রাম রহিমকে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন রাখি

বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, রবিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:০১
রাম রহিমকে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু হানিপ্রীত তার স্বপ্নপূরণে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল। এমন বক্তব্য দিয়ে ফের বোমা ফাটালেন বলিউড আইটেম গার্ল রাখি সাওয়ান্ত। একটি ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাখির দাবি রাম রহিমের ঘনিষ্ঠ হতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু হানিপ্রীত সেই জায়গা তাকে ছাড়েনি। রাখির মতে তিনি রাম রহিমকে এতটাই কাছ থেকে চিনতেন, যে ধর্ষক বাবা সম্পর্কে তথ্য জানতে হলে তিনিই সবচেয়ে উপযুক্ত মানুষ।
প্রকাশ্যে বাবা ও মেয়ের সম্পর্ক হিসেবে পরিচয় দিলেও, হানিপ্রীত ও রাম রহিমের সম্পর্ক যে আদৌ বাবা মেয়ের ছিল না তা আরও একবার মনে করিয়ে দিয়েছেন রাখি। সাড়ে তিন বছরেরও বেশি সময় ধরে রাম রহিম ও তার পালিত ‘কন্যা’ হানিপ্রীতকে চেনেন তিনি। তাদের মধ্যে কি সম্পর্ক তাও পরিষ্কার জানেন বলে দাবি তার। ধর্ষক বাবা তাকে নাকি জন্মদিনে নিমন্ত্রণ করেছিলেন। তখন রাখি একবার বিতর্কিত গুহাতেও ঢুকেছিলেন। তাকে সেখানে একটি পানীয় খেতে  দেওয়া হয়। সেটা খেয়ে তিনি নাকি অচৈতন্য হয়ে পড়েছিলেন। ধর্ষক বাবা তার সঙ্গে অভব্যতা করার উদ্দেশ্যেই এই পানীয় খাওয়ায় বলে দাবি তার। তবে হানিপ্রীত সেই ঘনিষ্ঠতা আটকায়। কারণ তাদের এই ঘনিষ্ঠতা মেনে নেয়নি হানিপ্রীত। রাখি বলেছেন তিনি যাতে হানিপ্রীতের সতীন না হয়ে উঠতে পারেন, তার জন্য সবরকম চেষ্টা করেছিল  সে। তবে সাধ্বীদের সঙ্গে রাম রহিমের সম্পর্ক ও ধর্ষণের ঘটনা তিনি কিছু জানতেন না বলে দাবি করেছেন রাখি। তবে রাম রহিমকে ঘিরে থাকা নারীদের ছোটখাটো পোশাক তাকে নাকি অবাক করত।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা হিমঘরে পাঠালেন আরো এক বিচারক

পেপ্যালের জুম সেবার উদ্বোধন

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে দায়ী করলো যুক্তরাষ্ট্র

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সভাপতি মজনু গ্রেপ্তার

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা কাল

কুয়েতে এসি বিস্ফোরণে নিহত পাঁচজনের মরদেহ দেশে,বিকালে দাফন

আমাদের অনেক এমপি অত্যাচারী, অসৎ : অর্থমন্ত্রী

মিয়ানমার থেকে শূন্য হাতে ফিরলেন জাতিসংঘ কর্মকর্তা

‘এ নিয়ে আমার কোনো আফসোস নেই’

সোমালিয়ায় হামলায় নিহত ৩ শতাধিক, বৈশ্বিক সংহতি কোথায়?

মেসির সেঞ্চুরি, বার্সেলোনার জয়

ম্যানইউ’র জয়ের ধারা অব্যাহত

ইভিএম চায় আওয়ামী লীগ সীমানায় অনীহা

আরো একটি পরাজয়

আরো অর্থায়ন না হলে রোহিঙ্গা শিশুদের সহায়তায় বিপর্যয়

চীন-রাশিয়া পাশে আছে