যন্ত্র বিজ্ঞানী আমির হোসেনের সংবাদ সম্মেলন

বাংলারজমিন

বগুড়া প্রতিনিধি | ১৯ অক্টোবর ২০১৭, বৃহস্পতিবার
কৃষিক্ষেত্রে সাড়া জাগানো বগুড়ার কৃষি ও যন্ত্র বিজ্ঞানী আলহাজ আমির হোসেন তার বিরুদ্ধে ১৬ অক্টোবর বগুড়া প্রেস ক্লাবে জনৈক মতিয়ার রহমান কর্তৃক সাংবাদিক সম্মেলনের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় পাল্টা সাংবাদিক সম্মেলন করেন। এ সময় তিনি বগুড়া সদরের মাটিডালি-ধরমপুর রাস্তার পাশে তার কারখানা রক্ষায় সাংবাদিক ও প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন। দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে উক্ত জায়গায় কারখানা স্থাপন করে তিনি বৈজ্ঞানিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন এবং কৃষিক্ষেত্রে নতুন নতুন যন্ত্র আবিষ্কার করছেন। কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরে স্থানীয় কতিপয় চিহ্নিত ভূমিদস্যু আমির হোসেন এর কারখানা দখল করে নেয়ার হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। তিনি বলেন, ফুলবাড়ী মৌজার জয়পুরপাড়া সিএস ৭৩ খতিয়ানভুক্ত ২৮ দাগের ১.৫৩ একর সম্পত্তির মধ্যে ৭৮ শতক জমি ২০০৩ সালের মার্চ মাসে মিসেস হামিদা  মোহাম্মদ আলীর ছেলে সৈয়দ হামেদ আলী চৌধুরীর কাছ  থেকে রেজিস্ট্রি দলিল মূলে খরিদ ও দখল করেন। তাছাড়া ২/২০০৪ বণ্টনের মোকদ্দমায় ডিক্রিপ্রাপ্ত হইয়া এবং আদলাত থেকে পৃথক করে নেয়ার জন্য ৬/২০০৮ বণ্টন ডিক্রিজারি মোকদ্দমায় ২৯.০৯.২০০৮ আদালত থেকে ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ স্কোয়াডের মাধ্যমে দখলপ্রাপ্ত হন।
তিনি বলেন, ০২/০৪ বণ্টন মোকদ্দমা এবং ৬/০৮ বণ্টন ডিক্রিজারি  মোকদ্দমার রায় ও ডিক্রি আজতক বহাল আছে। তা উপযুক্ত আদালত থেকে বাতিল না হওয়া পর্যন্ত ডিক্রিপ্রাপ্ত সম্পত্তি  কেউ দাবি করতে পারে না। একই দাগের অর্থঋণ আদালত  থেকে ১১৯/২০০০ অর্থ মোকদ্দমা ২৩৩/০৪ অর্থ ডিক্রিজারির মোকদ্দমার রায় নিলামে খরিদকারি আবুদল বাকী জলিল পক্ষে বহাল থাকা পর্যন্ত নিলামের সম্পত্তি অন্য  কেউ দাবি করতে পারে না। তাছাড়া মতিয়ার রহমান ও তার শরিকগণ ০২/০৪ বণ্টন মোকদ্দমা এবং তৎমূলে সৃষ্ট ৬/০৮ বণ্টন ডিক্রি জারির মোকদ্দমার রায় ও ডিক্রি এবং ১১৯/২০০০ অর্থ মোকদ্দমা ও তৎমূলে ২৩৩/০৪ অর্থ ডিক্রিজারি মোকদ্দমা ও ডিক্রিকে চ্যালেঞ্জ করে আমিরসহ অন্যদের বিরুদ্ধে জেলা বগুড়ার ১ম যুগ্ম জজ আদালতে ৩৪৪/ ১০ বণ্টনের মোকদ্দমা দায়ের করলে তা ঢিসমিস হয় এবং তা আজতক বহাল আছে। তিনি আরো বলেন, আমার স্বত্বদখলীয় উক্ত জায়গায় একটি ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কসপ ও মাদ্‌রাসা স্থাপন করিয়াছি। এই বাস্তবতার বিরুদ্ধে মতিয়ার রহমান তার ভূমিদস্যুতার চরিত্র থেকে সংবাদ সম্মেলনে আমাকে ও আমার পরিবারকে হেয় করার অপচেষ্টা করেছে। আমি তার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করছি। আমি মানুষের অনুকম্পা পাওয়ার উদ্দেশে নিজেকে যন্ত্রবিজ্ঞানী বলে দাবি করি না। প্রকৃতপক্ষে আমি বুয়েট থেকে সনদপ্রাপ্ত কৃষি ও শিল্প যন্ত্র উদ্ভাবক ও প্রস্তুতকারক। বরং সন্ত্রাসী ভূমিদস্যু মতিয়ার রহমান নিজে সহানুভূতি ও অনুকম্পা পাওয়ার উদ্দেশে প্রকৃত তথ্য গোপন করে সাংবাদিক মহলের কাছে সত্য ঘটনা চেপে গেছে। সংবাদ সম্মেলনে আমির হোসেন এ যাবত তার কাজের স্বীকৃতি ও সম্মাননা স্বরূপ পদক ও সার্টিফিকেট সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ঢাকা ওয়াসাকে ১৩টি খাল উদ্ধারের নির্দেশ

এসডিজি অর্জন করতে হলে প্রতিবছর ৩০ শতাংশ নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ বাড়াতে হবে

‘অনুপ্রবেশকারীদের ৫০০০ পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না’

‘ক্ষমতা থাকলে সরকারকে টেনে-হিচড়ে নামান’

আগামীকাল আদালতে যাবেন খালেদা জিয়া

‘সেনা মোতায়েনের প্রয়োজন নেই’

‘তদন্তের স্বার্থেই তনুর পরিবারকে ডাকা হয়েছে’

জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন ‘কুমির মানুষ’

আশ্রয়শিবিরে সংক্রমণযুক্ত পানির বিষয়ে ইউনিসেফের সতর্কতা

চীন, উত্তর কোরিয়ার ১৩ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ

রোহিঙ্গা সঙ্কট: উচ্চ আশা নিয়ে বাংলাদেশ-মিয়ানমার বৈঠক শুরু

ঘোড়ামারা আজিজসহ ছয় জনের মৃত্যুদণ্ড

নিবিড় পর্যবেক্ষণে মহিউদ্দিন চৌধুরী

আফ্রিকার স্বৈরাচারদের মেরুদণ্ডে শিহরণ

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীনের প্রস্তাব, যা বললেন মুখপাত্র...

দুদকের মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন মেয়র সাক্কু