার্নবুল সরকার

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১১ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:০০
দ্বৈত নাগরিকত্বের কারণে পদত্যাগ করেছেন অস্ট্রেলিয়ার একজন এমপি। তিনি হলেন কনজার্ভেটিভ লিবারেল পার্টির জন আলেকজান্দার। এর মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল আরেক দফা নাগরিকত্ব ইস্যুতে সঙ্কটের মুখে পড়েছেন। অনেকে বলছেন, এমন অবস্থায় আগাম নির্বাচন দিতে হবে প্রধানমন্ত্রীকে। কিন্তু তিনি তেমন সম্ভাবনার কথা নাকচ করে দিয়েছেন। ফলে ম্যালকম টার্নবুল এখন দু’জন নিরপেক্ষ এমপির সমর্থনের ওপর ভর করে কোনোমতে ক্ষমতায় ঝুলে আছেন।
এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এতে আরো বলা হয়েছে, অস্ট্রেলিয়ার সংবিধানে দ্বৈত নাগরিকত্ব আছে এমন ব্যক্তিকে পার্লামেন্ট সদস্য হওয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা আছে। এ বিষয়ে গত মাসে সেখানকার হাইকোর্ট একটি রায় দেয়। তাতে বলা হয়, টার্নবুল সরকারের পাঁচজন এমপি আছেন এমন, যাদের আছে দ্বৈত্য নাগরিকত্ব। ফলে তারা পার্লামেন্টে অবৈধ। এতে ম্যালকম টার্নবুলের মধ্য-ডানপন্থি জোট সরকার প্রচ- এক ঘূর্ণিপাকে পড়ে যায়। শনিবার সকালের দিকে সিডনিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন কনজার্ভেটিভ লিবারেল পার্টির এমপি জন আলেকজান্দার। তিনি বলেন, তিনি নিশ্চিত যে, তিনি এখন একজন খাঁটি অস্ট্রেলিয়ান নন। এর অর্থ হলো তিনি পদত্যাগ করেছেন। ওদিকে এশিয়া প্রশান্ত অঞ্চলের নেতাদের এক সম্মেলনে যোগ দিতে ভিয়েতনামের কেন্দ্রীয় শহর ডানাংয়ে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী টার্নবুল। সেখান থেকে তিনি বলেছেন, আস্থার ক্ষেত্রে অন্য দল থেকেও আমাদের প্রতি সমর্থন রয়েছে। ফলে আস্থাহীনতা দেখা দেবে না। এর মধ্য দিয়ে তিনি বুঝিয়েছেন তার বিরুদ্ধে কোনো অনাস্থা প্রস্তাব এলে তা হালে পানি পাবে না। এক্ষেত্রে তার মধ্য-ডানপন্থি জোট সরকারকে টিকে থাকতে অবশ্যই নির্ভর করতে হবে পার্লামেন্টের নিরপেক্ষ দু’জন ভোটারের ওপর। তারা তাকে ভোট দিলে তার অবস্থান অটুট থাকবে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন