উত্তর কোরিয়াকে হুঁশিয়ারি ট্রাম্পের

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১২ আগস্ট ২০১৭, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:৪১
যুক্তরাষ্ট্রের ভূখণ্ড গুয়ামে কোনো ঘটনা ঘটলে বড় রকম সমস্যার মুখে পড়তে হবে উত্তর কোরিয়াকে। এ হুঁশিয়ারি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। বর্তমানে তিনি অবস্থান করছেন নিউ জার্সিতে বেডমিনস্টারে অবস্থিত তার গলফ অবকাশ যাপন কেন্দ্রে। সেখান থেকে তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন গুয়াম খুব নিরাপদে থাকবে। উত্তর কোরিয়া যত কঠোর হবে তাদের বিরুদ্ধে তত কঠোর আরো অবরোধী দিতে পারে যুক্তরাষ্ট্র- এমন হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন তিনি। পরে চীনের প্রেসিডেন্ট সি জিনপিংয়ের সঙ্গে কথা বলেন ট্রাম্প।
চীনা টেলিভিশনের মতে, ওই ফোনকলে শান্তিপূর্ণ সমাধানের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্ব দিয়েছে চীন।  সি জিনপিং সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোকে সংযম চর্চার আহ্বান জানিয়েছেন। আহ্বান জানিয়েছেন উত্তেজনা বৃদ্ধি করে এমন বক্তব্য ও কর্মকাণ্ড না চালাতে। হোয়াইট হাউজ থেকে বলা হয়েছে, ওই ফোনকলে দু’পক্ষই সম্মত হয়েছে যে, উত্তর কোরিয়াকে অবশ্যই প্ররোচনা ও উস্কানিমুলক আচরণ বন্ধ করতে হবে। এর আগে ট্রাম্প বলেছেন, এমন উদ্যোগ কাজ করবে। গত কয়েকদিন ধরে যুদ্ধবাজ নেতাদের মতো বাকযুদ্ধ চালানোর পর কণ্ঠ নরম করে এ কথা বলেছেন ট্রাম্প। হোয়াইট হাউজ থেকে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের চেয়ে অন্য কেউ শান্তিপূর্ণ সমাধানকে বেশি ভালবাসেন না। তবে এর আগে শুক্রবার কিন্তু প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প একধাপ এগিয়ে গিয়েছিলেন। বলেছিলেন, উত্তর কোরিয়ার বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী সরঞ্জাম নিয়ে প্রস্তুত রয়েছে। প্রয়োজন হলেই প্রয়োগ করা হবে। আশা করা যায়, কিম জং উন অন্যপথ বেছে নেবেন।  প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে পিয়ংইয়ং অভিযোগ এনে বলেছে, তিনি কোরিয়া উপদ্বীপ অঞ্চলকে পারমাণবিক যুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছেন। এ অভিযোগের জবাবে ট্রাম্প ওই মন্তব্য করেন। গত কয়েকদিন ধরেই আলোচনায় আছে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার হুমকি। তারা হুমকি দিয়েছে, এক সপ্তাহের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের অধীনে দ্বীপ গুয়ামের কাছে চারটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাবে উত্তর কোরিয়া। এ অবস্থায় ওয়াশিংটন ও পিয়ংইয়ংয়ের মধ্যে যে উত্তেজনাপূর্ণ বাকযুদ্ধ হচ্ছে তা নিয়ে ‘অত্যন্ত উদ্বেগ’ প্রকাশ করেছে মস্কো। রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ এ অঞ্চলে সামরিক যুদ্ধের ঝুঁকিকে অত্যন্ত বেশি বলে অভিহিত করেছেন। একই সঙ্গে চীনকে সঙ্গে নিয়ে তারা এ উত্তেজনা প্রশমনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। ওদিকে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মারকেল বলেছেন, সামরিক হামলা কোনো সমস্যার সমাধান দেবে না। বাকযুদ্ধও কোনো যথার্থ উত্তর নয়। এটা ভুল।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

অস্ট্রেলিয়া গেলেন প্রধান বিচারপতির স্ত্রী সুষমা সিনহা

মৌলভীবাজারে শোকের মাতম

বিয়ানীবাজারের খালেদের দুঃসহ ইউরোপ যাত্রা

১১ দফা প্রস্তাব নিয়ে ইসিতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ

‘প্রধান বিচারপতি ফিরে এসেই কাজে যোগ দিতে পারবেন’

খালেদা জিয়া ফিরছেন আজ

ব্লু হোয়েলের ফাঁদে আরো এক কিশোর

তিন ইস্যু গুরুত্ব পাবে সুষমার সফরে

প্রি-পেইডে সুবিধা বেশি আগ্রহ কম

ভারত থেকে ৩৭৮ কোটি টাকার চাল কিনছে সরকার

ছাত্রলীগ কর্মী মিয়াদ খুন নিয়ে উত্তপ্ত সিলেট

ইস্যু হতে পারে সমস্যার পাহাড়

দ্বিতীয়বার সংসার না করায় খুন

যেভাবে পালিয়ে আসছে রোহিঙ্গারা, ড্রোন থেকে নেয়া ভিডিও

সিলেটে কাল থেকে পরিবহন ধর্মঘট

ফুটবলকে বিদায় জানালেন কাকা