ভারতের হাসপাতালে ৫ দিনে মৃত্যু ৬০ শিশুর

দেশ বিদেশ

মানবজমিন ডেস্ক | ১৩ আগস্ট ২০১৭, রবিবার
ভারতের উত্তর প্রদেশ অঙ্গরাজ্যের গোরাখপুর জেলার এক হাসপাতালে পাঁচদিনে মৃত্যু হয়েছে ৬০ শিশুর। শেষ দু’দিনেই মৃত্যু হয়েছে ৩০ শিশুর। মৃত শিশুদের মধ্যে সদ্য জন্ম নেয়া শিশুও ছিল। উত্তর প্রদেশ সরকার শিশুদের মৃত্যুর ঘটনার বিষয়টি খতিয়ে দেখতে একটি তদন্ত শুরু করার নির্দেশ দিয়েছেন। বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হাসপাতালটিতে অক্সিজেন সরবরাহ না হওয়ায় এমনটি ঘটেছে। তবে এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে উত্তর প্রদেশ সরকার।
এ খবর দিয়েছে এনডিটিভি। খবরে বলা হয়, গোরাখপুর জেলার বাবা রাঘব দাস মেডিকেল কলেজে প্রথম দিনে মৃত্যুবরণ করে সাত শিশু। সবচেয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ১০ই আগস্ট। ওইদিন মারা যায় ২৩টি শিশু। একইদিন হাসপাতালটিতে অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছিল ওই হাসপাতালে অক্সিজেন সরবরাহকারী সংস্থাটি। হাসপাতাল কতপক্ষ পূর্বে সরবরাহকৃত অক্সিজেনের বিল পরিশোধ না করায় এমন পদক্ষেপ নিয়েছে অক্সিজেন সরবরাহকারী সংস্থাটি। তবে উত্তর প্রদেশ সরকার বেশ কয়েকটি বিবৃতিতে শিশুদের মৃত্যুর ঘটনার সঙ্গে অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ হওয়ার সম্পর্কের কথা অস্বীকার করেছেন। অঙ্গরাজ্যটির চিকিৎসা-শিক্ষামন্ত্রী আশুতোষ তন্দন বলেন, ‘অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ হওয়ার কারণে কোনো মৃত্যু হয়নি।’ তিনি আরো বলেন, গোরাখপুরের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এ বিষয়ে একটি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ওই তদন্তের প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে। গোরাখপুরের বাবা রাঘব দাস মেডিকেল কলেজ পুরো জেলার সবচেয়ে বর হাসপাতাল। ১৯ বছর ধরে এটি উত্তর প্রদেশের প্রধানমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সংসদীয় আসন হিসেবে পরিচিত। রাজ্য স্বাস্থ্যমন্ত্রী সিদ্ধার্থ নাথ সিং বলেন, ‘যারা এ ঘটনার জন্য দায়ী, তারা ছাড় পাবে না।’ তিনি আরো বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আগস্টের ৯ তারিখে হাসপাতালটি পরিদর্শন করেন। তখন চিকিৎসকরা তাকে অক্সিজেন ঘাটতি হবার কথা জানায়নি। আদিত্যনাথ এ বিষয়ে একটি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।’ শুক্রবার রাতে হাসপাতালটিতে ৩০০ অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করেছে ইন্দ্রপ্রস্থ গ্যাস লিমিটেড। অক্সিজেনের ঘাটতি নিয়ে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব রওতেলা শুক্রবার সাংবাদিকদের বলেন, ‘মেডিকেল কলেজের কর্মকর্তারা আমাদের জানিয়েছেন যে, সেখানে বিকল্প অক্সিজেন সরবরাহের ব্যবস্থা ছিল। তাই অক্সিজেন সরবরাহের বিষয়টি বাদ দেয়া যায়।’ রওতেলার ভাষ্যমতে, হাসপাতালটি ৭০ লাখ রুপি বিল পরিশোধের বাকি ছিল। যার মধ্যে ৩৫ লাখ রুপি ইতিমধ্যে পরিশোধ করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমরা লাখনৌতে অবস্থিত ওই অক্সিজেন সরবরাহকারী সংস্থার সঙ্গেও কথা বলেছি। তারা জানিয়েছে, অর্থ পরিশোধ নিয়ে একটি ঝামেলা ছিলো আর এজন্যেই অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়েছে। আমরা তাদেরকে অক্সিজেন সরবরাহে স্থগিত না রাখতে অনুরোধ করেছি।’ বিজেপির বিধানকর্তা কামলেশ পাশওয়ান হাসপাতাল পরিদর্শন করেছেন। তিনিও বলেছেন, হাসপাতালে অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ থাকার সঙ্গে শিশুদের মৃত্যুর ঘটনার কোনো সম্পর্ক নেই। তিনি বলেন, ‘হাসপাতালটিতে প্রতিদিনই ৮ থেকে ৯ জন রোগী মারা যান। এর কারণ হচ্ছে, হাসপাতালটিতে মস্তিষ্কপ্রদাহ সম্পর্কিত প্রচুর রোগী ভর্তি হয়ে থাকে।’


 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ভারতীয় সেনাবাহিনীর সঙ্গে যৌথভাবে যুদ্ধ করেছিল মুক্তিযোদ্ধারা

বিছানায় তুরস্কের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মেসুতের বড়ছেলের মৃতদেহ

গোয়া: যৌন ব্যবসায়ও আধার কার্ড

ট্রাম্প শিবিরের হাজার হাজার ইমেইল মুয়েলারের হাতে

পেট্রলবোমায় দুজন দগ্ধ

যেভাবে উগ্রপন্থায় দীক্ষিত হন আকায়েদ উল্লাহ

ঝন্টুর পেশা রাজনীতি

রিয়াল মাদ্রিদই চ্যাম্পিয়ন

‘জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা অবশ্যই বাতিল করতে হবে’

উড়ে গেল টটেনহ্যমও

ছায়েদুল হকের জানাজা সম্পন্ন

ভারতে 'ছয় মাসের মধ্যে' ধর্ষকদের ফাঁসির দাবি করলেন নারী অধিকারকর্মী

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী শ্রমিক পাচার চক্র, কুয়ালালামপুর বিমানবন্দর থেকে ৬০০ কর্মকর্তা বদলি

জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে নোটিশ জারিতে ইন্টারপোলের অস্বীকৃতি

ব্রাজিল ফুটবলের প্রধান ৯০ দিন নিষিদ্ধ

ঝিকরগাছায় ছাত্রলীগ কর্মী খুন, সড়ক অবরোধ