বরখাস্ত হবেন কমান্ডার আউকয়েন

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৩ আগস্ট ২০১৭, বুধবার
এশিয়া অঞ্চলে একের পর এক যুদ্ধজাহাজ দুর্ঘটনায় পড়ায় সপ্তম নৌবহরের কমান্ডার ভাইস এডমিরাল জোসেফ আউকয়েনকে বরখাস্ত করবে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী। যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি কর্মকর্তাদের উদ্ধৃতি দিয়ে এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। গত সোমবার সিঙ্গাপুরের কাছে একটি তেলবাহী ট্যাংকারের সঙ্গে সংঘর্ষ হয় যুক্তরাষ্ট্রের ইউএসএস জন এস ম্যাককেইন যুদ্ধজাহাজের। এর পর থেকে এখনও নিখোঁজ যুক্তরাষ্ট্রের ১০ জন নৌ সেনা। তবে তাদের ব্যবহৃত জিনিসপত্র পাওয়া গেছে জাহাজের ভিতরে। ওই জাহাজটি এখন অবস্থান করছে সিঙ্গাপুর বন্দরে। এটা এ বছর যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীর চতুর্থ এ রকম দুর্ঘটনা। সপ্তম নৌবহরের অধীনে ছিল ইউএসএস জন এস ম্যাককেইন যুদ্ধজাহাজ। রাখা ছিল জাপানের ইয়োকোসুকায়। যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীতে এটাই সবচেয়ে বড় নৌবহর। এতে রয়েছে ৫০ থেকে ৭০ টি নৌযান ও সাবমেরিন।  ২০১৫ সাল থেকে এই নৌবহরের কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করছেন এডমিরাল আউকয়েন। আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে তার অবসরে যাওয়ার কথা। কিন্তু তার আগেই তাকে সরিয়ে দেয়া হতে পারে। ইউএসএস জন এস ম্যাককেইন যুদ্ধজাহাজ দুর্ঘটনার পর নৌবাহিনী বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তার মধ্যে এডমিরাল আউকয়েনকে সরিয়ে দেয়া সর্বশেষ সিদ্ধান্ত। তাকে কবে কখন বরখাস্তের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হবে তা স্পষ্ট নয়। উল্লেখ্য, সোমবার ভোরের আগে আলনিক এমসি নামের একটি তেলের ট্যাংকারের সঙ্গে সিঙ্গাপুরের পূর্ব দিকে সংঘর্ষ হয় ইউএসএস জন এস ম্যাককেইন যুদ্ধজাহাজের। এতে জাহাজে বিশাল একটি গর্ত হয়ে যায়। যেখানে নাবিকরা থাকেন তা সহ অনেকগুলো কম্পার্টমেন্ট এতে পানিতে ভেসে যায়। আহত হন ৫ জন নৌ সেনা। নিখোঁজ হন যুক্তরাষ্ট্রের ১০ জন নৌ সেনা। তাদের সন্ধানে যুক্তরাষ্ট্র, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুরে নৌবাহিনী জাহাজ, সরঞ্জাম ও বিমান ব্যবহার করছে। মঙ্গলবার কর্মকর্তারা বলেছেন, ইউএসএস জন এস ম্যাককেইন যুদ্ধজাহাজের ভেসে যাওয়া কম্পার্টমেন্টগুলোতে মানুষের দেহের বিভিন্ন অংশ পাওয়া গেছে। মালয়েশিয়ার নৌবাহিনী সমুদ্রে একটি মৃতদেহ পেয়েছে। তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা চলছে। ওদিকে সংঘর্ষে ট্যাংকার আলনিক এমসি’র বড় ধরনের ক্ষতি হয় নি। এর কোনো নাবিক আহত হন নি। সমুদ্রে ছড়িয়ে পড়েনি তেল। দু’মাস আগে জাপানের ইয়োকোসুকা বন্দর নগরীর কাছে একটি পণ্যবাহী জাহাজের সঙ্গে সংঘর্ষ হয় যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধজাহাজ ইউএসএস ফিটজেরাল্ডের। এ ঘটনায় নিহত হন যুক্তরাষ্ট্রের ৭ সেনা সদস্য। তাদের মৃতদেহ পাওয়া যায় প্লাবিত কম্পার্টমেন্টগুলোতে।
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

রুহুল

২০১৭-০৮-২৩ ০২:২৫:১৫

একটা জাহাজ দুর্ঘটনায় পড়লে জাহাজের ক্যাপ্টেন/অধিনায়ক এর জন্য দায়ী। জাহাজের সার্বিক দায় দায়িত্ব কাঁধে নিয়েই একজন অফিসার অধিনায়ক হয়ে থাকেন। ঠিক একজন ব্যাংক ম্যানেজারের মত। তারপরও এক জাহাজের দুর্ঘটনার জন্য জোনাল কমান্ডারের চাকরি খাওয়া হলে স্বভাবতই প্রশ্ন জাগে-- বারবার ব্যাংক জালিয়াতির জন্য কার কার বিচার হওয়া উচিত।

আপনার মতামত দিন