দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা

বাংলারজমিন

শরীয়তপুর প্রতিনিধি | ১২ আগস্ট ২০১৭, শনিবার
নিহত কাজী সোহেল রানা
বাংলাদেশি এক ব্যবসায়ীকে দক্ষিণ আফ্রিকায় সন্ত্রাসীরা গুলি করে হত্যা করেছে বলে জানিয়েছে নিহতের স্বজনেরা। প্রবাসীর নাম কাজী সোহেল রানা। তার বাড়ি শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার মহিষার গ্রামে। তিনি এক সন্তানের জনক।
নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, দক্ষিণ আফ্রিকার ক্যাপটাউন রাইলেন শহরে বাংলাদেশি এক ব্যবসায়ী কাজী সোহেল রানা বৃহস্পতিবার বিকাল অনুমান ৫টায় তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ঢোকার সময় সন্ত্রাসীরা রাস্তা থেকে তাকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে। ঐ ছোড়া দুই রাউন্ড গুলি তার মাথা ও পেটে বিদ্ধ হয়। সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে যায়।
এ সময় সন্ত্রাসীরা গুলি করে দ্রুত পালিয়ে যায়। সেখানে অবস্থানরত বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা তাকে উদ্ধার করে নিকটস্থ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।
বর্তমানে তার লাশ দক্ষিণ আফ্রিকার একটি হিমাগারে রাখা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে খুব শিগগিরই লাশ দেশে ফেরত আনা হবে বলে স্বজনেরা জানিয়েছে। তার গ্রামের বাড়ি শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার মহিষার গ্রামে। তার বাবা হাফেজ আঃ জলিল কাজী, মাতা  ছালেহা বেগম। নিহত ব্যবসায়ী দীর্ঘ ১৫-১৬ বছর যাবৎ দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্যবসা বাণিজ্য করে আসছেন। সেখানে তিনি স্ত্রী নিছা আকতার ও ছেলে তাবিজ কাজীকে সঙ্গে নিয়ে বসবাস করতেন।
বর্তমানে তার স্ত্রী পুত্র সেখানেই আছেন। নিহত সোহেল রানার মৃত্যুর সংবাদ দেশে পৌঁছানোর পর তার আত্মীয়স্বজনরা কান্নায় ভেঙে পড়ে। পাড়া প্রতিবেশী শত শত লোক গ্রামের বাড়িতে খবর শোনার জন্য ভিড় জমায়। নিহতের মা ছালেহা বেগম ছেলের নিহতের সংবাদ শোনার পর জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।
একটু জ্ঞান ফিরলে শুধু বলে আমার সোহেল কি কইয়া গেলি বাবা।  কারো সান্ত্বনায় তার কান্না থামছে না। কাঁদতে কাঁদতে সে বার বার মূর্ছা যাচ্ছে। নিহতের বাবা হাজী আঃ জলিল কাজী বলেন, আমার ছেলে দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্যবসা করতো। সে প্রায় ১৫-১৬ বছর যাবৎ সেখানে থাকে। বৃহস্পতিবার বিকাল অনুমান ৫টায় সে দোকানে ঢোকার সময় সন্ত্রাসীরা তাকে গুলি করে হত্যা করেছে।
মা ছালেহা বেগম শুধু বিলাপ করে বলছে আমার সোহেল কই। আমার সোহেলকে এনে দেও।
ভেদরগঞ্জ থানার ওসি মো. মেহেদী হাসান বলেন, বিদেশে কেউ মারা গেছে এখনো আমার কাছে কোনো খবর আসেনি। আসলে প্রয়োজনীয় কার্যকরী ব্যবস্থা নিবো।


 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন