রাখাইনে শিল্প পার্ক, গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণের পরিকল্পনা, প্রকল্প নিয়ে হতাশা চীনের

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৬ অক্টোবর ২০১৭, সোমবার
 রাখাইন রাজ্যকে কেন্দ্র করে বড় ধরনের উন্নয়ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে মিয়ানমার সরকার। এ জন্য রাখাইনের পাশেই প্রস্তাবিত স্পেশাল ইকোনমিক জোন গড়ে তোলার কথা। এটি গড়ে উঠবে কিউকফিউ অঞ্চলে। এর মধ্যে রয়েছে রাখাইন রাজ্যে একটি শিল্প পার্ক ও একটি গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণ। এর কাজ পেয়েছে চীনের রাষ্ট্রী সংস্থা সিআইটিআইসি গ্রুপ নেতৃত্বাধীন কনসোর্টিয়াম। কিন্তু প্রকল্প নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে চীন।
তারা বলছে, প্রকল্প নিয়ে মিয়ানমারের সঙ্গে দুই বছর ধরে আলোচনা চলছে। কিন্তু অগ্রগতি নেই বললেই চলে। মিয়ানমারের সাবেক প্রেসিডেন্ট ইউ থেইন সেইনের অধীনে রাখাইন রাজ্যে গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণে চীনকে শতকরা ৮৫ ভাগ শেয়ার দেয়ার অংশীদারিত্ব অনুমোদিত হয়। বাকি শতকরা ১৫ ভাগ থাকবে মিয়ানমারের। কিন্তু অগ্রগতি না হওয়ায় হতাশা প্রকাশ করেছেন সিআইটিআইসি গ্রুপের মিয়ানমার বিষয়ক নির্বাহী প্রেসিডেন্ট ইউয়ান শাওবিন। তিনি বলেছেন, কাজ সম্পাদনের চুক্তি প্রায় প্রস্তুত। এখন শুধু অনুমোদন বাকি। এ খবর দিয়েছে মিয়ানমারের অনলাইন মিয়ানমার টাইমস। এতে বলা হয়, প্রকল্পের শেয়ার নিয়ে দর কষাকষি করছে মিয়ানমার। এ অবস্থায় চীনা বিনিয়োগকারীরা জোর দিয়ে বলছেন, মিয়ানমার সরকারই তো শেয়ার কে কত পাবে সেই ভাগবাটোয়ারা করেছে। এখন বল ন্যাপিড’র (রাজধানী) কোটে। তারাই এ অবস্থা ভেঙে পদক্ষেপ নেবে এবং সমঝোতা প্রক্রিয়াকে এগিয়ে নেবে। ১৬ই অক্টোবর সাংবাদিক সু ফাইও উইন থমসন চাউ-এর লেখা প্রতিবেদনে বলা হয়, স্পেশাল ইকোনমিক জোনের ভিতর রয়েছে রাখাইনে একটি শিল্প পার্ক ও গভীর সমুদ্র বন্দর। এই মেগা প্রকল্পকে দ্য ফিনান্সিয়াল টাইমস ‘মিনি সিঙ্গাপুর’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছিল। এ প্রকল্পের জন্য ২০১৫ সালে দরপত্র আহ্বান করা হয়। তাতে বিজয়ী হয় চীনের সিআইটিআইসি গ্রুপের নেতৃত্বাধীন কনসোর্টিয়াম। তাদের সঙ্গে আরো রয়েছে চায়না হারবার ইঞ্জিনিয়ারিং, চায়না মার্চেন্টস, টেডা ইনভেস্টমেন্ট, ইউনান কন্সট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ ও থাইল্যান্ডের চারোয়েন পোকফান্ড গ্রুপ। সিঙ্গাপুর জুরং অ্যান্ড বিডব্লিউসি’র সঙ্গে পরামর্শক্রমে মিয়ানমারে এ কাজের টেন্ডার পায় চীন নেতৃত্বাধীন কনসোর্টিয়াম। এই গ্রুপটি এখন স্পেশাল ইকোনমিক জোনে বড় দুটি প্রকল্পÑ শিল্প পার্ক ও গভীর সমুদ্র বন্দর নিয়ে আলাপ আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে মিয়ানমার সরকারের সঙ্গে। এ বিষয়ে হতাশা প্রকাশ করে সিআইটিআইসি গ্রুপের মিয়ানমার শাখার প্রেসিডেন্ট ইউয়ান বলেছেন, কার্য সম্পাদনের চুক্তি সম্পন্ন হলে তা হবে সামনে এগুনোর একটি ক্ষুদ্র পদক্ষেপ। তবে সেটা টার্গেটে পৌঁছানো নয়। এক্ষেত্রে সব রকম ট্রানজেকশন ডকুমেন্ট স্বাক্ষর হলে ওই অর্থনৈতিক জোনে কাজ শুরু করা যাবে। শিল্প পার্ক নির্মাণে তিনটি চুক্তি রয়েছে। তা হলোÑ ১. বিনিয়োগ চুক্তি। ২. অংশীদারিত্ব চুক্তি। ৩. জমি লিজ সংক্রান্ত চুক্তি। গভীর সমুদ্র বন্দরের ক্ষেত্রেও একই রকম চুক্তি প্রয়োজন। ইউয়ান শাওবিন বলেন, বিস্তারিত আলোচনা ও সমঝোতায় পৌঁছানোর জন্য আমাদের আরো সময় প্রয়োজন। কিন্তু এখনও তা শুরু করতে পারি নি। জানি না, কখন এই চুক্তিগুলো করতে সমঝোতা শুরু করতে পারবো। বিশ্বে সর্বোৎকৃষ্ট অনুশীলন করা উপায়ে আমরা সব চুক্তির খসড়া প্রস্তুত করেছি। এখন প্রয়োজন মিয়ানমারের কাছ থেকে ফিডব্যাক। তাদের উচিত এর রিভিউ এবং ধারা থেকে ধারায় তাদের মতামত দেয়া। এটাই বর্তমানের অবস্থা। ওদিকে কিউকফিউ স্পেশাল ইকোনমিক জোন ম্যানেজমেন্ট কমিটির ভাইস চেয়ার ড. ওও মুং আগস্টে মিয়ানমার টাইমসকে বলেছেন, সিআইটিআইসি কনসোর্টিয়াম ও মিয়ানমার কিউকফিউ স্পেশাল ইকোনমিক জোন হোল্ডিং কোম্পানির মধ্যে শেয়ারে সমতা ও এ সংক্রান্ত বিষয়ে সমঝোতা হয়েছে। তিনি ওই সময় আশা প্রকাশ করেন যে, ওই মাসেই এ বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষর হবে। কিন্তু এখন অক্টোবর। কিন্তু সমঝোতা হয় নি। তাই ইউয়ান শাওবিন বলেছেন, সমঝোতা প্রক্রিয়া ও প্রাসঙ্গিক সব কাজ চলছে খুব ধীর গতিতে। তিনি আরো বলেছেন, ট্রানজেকশন ডকুমেন্ট যদি এখন স্বাক্ষর হয়-ও তবু বিনিয়োগকারীরা সঙ্গে সঙ্গে প্রকল্পের কাজ শুরু করতে পারবেন না। কারণ, এনভায়রনমেন্টাল ইমপ্যাক্ট এসেসমেন্ট বা পরিবেশে এর প্রভাব যাচাই করতে লেগে যাবে আরো কমপক্ষে দেড় বছর। তাই তিনি মনে করেন, এখনই ট্রানজেকশন ডকুমেন্ট স্বাক্ষর হয়ে গেলে দু’বচরের মধ্যে প্রকল্পের কাজ শুরু হতে পারে। তিনি বলেন, মিয়ানমার প্রস্তুত থাকলে আমরা প্রস্তুত আছি।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

amir hossain

২০১৭-১০-১৬ ০৪:৪৬:৫১

aj tar e masul dechen ruhingara

kazi

২০১৭-১০-১৬ ০১:২৪:২০

Curses on the project of Mayanmar from dead Ruhingas. This project will never happen success fully.

আপনার মতামত দিন

টসে জিতে ফিল্ডিংয়ে রংপুর

বাড়ি ফিরেছেন নিখোঁজ ব্যবসায়ী অনিরুদ্ধ রায়

শিক্ষার্থীদের মাথা ন্যাড়ার শর্তে এসএসসি’র ফরম পূরণ!

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে

একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ

শিক্ষিকা-ছাত্রের যৌন সম্পর্ক, অতঃপর...

রাবি অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার

‘সমাবেশে জোর করে লোক আনা হয়েছে’

সমাবেশ মঞ্চে শেখ হাসিনা

যুদ্ধাপরাধের ২৯তম রায়ের আপেক্ষা

ঈদে মিলাদুন্নবী নিয়ে চাঁদ দেখা কমিটির সভা কাল

সিরিয়া ইস্যুতে আবারো রাশিয়ার ভেটো

হারিরির সৌদি আরব ত্যাগ

ঢাকায় চীন-বাংলাদেশ বৈঠক শুরু

প্যারাডাইস পেপারসে শিল্পপতি মিন্টু ও তার পরিবারের নাম

ইরাক ও ইসরায়েল সুন্দরী একসঙ্গে সেলফি তুলে বিপাকে