‘অভিযোগ সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত দায়িত্ব নিতে পারবেন না প্রধান বিচারপতি’

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৫ অক্টোবর ২০১৭, রবিবার, ১২:৫৫ | সর্বশেষ আপডেট: ৩:১২
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার বিরুদ্ধে ওঠা ১১ অভিযোগের সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত বেঞ্চের পাঁচ বিচারক তার সঙ্গে বিচার কাজে বসবেন না বলে জানিয়েছেন। সুতরাং তিনি দেশে ফিরে দায়িত্ব গ্রহণ করতে পারবেন কিনা তা স্পষ্ট নয়। অভিযোগের সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত প্রধান বিচারপতি দায়িত্ব গ্রহণ করতে পারবেন না। কারণ তিনি তো আর একা বেঞ্চ চালাতে পারবেন না। আজ রোববার সচিবালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। ওই সংবাদ সম্মেলনের শুরুতেই প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার ছুটিতে যাওয়া সম্পর্কিত দুটি চিঠি পড়ে শোনান আইনমন্ত্রী।
আইনমন্ত্রী আরও বলেন, কেউ আইনের উর্ধ্বে নয়। প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে যে অভিযোগগুলো এসেছে তার সবই দুর্নীতি সংক্রান্ত। এসব অভিযোগের তদন্তের এখতিয়ার দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) রয়েছে। দুদক অভিযোগের বিষয়ে অনুসন্ধান করবে। মন্ত্রী বলেন, বিদেশ যাওয়ার আগে যখন প্রধান বিচারপতি তার সরকারি বাসভবন ত্যাগ করেন তখন কাউকে অ্যাড্রেস না করে একটি চিঠিতে জানিয়েছেন তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ। তার বক্তব্যে আমি হতভম্ব। আনিসুল হক আরও বলেন, প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার ছুটিতে যাওয়াকে কেন্দ্র করে ইস্যু তৈরি করতে চেয়েছে দেশের কিছু কিছু রাজনৈতিক মহল এবং তা ব্যর্থ হয়েছে। এই দুটি চিঠি পাওয়ার পর আমাদের কোনো সন্দেহের উদ্রেক হয়নি। তাই যে কাজ করা উচিৎ তাই করেছি। রাষ্ট্রপতিকে চিঠি পৌঁছে দিয়েছি। এরপর রাষ্ট্রপতি বিচারপতি ওয়াহ্হাব মিঞাকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি করেন। আমার মনে হয় এ নিয়ে বিতর্কের কোনো অবকাশ নেই।

[এমকে/এফএম]

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Rubo

২০১৭-১০-১৫ ০৮:৩০:০৪

রায় দেয়ার আগে প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে একটিও অভিযোগ ছিলো না । রায় দেবার পর সরকারি দল যে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে তার ধারাবাহিকতায় মাত্র কয়েকদিনের মধ্যেই ১১ গুরুতর অভিযোগ দাড়িয়ে গেলো । দুঃখ হয় স্বাধীনতার ৪৬ বছরেও আমরা এমন একটি সরকার পেলাম না যারা চায় দেশে সুশাসন আসুক , আইনের শাসন প্রতিস্ঠিত হোক । ক্ষমতার মোহে প্রতিটি প্রতিস্ঠানকে তারা শুধু ধ্বংসই করছেন ।

kazi

২০১৭-১০-১৫ ০৫:০৬:৩৭

যারা বিচারপতির ক্যান্সার সৃষ্টি করেছিল তারা অচিরেই ক্যান্সার আক্রান্ত হতেও পারে। পাপ বাপকেও ছাড়ে না।

বি,এম তৌকির আহম্মেদ

২০১৭-১০-১৫ ০১:১৬:৩৩

এই যদি হয় বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থা। তাহলে আমরা যাব কোথায়। সরকারী যদি উচ্চ আদালতকে নিজেদের দখলে নিয়ে যায়।তাহলে আইন বলতে কিছু থাকবে কি???

Mojib

২০১৭-১০-১৫ ০০:২৩:৪৪

আমরা এ কোন দেশে বাস করিতেছি সটিক কথা বলার কারনে বিচার পতি আজদেশ হইতে নিরবাসিত ।

kazi

২০১৭-১০-১৫ ০০:০৬:২৪

প্রধান বিচারপতি সত্য কথাটি প্রকাশ করেছেন। তোমরা মিথ্যাবাদীর দল। ষোড়শ সংশোধনীর বিরুদ্ধে রায় দিতেই ১১ টি বানোয়াট অভিযোগ উত্থাপন করা হয়েছে। দেশবাসি পাঁচ আঙ্গুল দিয়ে ভাত খায়। সত্য মিথ্যা বোঝার শক্তি আছে।

আপনার মতামত দিন

ঢাকা ওয়াসাকে ১৩টি খাল উদ্ধারের নির্দেশ

এসডিজি অর্জন করতে হলে প্রতিবছর ৩০ শতাংশ নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ বাড়াতে হবে

‘অনুপ্রবেশকারীদের ৫০০০ পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না’

‘ক্ষমতা থাকলে সরকারকে টেনে-হিচড়ে নামান’

আগামীকাল আদালতে যাবেন খালেদা জিয়া

‘সেনা মোতায়েনের প্রয়োজন নেই’

‘তদন্তের স্বার্থেই তনুর পরিবারকে ডাকা হয়েছে’

জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন ‘কুমির মানুষ’

আশ্রয়শিবিরে সংক্রমণযুক্ত পানির বিষয়ে ইউনিসেফের সতর্কতা

চীন, উত্তর কোরিয়ার ১৩ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ

রোহিঙ্গা সঙ্কট: উচ্চ আশা নিয়ে বাংলাদেশ-মিয়ানমার বৈঠক শুরু

ঘোড়ামারা আজিজসহ ছয় জনের মৃত্যুদণ্ড

নিবিড় পর্যবেক্ষণে মহিউদ্দিন চৌধুরী

আফ্রিকার স্বৈরাচারদের মেরুদণ্ডে শিহরণ

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীনের প্রস্তাব, যা বললেন মুখপাত্র...

দুদকের মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন মেয়র সাক্কু