রহমতউল্লাহকে রেখে সমঝোতা নাকচ রশিদের

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১২ আগস্ট ২০১৭, শনিবার
হকি ফেডারেশনের আসন্ন নির্বাচনে সমঝোতা চান বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তবে পাপন সমঝোতা চান খাজা রহমতউল্লাহকে সামনে রেখে। বিসিবি সভাপতির এ প্রস্তাব মানতে নারাজ আবদুর রশিদ শিকদার। বুধবার পাপনের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে রশিদ শিকদার জানান, ‘আমি নির্বাচন করব। ক্লাবগুলো আমার সঙ্গে আছে। আমরা বিসিবি সভাপতিকে জানিয়ে এসেছি, এর আগে সাধারণ সম্পাদক থাকা অবস্থায় খাজা রহমতউল্লাহ সবার সঙ্গে মানিয়ে কাজ করতে পারেননি। তার রানিংমেটরাও এখন তার সঙ্গে নেই’-বলেন তিনি। এদিকে মনোনয়নপত্র বিতরণের প্রথম দিন ২০ জন কাউন্সিলর ফরম সংগ্রহ করেছেন। এর মধ্যে দুইজন নিয়েছেন দুটি করে ফরম।
বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচনে একটি সমঝোতার প্যানেল চেয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি এবং সরকারদলীয় সংসদ সদস্য নাজমুল হাসান পাপন। গত বুধবার তিনি নির্বাচন নিয়ে আলোচনায় বসেছিলেন সম্ভাব্য দুই সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী আবদুর রশিদ শিকদার ও খাজা রহমতউল্লাহর সঙ্গে। এরপর আলাদাভাবে ঢাকা ক্লাবে পাপন আলোচনা করেন রহমতউল্লাহ ও তার অনুসারীদের নিয়ে। বৃহস্পতিবার ধানমন্ডিস্থ বেক্সিমকো অফিসে আব্দুর রশিদ শিকদার ও তার সমর্থিত ক্লাব প্রতিনিধিদের সঙ্গে বসেছিলেন তিনি। আবদুর রশিদ শিকদার জানান, ‘বিসিবি সভাপতি ক্লাব প্রতিনিধিদের বলেছেন, তার একটা চিন্তাভাবনা আছে। তিনি চান, আমরা যাতে সমঝোতার মাধ্যমে নির্বাচন করি। তবে আমরা তাকে বলেছি, খাজা রহমতউল্লাহকে সাধারণ সম্পাদক রেখে কোনো সমঝোতা আমরা মেনে নেব না। প্রয়োজনে আপনি আমাদের বাইরে রাখতে পারেন।’ সভায় উপস্থিত একাধিক সূত্রমতে, বিসিবি সভাপতি আবদুর রশিদ ও তার সঙ্গে যাওয়া ক্লাব কর্মকর্তাদের বুঝিয়ে দিয়েছেন, রহমতউল্লাহকে সাধারণ সম্পাদক রেখেই একটা সমঝোতার প্যানেল করতে আগ্রহী তিনি। শেষ পর্যন্ত যদি সমঝোতা না হয় তাহলে কী হবে? এ প্রশ্নের জবাবে আবদুর রশিদ শিকদার ও তার সমর্থকদের জানিয়ে রেখেছেন নাজমুল হাসান পাপন। তিনি বলেছেন, ‘আপনারা সমঝোতা করতে না পারলে বা না মানলে স্বাভাবিকভাবেই ভোটের লড়াই হবে। আর তখন আমাকে একটি পক্ষ নিতেই হবে।’ এদিকে নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করেছেন বাকিরা। জাতীয় দলের সঙ্গে চীন সফরে থাকা ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আবদুস সাদেক। সেখান থেকেই অনলাইনে মনোনয়ন ফরম ক্রয় করেছেন তিনি। চীন সফররত জাতীয় হকি দলের সহকারী কোচ আলমগীর আলমও মনোনয়নপত্র কিনেছেন একইভাবে। বৃহস্পতিবার ছিল হকি ফেডারেশনের নির্বাচনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহের প্রথম দিন। আগামীকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত নির্বাচনে অংশগ্রহণে আগ্রহীরা মনোনয়নপত্র কিনতে পারবেন।
অনলাইনে মনোনয়ন ফরম বিক্রির ব্যাপারে হকি ফেডারেশনের নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের আইন কর্মকর্তা কবিরুল হাসান জানান ‘হকির নির্বাচনে বিদেশে অবস্থানরত কাউন্সিলরদের নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য অনলাইনে মনোনয়নপত্র ক্রয় এবং আগাম ভোট প্রদানের সুবিধা রেখেছি আমরা। ইতোমধ্যে দুইজন মনোয়নপত্র সংগ্রহে ওই সুবিধা নিয়েছেন। ২৭শে আগস্ট নির্বাচনের সময় কোনো ভোটার দেশের বাইরে থাকলে তারা আগাম ভোট দিতে পারবেন। তবে সবার জন্য এ সুযোগ নয়। যারা পবিত্র হজের জন্য এবং সরকারি ও হকির কাজে দেশের বাইরে যাবেন তারা এ সুযোগ পাবেন। ২৩শে আগস্ট চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পর থেকে ২৭শে আগস্টের মধ্যে যারা বিদেশ যাবেন তারা আগাম ভোট দিয়ে যেতে পারবেন।’
মনোনয়নপত্র দাখিল ১৭ই আগস্ট সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ভোট ২৭শে আগস্ট। ৮৫ জন কাউন্সিলর হকি ফেডারেশনের নির্বাচনে ভোট প্রদান করবেন। খসড়া কাউন্সিলর তালিকায় সংখ্যা ছিল ৮৬। রংপুর বিভাগের কাউন্সিলর তোফাজ্জল হোসেনের বিরুদ্ধে আপত্তি ওঠায় তার নাম বাদ পড়েছে। নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার কবিরুল হাসান জানান, তোফাজ্জল হোসেন রংপুর বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ পরিষদের সদস্য না হওয়ায় তার কাউন্সিলরশিপ বাতিল হয়েছে।


 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন