নি র্বা চ নী হা ল চা ল, ঝিনাইদহ ৩

একঝাঁক প্রার্থী মাঠে

শেষের পাতা

আমিনুল ইসলাম লিটন, ঝিনাইদহ থেকে | ১৪ আগস্ট ২০১৭, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৪:৫৭
মহেশপুর ও কোটচাঁদপুর উপজেলা নিয়ে গঠিত ঝিনাইদহ-৩ আসন।  কোটচাঁদপুরে পুরুষ  ভোটার সংখ্যা ৫৩৯৭১, মহিলা ভোটার সংখ্যা ৫৩৫৭০, মহেশপুরে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ১,২০,৮৫৮, মহিলা ভোটার সংখ্যা ১,১৯,১৪৬ জন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আসনটিতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি কোনো দলই প্রার্থী বাছাইয়ে নিশ্চিত হতে পারছে না। দুই দলের একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী দুটি উপজেলার গ্রামে-গঞ্জে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। নির্বাচনী প্রচারণা শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মৌসুমী নেতারা বিলবোর্ড পোস্টার টাঙিয়ে ঈদ শুভেচ্ছার মাধ্যমে নিজেকে প্রার্থী হিসেবে জানান দিচ্ছেন। ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মহেশপুর কোটচাঁদপুর নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগের ৫ প্রার্থী দলীয় মনোনয়নপত্র কিনেছিলেন। তবে এবার সরকারি দলের প্রার্থী তালিকা বাড়তে পারে।
অন্যদিকে বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ শহিদুল ইসলাম মাস্টারের মৃত্যুর পর বিএনপি নানাভাবে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। দলের একাধিক নেতা মনোনয়নের আশায় তদবির শুরু করেছেন। আওয়ামী লীগের বর্তমান জাতীয় সংসদ সদস্য মো. নবী নেওয়াজ আবারো দলীয় মনোনয়ন পেতে জোর তৎপরতা শুরু করেছেন। দলের মূল নেতাদের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ায় সিনিয়র নেতারা তাকে এড়িয়ে চলছেন। তবে এমপি নবী নেওয়াজ জানান, তিনি নির্বাচনী এলাকার রাস্তাঘাট ও বিদ্যুতের ব্যাপক উন্নয়নে কাজ করেছেন। ইতিমধ্যে তিনি চেষ্টা চালিয়ে ৭৯ কোটি টাকা ব্যয়ে খালিশপুর মহেশপুর হয়ে জিন্নাহনগর পর্যন্ত ৪৮ কিলোমিটার রাস্তার কাজের টেন্ডার করিয়েছেন। এছাড়া নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে এ দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করতে সক্ষম হয়েছি। প্রত্যেকটি সংগঠনের নিয়মিত বর্ধিত সভাসহ মাসিক মিটিংয়ের ব্যবস্থা করেছি। যার সমস্ত ব্যয়ভার আমি নিজে বহন করেছি। নিয়মিত মিটিংয়ের মাধ্যমে নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করেছি যার ফলে প্রত্যেকটি জাতীয় ও দলীয় অনুষ্ঠান সফলভাবে পালন করতে পেরেছি। মাত্র ৩ বছরের প্রচেষ্টায় মহেশপুর কোটচাঁদপুরের  ছাত্রলীগ, যুবলীগ, কৃষক লীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ-এর নতুন কমিটি গঠন করেছি। দুই উপজেলার প্রায় ১১০ কি.মি. কাঁচা রাস্তা পিচকরণ এবং ৭০ কি.মি. রাস্তা রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করা হয়েছে। মহেশপুর উপজেলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কাজ জমির সমস্যার কারণে ৪ বছরেরও বেশি সময় বন্ধ ছিল। নিজ উদ্যোগে স্বরাষ্টমন্ত্রীসহ ঊর্ধ্বতন মহলে তদবির করে জমির ব্যবস্থা করে কাজটি ২০১৫ সালে শুরু হয়ে সমাপ্ত হয়েছে। যা এখন উদ্বোধনের অপেক্ষায়।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে মানুষ যাতে সঠিক তথ্য জানতে পারে সেজন্য ২০১৫ সালে গড়ে তুলেছি ‘বঙ্গবন্ধু পাঠচক্র’ নামে একটি ব্যতিক্রমী সংগঠন। তিনি বলেন, মহেশপুরের প্রায় ৬ শ’ একর সরকারি খাস জমিতে বিদ্যুতের সোলার প্যানেল ও মাছ চাষের একটি প্রস্তাবিত প্রকল্প হাতে নিয়েছি। যা এখন একনেকে অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। প্রকল্পটি পাস হলে এলাকার বিদ্যুতের ঘাটতি দূর হওয়ার পাশাপাশি মাছের ব্যাপক উৎপাদনের মাধ্যমে এলাকার চাহিদা মেটানো সম্ভব হবে। এই আসনের সাবেক এমপি শফিকুল আজম খান চঞ্চল। তিনি ইতিমধ্যে নির্বাচনী এলাকায় গণসংযোগ, সভা-সমাবেশ অব্যাহত রেখেছেন। এদিকে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য লবিং করছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাজ্জাতুজ জুম্মা চৌধুরী। সাবেক এমপি প্রবীণ নেতা অ্যাডভোকেট মঈনুদ্দিন মিয়াজী এবার দলীয় মনোনয়নের জন্য দুই উপজেলায় গণসংযোগ শুরু করেছেন। এছাড়া ১৯৭৫ সালে পর আওয়ামী লীগের দুঃসময়ে সংগঠনকে এগিয়ে নেয়ার জন্য কাজ করেছেন ঝিনাইদহ জেলা কৃষক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মহেশপুর থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদুল ইসলাম সাজ্জাদ। তিনিও দলীয় মনোনয়নের জন্য কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীদের কাছে লবিং করে যাচ্ছেন। মহেশপুর উপজেলার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়াম্যান ময়েজউদ্দিন হামিদ এবার দলীয় প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। মহেশপুরে প্রিটী গ্রুপের পরিচালক সাবেক সংরক্ষিত মহিলা এমপি পারভিন তালুকদার মায়ার বাবার বাড়ি মহেশপুর এলাকায়। ইতিমধ্যে তার সাথে মহেশপুর-কোটচাঁদপুর এলাকার কিছু নেতাকর্মী যোগাযোগ করছেন। কোটচাঁদপুর উপজেলার সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহ ত্রাণবিষয়ক সম্পাদক এম.এ জামান মিল্লাত দলীয় মনোনয়নের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়াও কোটচাঁদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শরিফুর নেছা মিখী, ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আলী দলীয় মনোনয়নের আশায় এলাকায় গণসংযোগ শুরু করেছেন। এ আসনটি বিএনপির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত হলেও এবার বিএনপি স্থানীয় নির্বাচনে তেমন ভালো ফলাফল করতে পারেনি। এই আসনে বিএনপির সাবেক সভাপতি তিন বার নির্বাচিত সাবেক এমপি আলহাজ শহিদুল ইসলাম মাস্টার মৃত্যুবরণ করায় এই আসনে বিএনপি নানা উপদলে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। মহেশপুর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোমিনুর রহমান দলীয় প্রার্থী হবার জন্য ব্যাপক তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি জানান শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শ বুকে ধারণ করে বেগম খালেদা জিয়ার ও তারুণ্যের প্রতীক তারেক রহমানের নেতৃত্বে ও নির্দেশনায় তৃণমূল সংগঠনকে আরো জোরদার করতে চাই। তিনি দীর্ঘদিন ধরে কেন্দ্রীয় ঘোষিত সব আন্দোলন সংগ্রামে সক্রিয় ভূমিকা পালন করে আসছেন। এলাকায় অবস্থান করে স্থানীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। আন্দোলন সংগ্রাম করতে গিয়ে তিনি শারীরিকভাবে নির্যাতনের পাশাপাশি একাধিক মামালায় আসামি হয়েছেন। অপরদিকে সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম শহিদুল ইসলামের  ছেলে মহেশপুর উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রনি দলীয় মনোনয়নের জন্য লবিং ও এলাকায় গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। রনি জানান, দলীয়ভাবে মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হলে আমার পিতা সাবেক এমপি শহিদুল ইসলামের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাব। বিএনপির সময়ে রাস্তাঘাট ও বিদ্যুতের যে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছিল বর্তমান সরকারের সময়ে সেগুলো থমকে গেছে। রাস্তাঘাট খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। বর্তমান সরকারের সময়ে নির্যাতিত নেতাকর্মীর পাশে থেকে তাদের সাহস যুগিয়ে যাচ্ছেন।
কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিকবিষয়ক সহ সম্পাদক কণ্ঠশিল্পী মনির খান এই আসন থেকে দলীয় প্রার্থী হওয়ার জন্য কেন্দ্রে লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন। কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক বর্তমান কেন্দ্রীয় তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক সহ সম্পাদক আমিরুজ্জামান খান শিমুল এলাকায় গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি জানান, দলীয়ভাবে নেত্রী যদি আমাকে মনোনয়ন দেন তবে বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের সব নেতাকর্মীকে সঙ্গে নিয়ে ধানের শীষকে বিজয়ী করে আনব। তিনি জানান জনগণের সেবার উদ্দেশ্যেই আমার রাজনীতিতে আসা। আর সে কারণেই পলিটিক্যাল সাইন্স নিয়ে আমি মাস্টার্স শেষ করেছি। নির্বাচিত হলে আমি শিক্ষার উন্নয়নে কাজ করতে চাই। শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে যে দুর্নীতি  চলে আসছে তা বন্ধ করে মেধাবী ও যোগ্যদের নিয়োগে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব। ইতিমধ্যে আমি আমার শিক্ষক পিতা আব্দুর রাজ্জাকের নামে পারিবারিক উদ্যোগে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণ করেছি। যেটি ইতিমধ্যেই সরকারিকরণ করা হয়েছে।
এছাড়া ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল ও মহেশপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এম.এ আহাদ দলীয় মনোনয়ন চাইবেন। তবে এই আসনে জোটগতভাবে নির্বাচন হলে কেন্দ্রীয় জামায়াতের শুরা সদস্য অধ্যাপক মতিয়ার রহমানকে প্রার্থী দিতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। এ ব্যাপারে মহেশপুর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মোমিনুর রহমান জানান তৃণমূলে নতুন নেতাদের দলে মূল্যায়ন করতে চাচ্ছে। জোটগতভাবে নির্বাচন হলে জোটের প্রার্থী পরিবর্তন হতে পারে। জাতীয় পার্টির আব্দুর রহমান দলীয় প্রার্থী হিসাবে এলাকায় গণসংযোগ করছেন।

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ব্রাজিল ফুটবলের প্রধান ৯০ দিন নিষিদ্ধ

ঝিকরগাছায় ছাত্রলীগ কর্মী খুন, সড়ক অবরোধ

উৎসবের আমেজে সারাদেশ

জনগণের দেয়া রায় মেনে নেবে বিএনপি: ফখরুল

কংগ্রেস সভাপতি পদে রাহুল গান্ধীর আনুষ্ঠানিক অভিষেক

দুই নারীর একজন স্বামী, অন্যজন স্ত্রী

আ’লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১৫

নওগাঁয় যুবককে কুপিয়ে হত্যা

গার্মেন্টে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ তদন্ত করছে এইচ অ্যান্ড এম

নাশকতার অভিযোগে ২০ শিবিরকর্মী আটক

বিএনপির বিজয় র‌্যালিতে যুবলীগ-ছাত্রলীগের হামলা

বিজয় উৎসব পালন করতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় ৮ মুক্তিযোদ্ধাসহ আহত ৯

আমৃত্যু এক যোদ্ধার কথা

ছাত্রদলের পুষ্পস্তবক ছিঁড়লো ছাত্রলীগ

বঙ্গবন্ধুর গৃহবন্দি পরিবারকে যেভাবে উদ্ধার করেছিলেন কর্নেল তারা

ভারতে তিন তালাক বিরোধী খসড়া আইনে সরকারের অনুমোদন