গ্রাহক টানতে পারছে না ‘দোয়েল’

শেষের পাতা

মহিউদ্দিন অদুল | ২৩ অক্টোবর ২০১৭, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:২৭
ঢাকঢোল পিটিয়ে বাজারে এসেছিল রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিফোন শিল্প সংস্থার (টেশিস) ল্যাপটপ দোয়েল। ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে ও ভিশন-২০২১ পূরণে স্বল্পমূল্যে ল্যাপটপ দেয়ার ঘোষণায় তৈরি হয়েছিল ব্যাপক আগ্রহ-উদ্দীপনা। কিন্তু ২০১১ সালের ১১ই অক্টোবর উড়ার পরই দোয়েল ডানা ভেঙে মুখ থুবড়ে পড়ে। এরপর পেরিয়ে গেছে অর্ধযুগ। টিমটিমিয়ে চলা পণ্যটি এখনো গ্রাহক টানতে পারছে না। দাম কম হলেও রাজধানীর আগারগাঁওয়ের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ আইসিটি এক্সপো-২০১৭ এ বিভিন্ন স্টলে ল্যাপটপ বিক্রি হলেও দোয়েলের স্টলে বিক্রয় বা ক্রয়ে গ্রাহক তেমন পাওয়া যায়নি।
মেলায় যাওয়া দর্শকরা প্রথম বাজারজাতের পর ত্রুটিপূর্ণ পণ্যটির মন্দ সার্ভিস ও নষ্ট হয়ে পড়ায় নেতিবাচক ইমেজই এর জন্য দায়ী বলেও জানান সংশ্লিষ্টরা। সেই সঙ্গে রয়েছে মূলধন ও প্রচারণার অভাব এবং বিপণন দুর্বলতা।
গত শুক্রবার। তিনদিনের বাংলাদেশ আইসিটি এক্সপো-২০১৭ এর ছিল শেষদিন। বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কেন্দ্রের প্রবেশ পথ। মেলায় ঢুকতেই রাষ্ট্রায়ত্ত টেশিসের স্টল। ৬ ও ৭ নম্বর স্টল। তা জুড়ে প্রাধান্য পায় প্রধান পণ্য দোয়েলের দু’মডেলের দু’টি ল্যাপটপ। একটি হলো স্ট্যান্ডার্ড মডেল ২৬০৩। ২৬শে মার্চের স্বাধীনতা দিবস স্মরণেই ওই মডেলটির সেই নামকরণ বা নাম্বারিং হয়েছে। এটির দাম ধরা হয়েছে মাত্র ১২ হাজার টাকা। পাশেই অপর মডেলটি। আর ১৬ই ডিসেম্বরের অনুসরণে এডভান্সড ১৬১২আই৫ মডেল। বাজারের অন্যান্য সমমানের মডেলের চেয়ে এটিরও কম মূল্য রাখা হচ্ছে। দাম রাখা হয়েছে ৪২ হাজার টাকা। একই সঙ্গে দোয়েল ব্র্যান্ডের ৮ জিবি পেনড্রাইভ বিক্রি হয়। সেটির দামও বাজারের অন্যগুলোর তুলনায় অর্ধেক বা তার চেয়েও কম। মাত্র ২০০ টাকা। এছাড়া আরো তিন মডেলের মোবাইল চার্জার, টেলিফোন সেট, আট মডেলের মোবাইল ব্যাটারি ও আরো অন্তত ৬ মডেলের পোস্ট পেইড ও প্রি-পেইড বৈদ্যুতিক মিটার রাখা হয়। গতকাল দুপুরের আগে মেলার প্রবেশ পথে ও প্রথমদিকে থাকা স্টলটিতে বেশ কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে গ্রাহকদের উপস্থিতি চোখে পড়েছে। ল্যাপটপের দাম ১২ হাজার টাকা দেখেই থামেন অনেকে। ত্রুটির কারণে ইমেজ হারানোর বিষয়টির এক কথা দু’কথায় সামনে এলেই কেটে পড়েন। মূল্য কম হলেও সেই ল্যাপটপ ক্রয়ে তেমন কোনো আগ্রহ দেখা যায়নি আগতদের মধ্যে। তবে দোয়েল পেন ড্রাইভ কিনেছেন অনেকে।
টেশিসের সহকারী ব্যবস্থাপক রকিবুল হাসান বলেন, এ মুহূর্তে দোয়েলের উৎপাদন প্রায় বন্ধ রয়েছে। অর্ডার পেলে উৎপাদন করে দেয়া যাবে। তবে যে কিছু ল্যাপটপ তৈরি রয়েছে তা মেলায় প্রদর্শন ও প্রচারের জন্য রেখেছি। কিন্তু গত দু’দিনে মেলায় বিক্রি হয়নি। অবশ্য মেলায় বিক্রির জন্য রাখা হয়নি। গত দু’দিনে কেনার বিষয়ে অন্তত ৮ ব্যক্তি আগ্রহ দেখিয়েছে। তাদের আমাদের বিপণন কেন্দ্র থেকে দোয়েল ক্রয়ের জন্য অনুরোধ করেছি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কেউ কিনেছে কিনা তা জানা নেই।
মেলায় আসা ইনস্টিটিউট অব কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট একাউন্টসের লেভেল ২-এর ছাত্র আসাদুজ্জামান বলেন, আমি আগে সব সময় দেশীয় পণ্য ব্যবহার করতাম। দেশীয় প্রতিষ্ঠানের তৈরি মোটরসাইকেল, মোবাইল, ফ্রিজ ক্রয় করেছি। কিন্তু ঠকেছি। গত তিন বছর আগে টেশিসের গুলিস্তান শো-রুম থেকে ১২ হাজার টাকায় একটি দোয়েল ল্যাপটপ কিনি। এক মাসেই কী বোর্ড নষ্ট। ৮০০ টাকা দিয়ে তা পরিবর্তন করি। ছয় মাস পর কী প্যাড নষ্ট। তা ঠিক করতে লাগে আরো ২৫০ টাকা। আট মাস পর ভেঙে গেছে ক্যাচিং। তার মেরামত করতে লাগে ১ হাজার ৬০০ টাকা। আর এক বছর পর পুরো ল্যাপটপটি দু’টুকরো হয়ে যায়। সারাতে গেলে দোয়েল সার্ভিস সেন্টার থেকে সাড়ে তিন হাজার টাকা চাওয়া হয়। এরপর তা আর ঠিক না করে ফেলে রেখেছি।
তিনি আরো বলেন, প্রায় একই সময়ে সঞ্জীব রায় নামে আমার এক বন্ধুও দোয়েল ল্যাপটপ কিনেছিলো। তারও একই পরিণতি হয়েছে। প্রথমদিকে ত্রুটিপূর্ণ ল্যাপটপ বাজারে ছাড়ায় তা ভালো সার্ভিস দেয়নি। বরং অল্প সময়ের মধ্যে নষ্ট হয়ে গেছে। তাই দাম কম থাকলেও গ্রাহকরা আর দোয়েল ল্যাপটপ কিনে ভোগান্তির মধ্যে পড়তে চাচ্ছে না।
এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে টেশিসের ল্যাপটপ বিভাগের ইনচার্জ রাকীব হাসানের মোবাইলে একাধিক বার ফোন দেয়া হলে তা রিসিভ করেননি। পরে মোবাইল রিসিভ হলেও কথা বলেননি টেশিসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সজীব কুমার ভট।
মেলায় দোয়েলের ল্যাপটপ বিক্রি না হলেও মেলায় অন্যান্য স্টলে দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠানের ল্যাপটপ বিক্রি হয়েছে। নিচ তলায় ৪৯ ও ৫০ নম্বর স্টলটি দেশীয় প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদন ও বিপণনকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটনের। ওই স্টলের ইনচার্জ শফিকুল আলম বলেন, আমরা ৪ সিরিজের ১৬টি মডেলের ল্যাপটপ প্রদর্শন ও বিক্রি করছি। এগুলোর মূল্য ২৩ হাজার ৪৯০ থেকে ৮৩ হাজার ৫৫০ টাকা পর্যন্ত। গত বুধ ও বৃহস্পতিবার মেলায় পাঁচটা ল্যাপটপ বিক্রি হয়েছে। আরও ১২টা ল্যাপটপ বিক্রির গ্রাহক প্রতিশ্রুতি মিলেছে।
নিচ তলার আসুসের অপর স্টলে কথা হয় প্রতিষ্ঠানটির করপোরেট সেলস এক্সিকিউটিভ ইসমাইল হোসেনের সঙ্গে। তিনি বলেন, আমাদের কাছে বিভিন্ন মডেলের ল্যাপটপ রয়েছে। দাম ২১ হাজার থেকে আড়াই লাখ টাকা পর্যন্ত। গত তিন দিনে মেলায় আমাদের ৩৫টা ল্যাপটপ বিক্রি হয়েছে।
দ্বিতীয় তলার সেলিব্রেটি হলে বসেছে সিঙ্গারের স্টল। প্রতিষ্ঠানটির ঢাকা জেলা ব্যবস্থাপক ও মেলা ইনচার্জ হুমায়ুন কবির বলেন, এ মেলায় আমাদের ৩০ টি ল্যাপটপ বিক্রি হয়েছে। আর অন্তত ১০০ ক্রেতা বিভিন্ন বিপণন কেন্দ্র থেকে ল্যাপটপ ক্রয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।
জানা যায়, ডিজিটাল বাংলাদেশ ও ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নে ২০০৯ সালের জুনে সরকার নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ল্যাপটপ উৎপাদনের ঘোষণা দিয়েছিল। বলা হয়েছিল, তথ্য প্রযুক্তির এই পণ্যটিতে দেশ আমদানি নির্ভর থাকবে না। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের অধীন টেলিফোন শিল্প সংস্থার তত্ত্বাবধানে প্রাথমিকভাবে ১৪৮ কোটি টাকার একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছিল। বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট), মালয়েশিয়ার প্রতিষ্ঠান থিম ফিল্ম ট্রান্সমিশন ও বিদেশি বিশেষজ্ঞের পরামর্শ ও সাহায্যে কাজ শুরু হয়। ২০০৯ সালের ১০ই জুলাই গাজীপুরের টেশিস কারখানায় পরীক্ষামূলকভাবে উৎপাদন শুরু হয়। ২০১১ সালের ১১ই অক্টোবর দেশীয় ব্র্যান্ড দোয়েলের বিতরণ ও বাজারজাত কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। ডিজিটাল বাংলাদেশে দেশীয় ল্যাপটপ দোয়েলের আগমন সাড়া জাগিয়েছিল গোটা দেশে।
কিন্তু প্রকল্পের টাকা বাংলাদেশ সরকার ও মালয়েশিয়ার প্রতিষ্ঠান থিম ফিল্ম ট্রান্সমিশনের (টিএফটি) পক্ষ থেকে টাকা পাওয়ার কথা ছিল তা পাওয়া যায়নি। আবার প্রকল্প শুরুর কয়েকমাসের মধ্যেই বিটিসিএল ঋণ হিসেবে দেয়া ৪৮ কোটি টাকাও ফেরত নেয়। এরই মধ্যে ত্রুটিপূর্ণ ল্যাপটপ বাজারজাত করায় গ্রাহক প্রতিষ্ঠান শিক্ষা ও তথ্য-প্রযুক্তিসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ও প্রতিষ্ঠানটির ল্যাপটপ প্রায়োজন অনুযায়ী নেয়নি। তারাও অনেক ক্ষেত্রে দিতে পারেনি। এছাড়া দোয়েল থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত বহু প্রতিষ্ঠানও। ফলে সম্ভাবনায় ব্র্যান্ড নিয়ে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানটি এখন অস্তিত্বের সংকটে পড়ে টিমটিমিয়ে টিকে আছে। সরকার এদিকে নজর দিলে প্রতিষ্ঠানটি ব্যাপক সম্ভাবনা নিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

অভিযোগের পাহাড়, অসহায় ইউজিসি

প্রত্যাবাসন শুরু হচ্ছে না আজ

মৈত্রী এক্সপ্রেসে শ্লীলতাহানির শিকার বাংলাদেশি নারী

‘২০৬ নম্বর কক্ষে আছি, আমরা আত্মহত্যা করছি’

ট্রেনে কাটা পড়ে দুই পা হারালেন ঢাবি ছাত্র

পুলে যাচ্ছে সেই সব বিলাসবহুল গাড়ি

নীলক্ষেত মোড়ে ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভ, এমপির আশ্বাসে স্থগিত

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সফর সফল করতে নির্দেশনা

নেতাকর্মীরা জেলে থাকলে নির্বাচন হবে না: ফখরুল

তিন দিনের ধর্মঘটে এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা

ইডিয়ট বললেন মারডক

সহায়ক সরকারের রূপরেখা প্রণয়নের কাজ শেষ পর্যায়ে

২৩শে ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন

বাসায় ফিরছেন মেয়র আইভী

‘আমাকে ইমোশনাল ব্ল্যাকমেইল করে’

জনগণ রাস্তায় নেমে ভোটাধিকার আদায় করবে: মোশাররফ