ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণার রায় ৩০ দিনের মধ্যে রিভিউ: আইনমন্ত্রী

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ অক্টোবর ২০১৭, শুক্রবার

জাতীয় সংসদের মাধ্যমে উচ্চ আদালতের বিচারকদের অপসারণ সংক্রান্ত সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করে আপিল বিভাগের দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে আগামী ৩০ দিনের মধ্যে রিভিউ পিটিশন দাখিল করা হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। গতকাল রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে লেজিসলেটিভ ইম্প্যাক্ট অ্যাসেসমেন্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান তিনি। আইনমন্ত্রী বলেন, আমি শুনেছি, গতকাল (বুধবার) বা গত পরশু (মঙ্গলবার) এই রায়ের কপি পেয়েছি। এটি ৭৯৯ পাতার রায় এবং  প্রতিটি লাইন অত্যন্ত ইম্পর্টেন্ট। তিনি বলেন, আমরা চেষ্টা করব ৩০ দিনের মধ্যে রিভিউ পিটিশন দাখিল করার। অনুষ্ঠানে লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগ এবং ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স কর্পোরেশনের (আইএফসি) মধ্যে লেজিসলেটিভ ইম্প্যাক্ট অ্যাসেসমেন্ট বিষয়ে সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষর হয়।

উচ্চ আদালতের বিচারপতিদের অপসারণ ক্ষমতা জাতীয় সংসদের কাছে ফিরিয়ে নিতে ২০১৪ সালের ১৭ই সেপ্টেম্বর সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী জাতীয় সংসদে পাস হয়। পরে ওই সংশোধনীর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে একই বছরের ৫ই নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের নয়জন আইনজীবী হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। চূড়ান্ত শুনানি শেষে গত বছরের ৫ই মে হাইকোর্টের তিনজন বিচারপতির সমন্বয়ে গঠিত বিশেষ বেঞ্চ সংখ্যাগরিষ্ঠ মতামতের ভিত্তিতে ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেয়। পরে এই রায়ের বিরুদ্ধে গত ৪ঠা জানুয়ারি আপিল করে রাষ্ট্রপক্ষ। গত ৮ই মে আপিলের শুনানি শুরু হয়ে ১লা জুন শেষ হয়। ওই দিন আদালত  মামলাটি রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ রাখেন। গত ৩রা জুলাই সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে গঠিত পূর্ণাঙ্গ আপিল বিভাগ। ১লা আগস্ট এর পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। রায়ের কিছু পর্যবেক্ষণ নিয়ে সরকারি দলের ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। একই সঙ্গে রায়ের পক্ষে বিপক্ষে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিন্থী আইনজীবীরা প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেন। এরই মধ্যে অসুস্থতাজনিত কারণে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা গত ৩রা অক্টোবর থেকে ১লা নভেম্বর পর্যন্ত এক মাসের ছুটিতে যান। তার ছুটি নিয়েও রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোচনার ঝড় ওঠে। বিএনপির অভিযোগ প্রধান বিচারপতিকে সরকার জোর করে ছুটিতে পাঠিয়েছে। অন্যদিকে সরকারি দলের নেতা ও মন্ত্রীরা বলছেন প্রধান বিচারপতি অসুস্থ। তাই ছুটি নিয়েছেন। প্রধান বিচারপতি বিদেশ যাবেন বলে মঙ্গলবার এক চিঠিতে প্রেসিডেন্টকে অবহিত করেন। একই সঙ্গে ১৩ই অক্টোবর থেকে আগামী ১০ই নভেম্বর পর্যন্ত বিদেশে থাকতে চান বলে প্রেসিডেন্টকে লেখা চিঠিতে উল্লেখ করেন প্রধান বিচারপতি। গতকাল সোনারগাঁও হোটেলের অনুষ্ঠানে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানান, শুক্রবার (আজ) অস্ট্রেলিয়া যেতে পারেন প্রধান বিচারপতি।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

শীর্ষ সন্ত্রাসী সাদ্দাম হোসেন গ্রেপ্তার

‘আশ্রয়শিবিরে ৫০০ রোহিঙ্গা নারীর যৌন ব্যবসা’

এম কে আনোয়ারের দাফন আগামীকাল

‘আন্দোলনের দাবিগুলো নিয়ে ক্যাবিনেটে সুপারিশ করা হয়েছে’

জঙ্গি অভিযান শেষ, আটক হয়নি কেউই

খালেদা জিয়া কক্সবাজার যাচ্ছেন রোববার

রোনালদোই সেরাা

সেরা একাদশে যারা

রোহিঙ্গা ইস্যু- ফের  আসছেন চীনের বিশেষ দূত

রোহিঙ্গাদের জন্য ৩০০০ কোটি টাকার প্রতিশ্রুতি

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমার ও বাংলাদেশকে একই সাথে খুশি করা ভারতের জন্য কি কূটনীতির পরীক্ষা?

সুষমার সতর্ক কূটনীতি

সেসিপ প্রকল্পে ১৩২ কোটি টাকা লোপাট

রোহিঙ্গাদের পাশে রানী রানিয়া

‘সব বিষয় ইমানদারির সঙ্গে মিটিয়ে ফেলবো’

‘সবুজ বিপ্লবের’ পথে পোশাক শিল্প