সেরে উঠছেন আনিসুল হক

প্রথম পাতা

বিশেষ প্রতিনিধি | ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:২৭
ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক। তাকে কৃত্রিমভাবে ঘুম পাড়িয়ে রাখা হয়েছে। এটাও তার চিকিৎসার অংশ। আনিসুল হকের এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু মানবজমিনকে জানান, মস্তিষ্কের রক্তনালীর প্রদাহ মারাত্মক। তাই ঘুম পাড়িয়ে এ চিকিৎসা দিতে হয়। এর কোনো বিকল্প নেই।
গেল সপ্তাহে হাসপাতালে গিয়ে দেখলাম মেয়রের শরীরের বিভিন্ন অংশে মেডিকেল যন্ত্রাংশ এবং নাকে অক্সিজেন মাস্ক লাগানো। তিনি এপাশ-ওপাশ করতে পারেন। কিন্তু শরীরে চিকিৎসা সংশ্লিষ্ট নানান যন্ত্রাংশের সংযোগের কারণে দিক পরিবর্তন বা পাশ ফিরতে পারছেন না। চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী আপনজন ছাড়া আনিসুল হকের সঙ্গে কেউ দেখা করতে পারছেন না। আনিসুলের ব্যবসায়ী বন্ধু জানান, যতটুকু জেনেছি তার শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক। তবে মাঝে মধ্যে ঘন ঘন শ্বাস নিতে দেখেছি। এর আগে গত ১৩ই আগস্ট মস্তিষ্কের রক্তনালীতে প্রদাহ নিয়ে লন্ডনের একটি হাসপাতালে ভর্তি হন আনিসুল হক। এরপর থেকে তার সঙ্গে দর্শনার্থীদের সাক্ষাৎ সম্পূর্ণভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে। কেবলমাত্র তালিকাভুক্ত ঘনিষ্ঠজন ছাড়া আর কারো সেখানে যাওয়ার সুযোগ নেই। আনিসুল হকের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশে থাকাকালীনই তিনি প্রথমবার এ রোগে আক্রান্ত হন। কিন্তু তখন রোগ নির্ণয় করা সম্ভব হয়নি। এরপর পারিবারিক কাজে গত ২৮শে জুলাই লন্ডনে যাওয়ার পর আবারো অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মস্তিষ্কের রক্তনালীতে প্রদাহ ধরা পড়ে। সেখানকার চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আনিসুল হক যে সমস্যায় ভুগছেন এর চিকিৎসা একটু দীর্ঘমেয়াদি। তার পুরো সুস্থ হতে আরো সময় লাগবে।
 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

কলেজে এসকেলেটর বিলাস, ৪৫৪ কোটি টাকার প্রকল্প

ইইউয়ে পোশাক রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি ধরে রেখেছে বাংলাদেশ

ফাইনালে বাংলাদেশ হাথুরুকেও জবাব

আইভীর অবস্থা স্থিতিশীল, দেখতে গেলেন কাদের

শামীম ওসমানের বক্তব্যে তোলপাড় নানা প্রশ্ন

বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন ‘সভাপতি হলে তুই মাত করে দিবি’

চট্টগ্রামে বেপরোয়া অর্ধশত কিশোর গ্যাং

তুরাগতীরে লাখো মুসল্লির জুমার নামাজ আদায়

দু’দলের সম্ভাব্য প্রার্থীদের তৎপরতা

পিয়াজের কেজি এখনো ৬৫-৭০ টাকা

নির্বাচন চাইলে সরকার আপিল বিভাগে যেতো

‘বাংলাদেশ ক্রমেই সংকুচিত হয়ে আসছে’

‘শাসকগোষ্ঠীর নির্মম শিকলে বন্দি মানুষ’

ফেনীতে সাড়ে ১৩ হাজার ইয়াবাসহ আটক ১

ছেলেকে হত্যার পর মায়ের স্বীকারোক্তি

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মচারী নিখোঁজ