নাফ নদে মাছ ধরা নিষিদ্ধের খবরে জেলে পরিবারে হতাশা

বাংলারজমিন

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি | ১৮ জুলাই ২০১৭, মঙ্গলবার
: ‘ইয়াবা মাদক পাচার ঠেকাতে নাফ নদে মাছ শিকার বন্ধ ও নিষিদ্ধ করে দেয়ার চিন্তা ভাবনা চলছে’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন মন্তব্যে সীমান্ত উপজেলা টেকনাফের শত শত জেলের পরিবারে দেখা দিয়েছে নির্মম হতাশা। মুহূর্তে খবরটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন অনলাইনে ভাইরাল হয়ে ছড়িয়ে পড়ে। এতে টেকনাফের সচেতন ব্যক্তি তাদের ফেসবুক স্ট্যাটাসে বিভিন্ন ধরনের ইতিবাচক ও নেতিবাচক মন্তব্য করেছেন। তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, বাংলাদেশে ইয়াবার আবির্ভাব ঘটে ১৯৯৭ সালে। পরে ২০০০ সাল থেকে বাংলাদেশের কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে মিয়ানমার থেকে ইয়াবা আসতে শুরু করে। এই ইয়াবা ট্যাবলেটের দাম তুলনামূলকভাবে বেশি হবার কারণে উচ্চবিত্তদের মাঝেই এটি মূলত বিস্তার লাভ করে। বর্তমানে ইয়াবা সহজলভ্য হওয়ায় নিম্নবিত্ত ও হতদরিদ্ররাও আসক্ত হয়ে পড়েছে। ফলে দিন দিন যুব সমাজ অবক্ষয়ের দিকে ধাবিত হচ্ছে। পরিবার ও সমাজে বৃদ্ধি পাচ্ছে বিভিন্ন প্রকার বিশৃঙ্খলা।  
দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে মরণ নেশা ইয়াবার শিকার হয়ে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে যুব সমাজ। প্রতিনিয়ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে প্রায়ই ধরা পড়ছে ইয়াবার বিপুল পরিমাণ চালান ও ইয়াবা পাচারকারী। কিন্তু ইয়াবা প্রতিরোধে কোনো প্রকার উন্নতি হচ্ছে না। বারবার কোন অদৃশ্যশক্তির কারণে রাঘব বোয়ালরা ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে যাচ্ছে। প্রতিদিন পার্শ্ববর্তী দেশ মিয়ানমার থেকে পাচার হয়ে আসছে বস্তাবর্তী লাখ লাখ পিস ইয়াবা।
বেশির ভাগ ইয়াবা পাচার হয়ে আসছে নৌপথ দিয়ে। এর মধ্যে টেকনাফের নাফ নদী হচ্ছে অন্যতম। দেশে ইয়াবা অনুপ্রবেশের মূল পয়েন্ট হলো কক্সবাজার জেলার টেকনাফ সীমান্ত এলাকা। তবে সম্প্রতি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা বেশি হওয়ায় পাচারকারীরা রুট পরিবর্তন করে এখন সাগর পথে পাচার করছে বড় বড় ইয়াবা চালান।
সূত্রে আরো জানা যায়, ইয়াবা পাচারে সব চেয়ে বেশি ব্যবহার হয় বঙ্গোপসাগরের মাছধরার ট্রলার ও নাফ নদীতে জেলেদের ব্যবহার করা ছোট ছোট নৌকাগুলো। সেই সূত্র ধরে ইয়াবা পাচার প্রতিরোধ করতে সরকার টেকনাফের নাফ নদীতে জেলেদের মাছ ধরা নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের ইঙ্গিত করেছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল গত ১৫ই জুন শনিবার চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় র‌্যাব-৭ কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে বলেন, ‘খুব শিগগিরই বাংলাদেশ ও মিয়ানমার সীমান্ত এলাকার টেকনাফের নাফ নদে মাছ শিকার বন্ধের ঘোষণা আসতে পারে’। তাঁর এমন মন্তব্য টেকনাফের জেলে পরিবারে নেমে এসেছে চরম হতাশা। জাদীমুরা এলাকার জেলে নুর মোহাম্মদ জানান, ইয়াবার বড় বড় চালান আটক হয়েছে চট্টগ্রামে। যা বঙ্গোপসাগর দিয়ে সরাসরি চলে যাচ্ছে। অথচ আমাদের মতো জেলেদের পেশা বন্ধ করে দিতে উঠেপড়ে লেগেছে কেন। মাছ শিকার ছাড়া আমাদের তো আর কোনো পেশা নেই। নদীতে মাছ শিকার না করলে পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করা ছাড়া আর কোনো পথ নেই।
এ ছাড়াও অনেক জেলে পরিবার বলাবলি শুরু করেছে ‘নাফ নদীতে মাছ শিকার বন্ধ হয়ে গেলে আমরা বউ, বাচ্চা নিয়ে কীভাবে সংসার চালাবো’। আবার কেউ কেউ বলছে ‘নাফ নদীতে মাছ শিকার বন্ধ করার আগে আমাদের জেলে পরিবারের জন্য নতুন কর্মস্থল ঠিক করে দিতে হবে’।
টেকনাফের সুশীল সমাজের ব্যক্তিরা অভিমত প্রকাশ করে বলেন, ইয়াবা পাচার প্রতিরোধে শুধু নাফ নদীতে মাছ শিকার বন্ধ করলে হবে না, কারণ  ইয়াবার সর্ববৃহৎ চালানগুলো পাচার হচ্ছে গভীর বঙ্গোপসাগর দিয়ে। তাদের দাবি মিয়ানমারের ইয়াবা পাচার বন্ধ করতে হলে প্রথম বাংলাদেশ-মিয়ানমার অ-রক্ষিত সীমান্ত এলাকাটিকে কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে রক্ষিত করার ব্যবস্থা হাতে নিতে হবে। পাশাপাশি মিয়ানমার থেকে সাগর পথ পাড়ি দিয়ে আসা পণ্যবাহী বড় বড় ট্রলারগুলোর প্রতি নজরদারি বাড়াতে হবে। কারণ বৈধ ব্যবসার আড়ালে মিয়ানমারের লাখ লাখ ইয়াবা পাচার করছে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী।
এদিকে ‘মিয়ানমারের বিভিন্ন সীমান্তে ইয়াবা তৈরির ৩৭টি কারখানা রয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্রে প্রকাশ পেয়েছে। এসব কারখানায় উৎপাদিত বেশির ভাগ ইয়াবা পাচার হচ্ছে টেকনাফ, উখিয়া ও নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে। এখন সমুদ্র পথেও বিপুল পরিমাণ ইয়াবা পাচার হচ্ছে। ইয়াবা কারখানাগুলো বন্ধ করার জন্য মিয়ানমারকে চাপ দিয়ে আসছে এবং কারখানাগুলোর তালিকা মিয়ানমারের নিকট হস্তান্তরও করেছে।
 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

শচীন যা পরেননি পৃথ্বি তা-ই পারলেন

টেকনাফে ৫ কোটি ৭০লক্ষ টাকার ইয়াবা উদ্ধার

‘নিজ অবস্থান থেকে আইন মানলে দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণে আসবে’

চাল আমদানি করছেন না ব্যবসায়ীরা

তারেকের গ্রেপ্তার সংক্রান্ত প্রতিবেদন ৩১শে ডিসেম্বর

প্লেবয় মডেল হারতে’র ‘মজা’

আদালতে হাজিরা দিলেন নওয়াজ শরীফ

ইরাকে আগ্রাসনের হুমকি এরদোগানের

এতিম রোহিঙ্গা শিশুদের জন্য আলাদা ব্যবস্থা করা হচ্ছে

মাঝারী ধরনের ভারী বর্ষণের আশঙ্কা

মিয়ানমার ইস্যুতে বৃহস্পতিবার নিরাপত্তা পরিষদে বৈঠক

বিসিবির কার্যনির্বাহী কমিটির কার্যক্রম নিয়ে রুল, সভায় বাধা নেই

মারকেলের নতুন মিশনের কাজ শুরু

বিস্ময়কর উত্থান ঘটলেও জার্মানিতে এএফডি’র নেতা কে!

‘এখন শুধুমাত্র ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবছি’

মার্কিন যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করার হুমকি উ.কোরিয়ার