মাজারের টাকা লুটের মামলায় অভিযুক্ত র‌্যাব কর্মকর্তাসহ সাতজন

অনলাইন

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি | ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার, ৯:০৪
চট্টগ্রামের আনোয়ারায় তালসরা দরবার শরীফের টাকা লুটের মামলায় অভিযুক্ত হলেন চার র‌্যাব কর্মকর্তাসহ সাতজন। আজ মঙ্গলবার বিকেলে চট্টগ্রামের পঞ্চম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ নুরে আলম ভুঁইয়ার আদালতে তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। চট্টগ্রাম জেলা পিপি আ ক ম সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী এ বিষয়ে বলেন, তালসরা দরবার শরীফের টাকা লুটের মামলায় অভিযোগপত্রভুক্ত সাত আসামি মামলা থেকে অব্যাহতির আবেদন করেছিলেন। কিন্তু আদালত শুনানি শেষে আবেদন নাকচ করে দিয়ে সবার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য ২৩শে অক্টোবর দিন ধার্য করেছে। অভিযোগ গঠনের সময় জামিনে থাকা সাত আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আসামিরা হলেন- র‌্যাব-৭ চট্টগ্রামের তৎকালীন অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল (চাকরিচ্যুত) জুলফিকার আলী মজুমদার, ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট (বাধ্যতামূলক ছুটিতে) শেখ মাহমুদুল হাসান, র‌্যাব-৭ এর সাবেক ডিএডি আবুল বাশার, এসআই তরুণ কুমার বসু, র‌্যাবের তিন সোর্স দিদারুল আলম ওরফে দিদার, আনোয়ার মিয়া ও মানব বড়য়া।
উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ৪ঠা নভেম্বর রাতে তালসরা দরবার শরিফে তল্লাশির নামে ২ কোটি ৭ হাজার টাকা লুটের অভিযোগে ২০১২ সালের ১৩ই মার্চ আনোয়ারা থানায় র‌্যাব কর্মকর্তাসহ ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।
মামলাটি দায়ের করেন তালসরা দরবারের পীরের গাড়িচালক মো. ইদ্রিস। মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়, র‌্যাবের তৎকালীন অধিনায়ক জুলফিকার মজুমদারের নের্তৃত্বে র‌্যাবের একটি দল অভিযানের নামে দরবার শরীফে রাখা আলমারি ভেঙে দুই কোটি সাত হাজার টাকা নিয়ে যায়। ওই রাতে দরবার শরীফ থেকে মিয়ানমারের পাঁচ নাগরিককে র‌্যাব সদস্যরা আটক করে। তাদের থানায় হস্তান্তর করা হলেও টাকার বিষয়ে কোনো কিছুই উল্লেখ করেনি র‌্যাব। এ ঘটনা জানাজানির পর র‌্যাব সদর দপ্তর থেকে করা তদন্ত কমিটির প্রাথমিক তদন্তে টাকা লুটের ঘটনায় র‌্যাব কর্মকর্তাদের জড়িত থাকার বিষয়টি ধরা পড়ে। এরপর ২০১২ সালের ২৬শে জুলাই জুলফিকারসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন আনোয়ারা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আবদুস সামাদ। ২০১২ সালেই মামলা বাতিল চেয়ে হাই কোর্টে আবেদন করেন জুলফিকার ও মাহমুদুল হাসান। ২০১৫ সালের ১১ই মার্চ জুলফিকারের করা রুল আবেদনটি হাই কোর্টে বাতিল হয়ে যায়। সর্বশেষ গত বছরের ১৮ই অগাস্ট মাহমুদুল হাসানের পক্ষে আবেদনটি না চালানোর কথা জানানো হলে সেটিও বাতিল করে দেয় হাইকোর্ট। এরপর সংশ্লিষ্ট জিআরও শাখায় প্রায় চার বছর আগে জমা পড়া অভিযোগপত্রটি আদালতের নির্দেশে বিচারিক আদালতে আসে। সাবেক র‌্যাব কর্মকর্তা জুলফিকার আলী মজুমদারের গাড়িচালক ও দেহরক্ষী ডাকাতির বর্ণনা দিয়ে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। এছাড়া অন্য তিনজন সাক্ষীও জবানবন্দি দিয়েছেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নীলক্ষেত মোড় অবরোধ করে ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভ

‘মামলা প্রত্যাহার না করলে নির্বাচন করতে দেয়া হবে না’

চলন্ত ট্রেনে উঠতে গিয়ে দুই পা হারালেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ বাংলাদেশী সহ নিহত ৯

‘সরকার ব্যর্থ হলে বিএনপিই দাবি পূরণ করবে’

সিরিয়ায় প্রবেশ করেছে তুরস্কের স্থলবাহিনী

‘অভিযোগের ভিত্তিতেই শিক্ষামন্ত্রীর পিওসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার’

চা: একটি শব্দের ইতিবৃত

ছুরিকাঘাতে এক রোহিঙ্গা নিহত

‘পদ্মাবত’ ছবি নিয়ে উত্তেজনা

কাল শুরু রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন, উদ্বেগ-অভিযোগ

স্মৃতি ফেরাতে ৫৫ বছর পর ফের বিয়ে! দেখুন ভিডিওসহ

আগামীকাল আদালতে যাবেন খালেদা জিয়া

রংপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১

পুলিশের ‘এনকাউন্টারে’ নিষেধাজ্ঞা চাইলেন বিলাওয়াল

হালদা নদীর ডলফিনগুলো মরে যাচ্ছে কেন?