মেডিকেলে চান্স পেয়েও ভর্তি হতে পারছেন না রিমা

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, কিশোরগঞ্জ থেকে | ২০ অক্টোবর ২০১৭, শুক্রবার
মেডিকেলে চান্স পেয়েও দারিদ্র্যতার কারণে অর্থের অভাবে ভর্তি হতে পারছেন না পাকুন্দিয়ার মেধাবী ছাত্রী রিমা আক্তার। সে এ বছর মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় ৬৯.৫ স্কোর পেয়ে রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। কিন্তু তাতে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে দারিদ্রতা। পরিবারের অভাব ও সকল প্রতিকূলতাকে জয় করে ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন পূরণের প্রথম ধাপে পৌঁছালেও মেয়ের ভর্তি নিয়ে শঙ্কায় রয়েছে রিমা আক্তারের পরিবার। রিমা আক্তার উপজেলার এগারসিন্দুর ইউনিয়নের দক্ষিণ খামা গ্রামের দরিদ্র কৃষক আলাউদ্দিন ও গৃহিনী হালিমা খাতুনের মেয়ে। সরজমিন গিয়ে জানা যায়, দরিদ্র কৃষক আলাউদ্দিন ও গৃহিণী হালিমা খাতুনের সংসারে নিত্য অভাব অনটনের মধ্যে থেকেও পরিশ্রম ও একাগ্রতায় এ বছর রিমা মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় ৬৯.৫ স্কোর পেয়ে রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজে চান্স পেয়েছে।
ছয় বোন ও এক ভাইয়ের সংসারে রিমা তৃতীয়। তার বাবা আলাউদ্দিন স্থানীয় মঠখোলা বাজারে খোলা রাস্তায় সবজি বিক্রি করে এবং পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত সামান্য জমিতে কৃষি কাজ করে পরিবারের ভরণপোষণ ও সন্তানদের লেখাপড়ার খরচ চালাতে প্রতিনিয়ত হিমশিম খাচ্ছেন। এরপরও ধার দেনা ও অক্লান্ত পরিশ্রমে ছেলেমেয়েদেরকে পড়াশুনা করাচ্ছেন আলাউদ্দিন। জীবন সংগ্রামের টানাপড়েনের মধ্যেও অদম্য মেধাবী ছাত্রী রিমা আক্তার ৫ম ও ৮ম শ্রেণিতে বৃত্তি লাভ করে। ২০১৪ সালে আসিয়া বারী আদর্শ বিদ্যালয় থেকে জিপিএ-৫ ও ২০১৬ সালে মঠখোলা হাজী জাফর আলী কলেজ থেকে জিপিএ-৫ পেয়ে রিমা উত্তীর্ণ হয়। হাজী জাফর আলী কলেজের উপাধ্যক্ষ আবদুল হেলিম জানান, মেয়েটি ভীষণ মেধাবি। অসচ্ছল পরিবারে জন্ম হলেও মেয়েটির ঈর্ষণীয় মেধাকে সবসময় আমরা উৎসাহিত করতাম। এখন অর্থাভাবে চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন পূরণ নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন মেধাবী ছাত্রী রিমার পরিবার। তাই সমাজের বিত্তবানদের সহযোগিতা পেলে মেয়েটি তার স্বপ্নপূরণ করতে পারবে। রিমার মা হালিমা খাতুন বলেন, কৃষি কাজ করে সংসার চালানোই দায় হয়ে পড়েছে। তারপর ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার খরচ চালাতে গিয়ে প্রতিনিয়তই হিমশিম খাচ্ছি। এ পরিস্থিতিতে রিমার মেডিকেলে ভর্তির খরচ কিভাবে মিটাব তা নিয়ে আমরা খুবই চিন্তিত। সমাজের বিত্তবানদের কাছে তিনি মেয়ের লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়ার জন্য সহযোগিতা কামনা করেন।


রিমাও তার মেডিকেলে ভর্তির জন্য সমাজের বিত্তবানদের সহযোগিতা কামনা করেছেন। রিমা বলেন, আমার বিশ্বাস সকলের সহযোগিতায় আমি আমার চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন পূরণ করতে পারব।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

shawkat hossain

২০১৭-১০-২০ ০৯:৩৫:৫১

pls provide her /correspondent's phone no

অচিন্ত্য কুমার সিংহ

২০১৭-১০-২০ ০২:৩৪:০৭

সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত।

অচিন্ত্য কুমার সিংহ

২০১৭-১০-২০ ০২:৩৩:৩৩

সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত।

রেজাউল হাসান

২০১৭-১০-২০ ০১:১৬:৫৬

আমরা রিমার ভর্তি এবং ভবিষ্যতে পড়াশুনার সকল দায়িত্ব নিতে চাই, দয়া করে তার সাথে যোগাযোগের নাম্বার কিংবা কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধির নাম্বার অথবা কনসার্নের নাম্বার দিন দ্রুত।

riaz

২০১৭-১০-২০ ০০:১৮:৫৭

in those case pls send any account or bcash no

Mohammed

২০১৭-১০-১৯ ১৩:৫৫:৫৪

If there is no address, how can I can I help her

Moynul Khan

২০১৭-১০-১৯ ১১:২০:৩৫

Pls send her mob no

আপনার মতামত দিন

ঢাকা ওয়াসাকে ১৩টি খাল উদ্ধারের নির্দেশ

এসডিজি অর্জন করতে হলে প্রতিবছর ৩০ শতাংশ নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ বাড়াতে হবে

‘অনুপ্রবেশকারীদের ৫০০০ পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না’

‘ক্ষমতা থাকলে সরকারকে টেনে-হিচড়ে নামান’

আগামীকাল আদালতে যাবেন খালেদা জিয়া

‘সেনা মোতায়েনের প্রয়োজন নেই’

‘তদন্তের স্বার্থেই তনুর পরিবারকে ডাকা হয়েছে’

জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন ‘কুমির মানুষ’

আশ্রয়শিবিরে সংক্রমণযুক্ত পানির বিষয়ে ইউনিসেফের সতর্কতা

চীন, উত্তর কোরিয়ার ১৩ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ

রোহিঙ্গা সঙ্কট: উচ্চ আশা নিয়ে বাংলাদেশ-মিয়ানমার বৈঠক শুরু

ঘোড়ামারা আজিজসহ ছয় জনের মৃত্যুদণ্ড

নিবিড় পর্যবেক্ষণে মহিউদ্দিন চৌধুরী

আফ্রিকার স্বৈরাচারদের মেরুদণ্ডে শিহরণ

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীনের প্রস্তাব, যা বললেন মুখপাত্র...

দুদকের মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন মেয়র সাক্কু