উত্তর কোরিয়াকে ভয়াবহ পরিণতির হুশিয়ারি ট্রাম্পের

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১১ আগস্ট ২০১৭, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:৪৮
যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার নেতাদের মধ্যে চলছে অনবরত হুমকি আর হুশিয়ারি প্রদানের ঘটনা। অবস্থা এখন এমন যে, ইট মারলে পাটকেল খেতেই হবে। হুমকি দিলে জবাবে মিলবে পাল্টা হুশিয়ারি। বিশেষজ্ঞদের কেউ কেউ বলছে যেকোন সময় লেগে যেতে পারে যুদ্ধ। দুই দেশের মধ্যে সৃষ্ট রাজনৈতিক উত্তেজনায় জড়িয়ে পড়েছে, চীন, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান, এমনকি অস্ট্রেলিয়াও। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রা¤প সতর্ক করে বলেছেন উত্তর কোরিয়া যদি যুক্তরাষ্ট্রের কোন ক্ষতি করে তাহলে খুবই শঙ্কিত থাকা উচিত দেশটির। তিনি বলেছেন, ‘উত্তর কোরিয়া যদি বুঝেশুনে কাজ না করে, তাহলে এমন বিপদে পড়বে, যেরকম বিপদে খুব কম দেশই পড়েছে।’ উত্তর কোরিয়া যুক্তরাষ্ট্রের গুয়াম অঞ্চলের মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে চারটি পারমাণবিক ক্ষেপনাস্ত্র হামলা চালানোর পরিকল্পনা করছে এমন বক্তব্য প্রকাশের পরেই এ সতর্কবানী দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। অন্যদিকে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস সতর্ক করে বলেন, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে একটি যুদ্ধের পরিনতি হবে ‘বিপর্যয়কর’। তিনি আরও জানান, এ বিষয়ে কূটনৈতিক সমাধানের দিকে অগ্রগতি সাধিত হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘আমেরিকান প্রচেষ্টার অগ্রভাগে রয়েছে কূটনৈতিক তৎপরতা। আর আমরা কুটনীতিক সমাধান বের করার দিকে এগিয়েও যাচ্ছি।’ এদিকে, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের ওপর হামলা চালালে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে যেতে প্রস্তুত তার দেশ। তিনি বলেন, ‘যদি যুক্তরাষ্ট্রের ওপর কোন হামলা হয় তাহলে, আনজুস চুক্তি রক্ষার্থে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তায় এগিয়ে আসবে অস্ট্রেলিয়া। কারণ আমাদের (অস্ট্রেলিয়া) ওপর হামলা হলে আমেরিকাও আমাদের সাহায্যে এগিয়ে আসতো।’ উল্লেখ্য, আনজুস চুক্তি হচ্ছে, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে করা এক ধরণের নিরাপত্তা বিষয়ক চুক্তি। আলাদাভাবে যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে, প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলগুলোতে সামরিক ব্যাপারে এক অপরকে সহযোগিতা প্রদানের চুক্তিও এটি। এমতাবস্থায়, যুক্তরাষ্ট্র-উত্তর কোরিয়া পরিস্থিতি কোন দিকে মোড় নিবে তা অনেকটাই অনিশ্চিত হয়ে দাঁড়িয়েছে। 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন