দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত একই পরিবারের ৬ সদস্য

বাংলারজমিন

আমিনুল ইসলাম লিটন, ঝিনাইদহ থেকে | ২২ অক্টোবর ২০১৭, রবিবার
এক রোগেই লণ্ডভণ্ড ইজাল উদ্দীনের পরিবার। তার মৃত্যুর পর পরিবারের সদস্যরা দুরারোগ্য ‘নিউরোফাইব্রোমাটোসিস’ ব্যাধির কারণে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন। ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডু উপজেলার কেসমত ঘোড়াগাছা গ্রামের এই পরিবারের ছয় সদস্য ‘নিউরোফাইব্রোমাটোসিস’ রোগে আক্রান্ত। হতদরিদ্র এই পরিবারের দুই মেয়েকে তাদের স্বামীরা সন্তানসহ তালাক দিয়েছেন। রোগটি ছোঁয়াচে না হলেও স্কুল কিংবা খেলার মাঠেও পরিবারের আক্রান্ত শিশুদের সাথে অন্য শিশুরা মিশতে চায় না। ফলে আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে চিকিৎসা বঞ্চিত গোটা পরিবারটি এখন অসহায় হয়ে পড়েছে।
এখন অনেকটাই সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন পরিবারটি। ঝিনাইদহের হরিনাকুণ্ডু উপজেলার কেসমত-ঘোড়াগাছা গ্রামের গ্রাম্য চিকিৎসক মৃত ইজাল উদ্দিনের ছিল এই রোগ। তার স্বাভাবিক মুত্যৃর পর পরবর্তীতে বড় ছেলে ইফাজ উদ্দিন ও দুই মেয়ে নার্গিস খাতুন এবং পারভীনের ১০/১১ বছর বয়স থেকে শরীরে ছোট ছোট ফোট দেখা দেয়। পরে এগুলো বড় হয়ে মারবেল আকার ধারণ করে এবং মুখমণ্ডলসহ সমস্ত শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। তাদের বিয়ের পর ইফাজ উদ্দীনের ৮ম শ্রেণি পড়ুয়া ছেলে অনিক হোসেন, পারভীনের মেয়ে ছোঁয়া খাতুন ও নার্গিসের ৭ম শ্রেণি পড়ুয়া ছেলে রোমিওর শরীরেও ‘নিউরোফাইব্রোমাটোসিস’ রোগ দেখা দেয়। আক্রান্ত পরিবারের বড় ছেলে ইফাজ উদ্দীন জানান, কষ্ট করে টাকা জোগাড় করে ১৫ বছর আগে তিনি ঢাকার পিজি হাসপাতালে গিয়েছিলেন। চিকিৎসকরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে রোগটি “নিউরোফাইব্রোমাটোসিস” বলে চিহ্নিত করেন। ডাক্তাররা তাকে জানান, এই রোগের কোনো চিকিৎসা নেই। তাছাড়া ‘নিউরোফাইব্রোমাটোসিস’ রোগের মৃত্যুর কোনো সম্ভাবনা নেই। ইফাজ উদ্দীন বাকরুদ্ধ কণ্ঠে বলেন, তার বোন নার্গিসের বিয়ে হয়েছিল শৈলকুপা উপজেলার গোলকনগর গ্রামের রফিকুল ইসলামের সঙ্গে। কিন্তু রোগের কারণে এক সন্তানসহ ৮/৯ বছর আগে তাকে তালাক দিয়েছেন স্বামী। মেজো বোন পরভীনের সদর উপজেলার বেড়াদি গ্রামের আমিরুল ইসলামের সঙ্গে বিয়ে হয়। তিনি স্বামীর ঘরেই আছেন। পারভীনের দ্বিতীয় শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ে ছোঁয়া খাতুন তার মায়ের মতোই ‘নিউরোফাইব্রোমাটোসিস’ রোগে আক্রান্ত। ছোটবোন নাছরিনের শরীরে ‘নিউরোফাইব্রোমাটোসিস’ রোগ না থাকলেও তার স্বামী সন্তানদের শরীরে এই রোগ হওয়ার আশঙ্কায় তাকে তালাক দিয়েছেন। নাছরিনের বিয়ে হয়েছিল হরিণাকুণ্ডু উপজেলার কেসমত ঘোড়াগাছা গ্রামের সাহেব আলীর সঙ্গে। স্বামী তালাক দেয়ার পর নাছরিন এখন শৈলকুপার রয়েড়া গ্রামের একটি বাড়িতে ঝি-এর কাজ করেন। স্থানীয় ঘোড়াগাছা লাল মোহাম্মদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্র ‘নিউরোফাইব্রোমাটোসিস’ রোগে আক্রান্ত রোমিও জানায়, মা ও মামার আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে সপ্তায় দুইদিন সে পরের ক্ষেতে শ্রমিকের কাজ করে পড়াশোনার খরচ মেটায়। রোমিওর ভাষ্য- স্কুলে তার কাছে কেও বসতে চায় না। খেলার মাঠে গেলেও তাকে খেলতে নেয়া হয় না। প্রতিবেশী ব্র্যাক-এর সাবেক কর্মকর্তা ফজলুল হক জানান, মাত্র আড়াই শতক জমির উপর পরিবারটি ঠাসাঠাসি করে বসবাস করেন। বাড়িতে স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন নেই। অভাবের কারণে ঘিঞ্জি পরিবেশ গোটা বাড়িতে। আয় রোজগারের কোনো পথ নেই। তিনি আরো বলেন, রোগটি ছোঁয়াচে না হলেও গ্রামের কিছুু মানুষ ছোঁয়াচে বলে প্রচার করে। এজন্য তাদের সঙ্গে কেও ভালোভাবে মিশতে চায় না। নিউরোফাইব্রোমাটোসিস রোগ নিয়ে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের সিনিয়র মেডিসিন কনসালটেন্ট ডা. মোকাররম হোসেন জানান, রোগটির নির্দিষ্ট কোনো চিকিৎসা নেই। তাছাড়া এই রোগে আক্রান্তদের মৃত্যুর ঝুঁকি নেই বলেও তিনি জানান। তিনি বলেন, অসচেতনতার কারণে হয়তো গ্রামের মানুষ রোগটি ছোঁয়াচে বলে অপপ্রচার চালাচ্ছে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

শিক্ষার্থীদের মাথা ন্যাড়ার শর্তে এসএসসি’র ফরম পূরণ!

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে

একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ

শিক্ষিকা-ছাত্রের যৌন সম্পর্ক, অতঃপর...

রাবি অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার

‘সমাবেশে জোর করে লোক আনা হয়েছে’

সমাবেশ মঞ্চে শেখ হাসিনা

যুদ্ধাপরাধের ২৯তম রায়ের আপেক্ষা

ঈদে মিলাদুন্নবী নিয়ে চাঁদ দেখা কমিটির সভা কাল

সিরিয়া ইস্যুতে আবারো রাশিয়ার ভেটো

হারিরির সৌদি আরব ত্যাগ

ঢাকায় চীন-বাংলাদেশ বৈঠক শুরু

প্যারাডাইস পেপারসে শিল্পপতি মিন্টু ও তার পরিবারের নাম

ঝুঁকিপূর্ণ উপায়ে আসছে রোহিঙ্গারা, ইউএনএইচসিআরের উদ্বেগ

ইরাক ও ইসরায়েল সুন্দরী একসঙ্গে সেলফি তুলে বিপাকে

‘বিএনপিকে দূরে রেখে নির্বাচনের ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে’