ছবির মতো শহর

চলতে ফিরতে

কাজল ঘোষ, কুনমিং (চীন) থেকে | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭, রবিবার
দিনটি মঙ্গলবার। তারিখ ১২ই সেপ্টেম্বর। ঢাকায় যানজট কম হবে এ ভাবনাটাই ছিল। অবশ্য যানজট এখন মিরাকল ঘটনা। কখন লাগবে। কখন লাগবে না।
তা কেউ বলতে পারে না। তবু ভিআইপি চলাফেরায় ঢাকায় যানজট বাড়ে এটা একটা নির্দিষ্ট বাতিক। চায়না ইস্টার্নের ফ্লাইট ছিল দুটোয়। সকাল সাড়ে আটটায় সিএনজিতে চেপে বসলাম। টিকাটুলি থেকে এয়ারপোর্ট। দূরত্বের হিসাবে আধ ঘণ্টা। কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা ইউনান সামার ক্যাম্প-২০১৭ এর সহযোগী আয়োজক। তারা প্রচণ্ড সময় মেনে চলে। আমাকে সময় বলে দেয়া আছে। ঠিক ১০টায় এয়ারপোর্টে থাকতে হবে। সেই হিসাবে হাতে দেড় ঘণ্টা সময়। কিন্তু বিধিবাম বিমানবন্দর থেকে তাই চিয়ের দফায় দফায় খোঁজ নেয়া। তীব্র মানসিক চাপ। গায়ে ঘাম ঝরছে। কাকরাইল থেকে শেরাটন হয়ে সোনারগাঁও মোড় পার হতেই আমার বেজে গেল সাড়ে দশটা। অন্যদিন কচ্ছপগতিতে গাড়ি আগালেও আজ অবস্থা বেগতিক। নিয়তির উপর ভরসা করে বসে আছি। বুকের ভেতর টিপটিপ করছে। ফোনে বাংলা জানে এমন একজনকে দেরি হওয়ার কারণ জানালাম। তিনি নিশ্চিত করলেন আজকের সমস্যা অবগত। কোনো এক অজ্ঞাত কারণে আজ গাড়ি চলছেই না। পরে শুনলাম ভিআইপি সমস্যায় পুরো এলাকা স্থির হয়ে আছে। যখন সব পেরিয়ে এয়ারপোর্ট পৌঁছি তখন সোয়া এগারোটা। বোর্ডিং পাস। লাগেজ ট্যাগ করা। ইমিগ্রেশন। নিরাপত্তা তল্লাশি। সব শেষে জানলাম চায়না ইস্টার্নেরও ফ্লাইট কিছুটা ডিলে হবে। যখন ঢাকার আকাশে বিমানটি উড্ডয়ন করছে তখন বাজে তিনটা। রোদ ঝলমলে আকাশে বিমানে উড়ে ঠিক সোয়া পাঁচটায় পৌঁছি কুনমিং এয়ারপোর্টে। সময়ের হিসাবে চীন আমাদের চেয়ে এগিয়ে আছে দুই ঘণ্টা। কাজেই এখানকার ঘড়িতে তখন সোয়া সাতটা। কুনমিংয়ের আকাশসীমায়  বসেই ভাবছিলাম নানা কথা। ঢাকার আকাশে বসে তীব্র মানুষের চাপে কেবল বসতিই চোখে পড়ে। আর এখানে মেঘ-পাহাড়ের মিতালি। এমইউ-২০৩৬ নম্বরের ফ্লাইটটি ক্রমশ যখন বিশ হাজার ফিট উপর থেকে কেবলই নামছে। নিচে সুবিশাল কুনমিং চাংসুই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর তখন উঁকি দিচ্ছে। চীনের দক্ষিণ-পশ্চিমের প্রদেশ ইউনানের রাজধানী কুনমিং। আর বিমানবন্দরে নেমেই টের পেলাম দেয়ালে ইংরেজিতে বড় হরফে লেখা ক্যাপিটাল সিটি অব ফ্লাওয়ার, সিটি অব ইটারনাল স্প্রিং। এটি ফুলের রাজধানী, এটি চির বসন্তের শহর। সুনসান নীরবতা। পরিচ্ছন্ন। নিরাপত্তা আছে প্রচুর। তবে কোথাও কোনো জটলা চোখে পড়েনি। সব শেষে বাইরে নামতেই দেখি রঙিন আলোর বন্যা। দুটি রানওয়ে নিয়ে প্রায় ছয় লাখ বর্গফুটের এই বিমানবন্দরটি ২০১২ সালে চালু হয়। বছরে ৪০ লাখ যাত্রী সেবা নিশ্চিত করে চীনের দ্বিতীয় বৃহত্তম এই বিমানবন্দর। বাইরে দাঁড়িয়ে যখন বাসে উঠছি তখন চীনারা ডিনার শেষ করে ফেলেছে। গাড়িতে ওঠার সঙ্গে সঙ্গেই চিকেন বার্গার আর নাগেট কোকসহ দিয়ে গেল ইউনান ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা। ঘোষণা এলো এটাই ডিনার। যাত্রা শুরু চেংশুই থেকে ইউনান বিশ্ববিদ্যালয়। এটি ঢাকা থেকে জাহাঙ্গীরনগর যতো দূর ঠিক তার চেয়ে বেশি দূরত্বের হবে। কিলোমিটার হিসাবে পঁচিশ। ঢাকায় সকালে ঘামলেও এখানে বাসে বসে ঠাণ্ডায় জমে যাচ্ছিলাম। কাঁচ বন্ধ জানালা দিয়ে দেখছিলাম তাদের পথঘাট। একের পর এক ফ্লাইওভার আর চার লেন-ছয় লেনের রাস্তা ধরে বাস এগোচ্ছে। খেয়াল করলাম লেনগুলো ভাগ করা। জরুরি গাড়ির জন্য একটি লেন। ভারি যানের জন্য একটি। কোথাও কোথাও রয়েছে সাইকেলের পৃথক লাইন। দূরে আলোকিত বড় বড় ভবন। চোখে বর্ণালী কুনমিংয়ের সাক্ষ্য দিচ্ছিল। রাস্তায় খুব একটা মানুষ চোখে পড়ছে না। হঠাৎ খেয়াল হলো পাশ দিয়ে হাই স্পিডের ট্রেনের লাইন। দুটো ট্রেন যেতে  দেখলাম। যাত্রীর সংখ্যা একেবারেই কম। ঘণ্টাখানেকের পথ পার হয়ে ইউনিভার্সিটি এলাকা বলে পরিচিত ইউনান ইউনিভার্সিটির ক্যাম্পাস এলাকায়। চীনা ভাষার শিক্ষক লিও জানাচ্ছিলেন পথঘাট নিয়ে নানা তথ্য। লক্ষ্য করছিলাম কিছু দূর পর পর নিয়ন সাইনের বোর্ড। লেখা শিয়াও বাই চেং লং, কুনমিং রোড। গাছ, লতাপাতায় ঘেরা এই শহর। রাত ক্রমশ বাড়ছিল। স্তব্ধতায় ঢেকে গেছে ইউনান বিশ্ববিদ্যালয়। দূরে কুনমিংয়ের আলো দেখা যাচ্ছে। যখন লেখা শেষ করছি তখন তাপমাত্রা ১৯ ডিগ্রিতে নেমেছে। নিস্তব্ধতার চাদরে ঢেকে গেছে ইউনান ইউনিভার্সিটির ক্যাম্পাস এলাকা। দিনের কুনমিংয়ের সৌন্দর্য নিয়ে পরে লিখবো।  




 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

সোনাজয়ী শুটার হায়দার আলী আর নেই

নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত মুক্তামনি

খাল থেকে উদ্ধার হলো হৃদয়ের লাশ

রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানকে কঠিন পর্যায়ে নিয়ে গেছে সরকার: খসরু

সঙ্কট সমাধানে প্রয়োজন পরিবর্তন: দুদু

চোখের চিকিৎসা করাতে লন্ডনে গেলেন প্রেসিডেন্ট

সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ আওয়ামী লীগের সদস্য হতে পারবে না

টানা বৃষ্টিতে ভোগান্তিতে রাজধানীবাসী

বৌদ্ধ ভিক্ষু সেজে কয়েক শত কিশোরীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক

৫০ বছরের মধ্যে জাপানে কানাডার প্রথম সাবমেরিন

ছিচকে চোর থেকে মাদক সম্রাট!

বোতলে ভরা চিঠি সমুদ্র ফিরিয়ে দিল ২৯ বছর পর!

কার সমালোচনা করলেন বুশ, ওবামা!

জুমের মাধ্যমে পেমেন্ট নিতে পারবেনা বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা

অস্ট্রেলিয়ার গহীন মরুতে ১৮শতাব্দীর বাংলা পুঁথি

হারভে উইন্সটেন যেভাবে হোটেলকক্ষে অভিনেত্রীকে যৌন নির্যাতন করেন