ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেটের প্রমোদালয়

দেশ বিদেশ

রুদ্র মিজান | ২১ অক্টোবর ২০১৭, শনিবার
রাত হলেই আসর জমে ওঠে। বিলাসবহুল ফ্ল্যাটটি পরিণত হয় প্রমোদালয়ে। নাচে-গানে মাতিয়ে তোলেন একাধিক সুন্দরী। তারা সঙ্গ দেন সেখানে উপস্থিত দু-তিন পুরুষকে। মদ পান করে মাতাল উন্মাদনায় মেতে উঠেন তারা। বিষয়টি আশেপাশের অনেকেই জানেন।
দিনের পর দিন এরকম চললেও কেউ প্রতিবাদ করেননি। কারণ একটাই- যিনি এই আসরের হোতা তিনি একজন ‘ম্যাজিস্ট্রেট’! ম্যাজিস্ট্রেটের বিরুদ্ধে কথা বলার দুঃসাহস নেই তাদের। স্থানীয় থানা পুলিশও তাকে স্যার সম্বোধনে সমীহ করে বলে জানান প্রতিবেশীরা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এই ম্যাজিস্ট্রেটকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ভুয়া এই ম্যাজিস্ট্রেটের নাম কামরুল হাসান তারেক। ফেনী জেলা সদরের ডাক্তারপাড়ার মৃত কামাল উদ্দিনের ছেলে তিনি। রাজধানীর মোহাম্মদপুরের কাদেরাবাদ হাউজিংয়ের বি ব্লকের পাঁচ নম্বর সড়কের ১১ নম্বর বাড়ির চতুর্থ তলার একটি ফ্ল্যাটে একাই থাকেন কামরুল হাসান তারেক। জানা গেছে, দীর্ঘদিন ভুয়া পরিচয় দিয়েই নানা অপকর্ম করেছেন তিনি। স্থানীয় থানা পুলিশ টহলে গেলে কামরুলকে দেখলেই স্যার সম্বোধন করে সমীহ করতো। ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে কামরুলও বিশেষ ফায়দা নিতেন। অভিযোগ রয়েছে, পুলিশের সঙ্গে সখ্য দেখিয়ে মামলার তদবির করার নামে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা নিয়েছেন। শেষ পর্যন্ত সেই পুলিশ সদস্যরাই তার প্রকৃত পরিচয় উদ্ধার করেছেন। পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে তার বিরুদ্ধে। কামরুল সম্পর্কে আশেপাশের লোকজন জানান, একটি রাতও নেই যে রাতে অন্তত দু’একজন সুন্দরী কামরুলের ফ্ল্যাটে আড্ডায় অংশ নেন না। সারারাত মদে-গানে-নাচে কাটে তাদের। তারপর দিন কাটে ঘুমে। প্রহরীরা জানান, ম্যাজিস্ট্রেট স্যারের বাসায় যাওয়ার কথা বলে মেয়েরা ভেতরে যায়। কখনও কখনও প্রহরীকে অন্য কাজে পাঠিয়ে গেইট দিয়ে ঢুকানো হয় সুন্দরীদের। বাসা থেকে বের হওয়ার সময় বিষয়টি চোখে পড়ে দায়িত্বরত প্রহরীর। কামরুলের এই আড্ডায় অংশ নেন একই বাড়ির অন্য ফ্ল্যাটের বাসিন্দা বিদেশ ফেরত মামুন উর রশীদ। মামুন উর রশীদের স্ত্রী বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা মুন্নী আক্তার জানান, অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে এক রাতে ঘটে ঘটনাটি। তিনি সংবাদ পান কামরুলের ফ্ল্যাটের আসরে তিন কলগার্ল ও কামরুল এবং তার স্বামী মামুন উর রশীদ অংশ নিয়েছেন। খবর পেয়ে আসর থেকে স্বামীকে নিয়ে আসার জন্য ওই ফ্ল্যাটের দরজায় নক করেন মুন্নি। মুন্নি অভিযোগ করেন, বেশ কিছু সময় দরজায় নক করার পর কামরুল বেরিয়ে এসে মুন্নিকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। এসময় তার স্বামী মামুন উর রশীদের অবস্থান জানতে চাইলে মুন্নিকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। মুন্নির পরনের জামাটি কয়েকস্থানে ছিঁড়ে যায়। মুন্নির চিৎকার শুনে বাসার ভেতর থেকে তার স্বামী বেরিয়ে এসে মুন্নির মুখ চেপে তাকে নিজেদের ফ্ল্যাটে নিয়ে আসেন। তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি মোহাম্মদপুর থানা পুলিশকে অবগত করেন মুন্নি। এসআই মেজবাহউদ্দিনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছালে ওই সময়েও পুলিশের কাছে নিজেকে ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে পরিচয় দেন কামরুল। পুলিশ সদস্যরা তাকে স্যার বলেই সম্বোধন করছিলেন। তখনও তাকে ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবেই জানতেন তারা। ম্যাজিস্ট্রেটের প্রমাণ হিসেবে সরকারি প্রজ্ঞাপন দেখানো হয়। ২০১৪ সালের ১৭ই জুলাই প্রকাশিত ৩৩তম বিসিএস (প্রশাসন)-এর প্রজ্ঞাপনে ২৯০ জনকে সহকারী কমিশনার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। ওই প্রজ্ঞাপনে ২২৫ নম্বর ক্রমিকে রয়েছে কামরুলের নাম। পরে জানা যায় এসব কাগজ নিজেই তৈরি করেছেন কামরুল। মোহাম্মদপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হাফিজুর রহমান জানান, গত ৪ঠা সেপ্টেম্বর রাতে মুন্নি নামের ওই নারীর ফোন পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে যায় পুলিশ। থানায় আসার পরও নিজেকে ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিচ্ছিলো কামরুল। তার তথ্য প্রমাণ দেখে সহজে অনুমেয় করা কঠিন যে, সে ভুয়া পরিচয় দিচ্ছে। যে কারণে পুলিশ তাকে ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে সমীহ করেছে। প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পেয়ে মামলা করা হয়েছে। গ্রেপ্তারের পর একদিনের রিমান্ডে নিয়ে কামরুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক আজিজুল হক জানান, জিজ্ঞাসাবাদে প্রতারণার বিষয়টি স্বীকার করেছে সে। তার কাগজপত্রগুলো সে নিজেই তৈরি করেছে। নানা সুবিধা নেয়ার জন্যই সে সবাইকে ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিতো। মূলত কামরুল একজন বেকার যুবক। লেখাপড়া করলেও নির্দিষ্ট কোনো পেশা নেই তার। অন্য কোনো অপরাধে তার সম্পৃক্ততা রয়েছে কি-না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ঢাকা ওয়াসাকে ১৩টি খাল উদ্ধারের নির্দেশ

এসডিজি অর্জন করতে হলে প্রতিবছর ৩০ শতাংশ নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ বাড়াতে হবে

‘অনুপ্রবেশকারীদের ৫০০০ পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না’

‘ক্ষমতা থাকলে সরকারকে টেনে-হিচড়ে নামান’

আগামীকাল আদালতে যাবেন খালেদা জিয়া

‘সেনা মোতায়েনের প্রয়োজন নেই’

‘তদন্তের স্বার্থেই তনুর পরিবারকে ডাকা হয়েছে’

জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন ‘কুমির মানুষ’

আশ্রয়শিবিরে সংক্রমণযুক্ত পানির বিষয়ে ইউনিসেফের সতর্কতা

চীন, উত্তর কোরিয়ার ১৩ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ

রোহিঙ্গা সঙ্কট: উচ্চ আশা নিয়ে বাংলাদেশ-মিয়ানমার বৈঠক শুরু

ঘোড়ামারা আজিজসহ ছয় জনের মৃত্যুদণ্ড

নিবিড় পর্যবেক্ষণে মহিউদ্দিন চৌধুরী

আফ্রিকার স্বৈরাচারদের মেরুদণ্ডে শিহরণ

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীনের প্রস্তাব, যা বললেন মুখপাত্র...

দুদকের মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন মেয়র সাক্কু