কাল ফিরছেন খালেদা ব্যাপক শোডাউনের প্রস্তুতি

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ অক্টোবর ২০১৭, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৫০
চিকিৎসার উদ্দেশ্যে দীর্ঘ দুই মাসের বেশি সময় লন্ডন অবস্থানের পর আগামীকাল বুধবার দেশে ফিরছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। লন্ডন থেকে আজ রাতে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা দেবেন তিনি। আগামীকাল বিকাল ৫টা ২০ মিনিটে হজরত শাহজালাল (র.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে তার। সম্প্রতি কুমিল্লা ও ঢাকার দুইটি আদালত আলাদা তিন মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে এবারই প্রথম গ্রেপ্তারি পরোয়ানা মাথায় নিয়ে দেশে ফিরছেন তিনি। এদিকে চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দেশে ফেরার খবরে দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে তৈরি হয়েছে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা।
বিপুল উপস্থিতির মাধ্যমে চেয়ারপারসনকে বরণ করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা। বিমানবন্দর থেকে গুলশান পর্যন্ত রাস্তার দুইপাশে বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী মানবঢালের মতো অবস্থান নেবেন। বিএনপি নেতারা জানান, বিমানবন্দরে বিপুল উপস্থিতির মাধ্যমে নেত্রীকে বরণ করতে বড় ধরনের শোডাউনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ঢাকা মহানগর বিএনপির নেতারা গত দুইদিন ধরে সে প্রস্তুতি শুরু করেছেন। একইভাবে যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, মহিলা দল, ছাত্রদলসহ অন্যান্য অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোও জোরালো প্রস্তুতি নিচ্ছে। প্রতিটি সংগঠনের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় ও মহানগরের ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে প্রস্তুতি সভা করা হচ্ছে। চেয়ারপারসনকে বরণ করতে বিপুল নেতাকর্মীর উপস্থিতি নিশ্চিত করতে আলাদা আলাদা প্রস্তুতি সভা করেছে বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও মহিলাদলসহ অঙ্গদলগুলো। ঢাকার প্রতিবেশী জেলা গাজীপুর, মানিকগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীরাও শোডাউনে অংশ নেবেন। শনিবার সন্ধ্যায় দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ ও মানিকগঞ্জসহ রাজধানীর পাশের জেলার নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। চেয়ারপারসনকে বরণ করতে শোডাউনের প্রস্তুতির ব্যাপারে রিজভী আহমেদ জানান, খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে দলের নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামবে বিমানবন্দরে। এদিকে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের নেতারা জানান, বুধবারের শোডাউন ও সংবর্ধনায় জোটের নেতাকর্মীরাও যোগ দেবেন। গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন বলেন, দীর্ঘদিন পর দেশে ফিরছেন চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা তৈরি হয়েছে। আমরা গাজীপুর বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের প্রতিটি ইউনিটের সঙ্গে আলোচনা করে প্রস্তুতি নিয়েছে। আশা করছি, এবারের শান্তিপূর্ণ শোডাউনে নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষের উপস্থিতি অতীতের যে কোনো সময়ের রেকর্ড ভাঙবে। ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ হাসান জানান, চেয়ারপারসনকে বরণ করার জন্য আমরা জোর প্রস্তুতি নিচ্ছি। ইতিমধ্যে মহানগর উত্তর বিএনপি ও অঙ্গদলগুলো থানা পর্যায় শেষ করে ওয়ার্ড পর্যায়ের প্রস্তুতি সভা চলছে। মঙ্গলবার রাতের মধ্যেই আমাদের প্রস্তুতি শেষ হবে। সাধারণ মানুষের মধ্যে যে সাড়া পাচ্ছি তাতে আমাদের বিশ্বাস বুধবার বিমানবন্দরে মানুষের ঢল নামবে। বিএনপি নেতা বাহাউদ্দিন সাদী জানান, কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের অনুযায়ী চেয়ারপারসনকে রিসিভ করার বিষয়টি সার্বিকভাবে তদারক করছেন ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সভাপতি এম এ কাইয়ুম ও সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ হাসান। তাদের সিদ্ধান্তের সঙ্গে সমন্বয় করে ঢাকা-১৮ (উত্তরা) নির্বাচনী এলাকার বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা সার্বিক প্রস্তুতি নিচ্ছে। বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার জানান, চেয়ারপারসন দেশে ফেরায় বিশাল সংবর্ধনা দিতে ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে। বুধবার হজরত শাহজালাল (র.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয় পর্যন্ত নেতাকর্মীরা রাস্তার দু’পাশে দাঁড়িয়ে খালেদা জিয়াকে সংবর্ধনা জানাবেন। ইতিমধ্যে দলের উচ্চপর্যায়ে এ নিয়ে আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ ক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ প্রশাসনের সহযোগিতা চায় বিএনপি। এদিকে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জারিকৃত তিনটি গ্রেপ্তারি পরোয়ানার দুইটি ইতিমধ্যে হাতে পেয়েছে গুলশান থানা পুলিশ। রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন তৈরি হয়েছে তাহলে কি দেশে ফিরলে গ্রেপ্তার হবেন খালেদা জিয়া? তবে গ্রেপ্তারের আশঙ্কাকে বড় করে দেখছে না বিএনপি। দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, নেতাকর্মীরা নেত্রীর ফেরার অপেক্ষায় প্রহর গুণছেন। আমরা খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তারের আশঙ্কা করছি না। তারপরও যদি সরকার সেই ধরনের পদক্ষেপ নেয়, তখন সেটা দেখা যাবে। আমরা বহুবার জেল খেটেছি, জেলকে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। ওদিকে আইনজীবী সূত্রে জানা গেছে, দেশে ফিরেই আদালতে যাবেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সে জন্য বৃহস্পতি ও রোববার যে কোনদিন আদালতে হাজির হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় আইনগত প্রস্তুতিও নেয়া হচ্ছে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

জাফর ইকবাল।

২০১৭-১০-১৭ ০৮:০৯:৪৩

সরকার দেশনেত্রীকে গ্রেপ্তারের মতো দুর্সাহস দেখাবেনা।

kazi

২০১৭-১০-১৬ ২০:৫২:৪৬

This is the best decision. She was an elected prime minister. She must be honored for that.

Md A Motaleb Sikder

২০১৭-১০-১৬ ১৯:৩১:৪৮

উদয়ের পথে শুনি কার বাণী, ভয় নাই, ওরে ভয় নাই নি:শেষে প্রান, যে করিবে দান ক্ষয় নাই, ওরে ক্ষয় নাই।

আপনার মতামত দিন

‘আপাতত ভাত-রুটি থেকে দূরে আছি’

মা ও ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা করলো যুবক

দেখা হলো কথা হলো

দল থেকে বহিষ্কার মুগাবে

‘রোহিঙ্গাদের নির্যাতন যুদ্ধাপরাধের শামিল’

আন্ডা-বাচ্চা সব দেশে, বিদেশে কেন টাকা পাচার করবো

জেনেভায় বাংলাদেশের পক্ষে থাকবে জাপান

প্রেমিকের সঙ্গে পালাতে গিয়ে কিশোরী ধর্ষিত

আসামি ‘আতঙ্কে’ সিলেটে আওয়ামী লীগ নেতারা

ত্রাণসামগ্রী বিক্রি করছে রোহিঙ্গারা

ভারতের সঙ্গে সম্প্রীতি নষ্ট করতেই রংপুরে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা

সময় হলে বাধ্য হবে সরকার

কানাডার উন্নয়নমন্ত্রী আসছেন মঙ্গলবার

ব্যক্তির নামে সেনানিবাসের নামকরণ মঙ্গলজনক হবে না: মওদুদ

কায়রোয় আরব নেতাদের জরুরি বৈঠক

পুলিশি জেরার মুখে নেতানিয়াহু