বাহুবলে ইমাম পরিবর্তন নিয়ে বিরোধ দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত অর্ধশত

বাংলারজমিন

বাহুবল (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি | ১২ আগস্ট ২০১৭, শনিবার
বাহুবলে মসজিদের কমিটি ও ইমাম পরিবর্তনের জের ধরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে শিশু ও মহিলাসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। আহতদের মাঝে গুরুতর অবস্থায় ২ জনকে হবিগঞ্জ ও ৭ জনকে বাহুবল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যান্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে। দু’ঘণ্টা স্থায়ী সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ১০ রাউন্ড শটগানের গুলি ব্যবহার করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বাদ জুমা উপজেলার মুগকান্দি গ্রামে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল উপজেলার সাতকাপন ইউনিয়নের মুগকান্দি জামে মসজিদের কমিটি গঠন ও ইমাম পরিবর্তনকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষে বিরোধ চলছিল। এক পক্ষ বর্তমান ইমান ফরিদ আখঞ্জীর পরিবর্তন চায়, অপর পক্ষ ওই ইমামের পক্ষে অবস্থান নেয়। এ অবস্থায় গতকাল জুমার নামাজে সাতকাপন ইউপি চেয়ারম্যান মুগকান্দি গ্রামের আবদাল মিয়া আখঞ্জী গ্রুপের সোহেল মিয়ার সঙ্গে একই গ্রামের শফিক মাস্টারের বাকবিতণ্ডা হয়। এ জের ধরে বাদ জুমা উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে বাহুবল-নবীগঞ্জ সার্কেলের দায়িত্বপ্রাপ্ত সিনিয়র এসএসপি রাসেলুর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশ সংঘর্ষস্থলে পৌঁছে ১০ রাউন্ড শটগানের গুলি ছুড়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনে। প্রায় দু’ঘণ্টা স্থায়ী সংঘর্ষে উভয় পক্ষে অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়। আহতদের মাঝে মৃত মুসলিম মিয়ার পুত্র শফিক মিয়া (৩৫) ও আরজু মিয়ার পুত্র দানিছ মিয়া (৪৫)কে প্রথমে বাহুবল ও পরে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে এবং হবিবুর রহমান (১০), আলমগীর (৩২), মুকিত মিয়া (৩৬), খুশবানু (৬৫), নূর ইসলাম (২৫), আব্দুল হাই (৩০) ও আব্দুল মালেক (৩৪) কে বাহুবল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যান্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে বাহুবল-নবীগঞ্জ সার্কেলের সিনিয়র এএসপি রাসেলুর রহমান বলেন, সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে ১০ রাউন্ড শটগানের গুলি ব্যবহার করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে।


 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন