চিকুনগুনিয়া মহামারী

সরকার ও দুই মেয়র দায় এড়াতে পারেন না: রিজভী

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ জুলাই ২০১৭, সোমবার
সরকার ও ঢাকার দুই মেয়র মশাবাহিত রোগ চিকুনগুনিয়া মহামারী আকার ধারণ করার দায় এড়াতে পারেন না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ। তিনি বলেছেন, রাজধানীতে মশার ব্যাপকতা বেড়ে যাওয়ায় চিকুনগুনিয়া এখন মহামারী আকার ধারণ করেছে। কিন্তু মশকনিধনে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে শত শত কোটি টাকা ব্যয়ের কথা বলা হয়েছে। এত টাকা ব্যয় হলেও ন্যূনতম মশক নিধন হয়নি, তাহলে টাকাগুলো গেল কোথায়? মশকনিধনে কার্যকর পদক্ষেপ না নিয়ে উল্টো লাগামহীন কথাবার্তা বলা হচ্ছে। চিকুনগুনিয়া মহামারী আকার ধারণ করায় দেশের জনস্বাস্থ্য এখন চরম হুমকির মুখে। সরকার এবং ঢাকার দুই মেয়র এর দায় এড়াতে পারেন না।
গতকাল দলের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, চিকুনগুনিয়ার মতো মহামারীর আগ্রাসন প্রতিরোধে সরকারের প্রস্তুতি দূরে থাক উল্টো সরকার ও সরকারের প্রতিনিধিরা জনগণের দুঃখ-কষ্ট নিয়ে উপহাস করছে। রিজভী বলেন, ঢাকা শহরে বৃষ্টির মওসুমেই শুরু হয় খোঁড়াখুঁড়ি, বৃষ্টির পানিতে রাস্তাঘাটগুলো খাল-বিলে পরিণত হয়। চরম বিপর্যয়ের মধ্যে পড়ে মানুষের যাতায়াত। ফলে নগরজীবন ভয়াবহ দুর্বিষহ হয়ে ওঠে। এর দায় কোনোক্রমেই সরকার এড়াতে পারে না। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, সারা দেশের গ্রাম-গঞ্জে, মফস্বল শহরে চলছে ভয়াবহ লোডশেডিং। এমনকি রাজধানীও এর ব্যতিক্রম নয়। তারপরও বিদ্যুতের উন্নতি নিয়ে সরকার জনগণকে প্রতিনিয়ত শুনিয়ে যাচ্ছে সন্তুষ্টির কথা। আওয়ামী লীগের সত্তা ও স্বরূপ মিথ্যা দর্শনের ওপর প্রতিষ্ঠিত। তিনি বলেন, সরকারের ভ্রান্তনীতির কারণে স্বল্পব্যয়ে মধ্যমেয়াদি বিদ্যুৎ প্রকল্পগুলো ব্যর্থ হয়েছে। তাই এখন তারা রেন্টাল-কুইক রেন্টালের উপর প্রচণ্ডভাবে নির্ভরশীল। সরকারের এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে সুবিধাভোগী একশ্রেণির উদ্যোক্তা বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে এবং নিচ্ছে। গণমাধ্যমের খবর, গত ৯ বছরে বিদ্যুতের নামে উৎপাদন ছাড়াই প্রণোদনা হিসেবে সরকারের কাছ থেকে ৩৯,২২৬ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে প্রকল্পের মালিকেরা। রিজভী বলেন, রেন্টাল ও কুইক রেন্টালে বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্পের নামে দেশে হরিলুট চলছে। সর্বত্রই আলোচনা হচ্ছে রেন্টাল ও কুইক রেন্টালের নামে যারা হাজার হাজার কোটি টাকা লুট করছে তারা সরকারেরই ঘনিষ্ঠ লোক ও শীর্ষ নেতাদের আত্মীয়স্বজন। লুটের টাকার ভাগ জায়গা মতো পৌঁছায়। অবাধ দুর্নীতি আর লুটপাট জারি রাখতে এরা ক্ষমতার পর্বতচূড়ায় উঠে এখন আর নামতে পারছে না। রিজভী বলেন, উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢল ও বৃষ্টিতে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে যে ভয়াবহ বন্যা হচ্ছে তাতে খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির অভাবে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছে বানভাসি মানুষ। সরকারের মন্ত্রীরা ত্রাণ সহায়তা নিয়ে পাড়া-জাগানো চিৎকার করলেও বন্যাদুর্গতদের কাছে এখনো সরকারি ত্রাণ পৌঁছায়নি। গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে- বন্যা আক্রান্ত এলাকায় যতটুকু সরকারি ত্রাণ গেছে তা স্থানীয় আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ও তাদের আত্মীয়স্বজনরাই লুটে নিচ্ছে, গরিব-অসহায় ও ক্ষুধার্ত মানুষেরা কোনো ত্রাণ পাচ্ছে না। তিনি বলেন, বিএনপির পক্ষ থেকে আমরা বারবার বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আহ্বান জানিয়ে এসেছি। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বিএনপি নেতাকর্মী ও দেশের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোকে বানভাসি মানুষের পাশে দাঁড়াতে আহ্বান জানিয়েছেন। ইতিমধ্যে স্থানীয় বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের  নেতাকর্মীরা বন্যাদুর্গতদেরকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করতে শুরু করেছে এবং বিএনপির পক্ষ থেকে এই সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতাতে আহত ডিবি পুলিশ

প্রতিবেশীদের মধ্যে সুসম্পর্ক থাকা জরুরীঃ বাংলাদেশকে মিয়ানমার

তারেক রহমানের জন্মদিন পালন করবে বিএনপি

রোহিঙ্গা শিবিরে যেতে চান প্রণব মূখার্জি

তালাকপ্রাপ্ত নারীকে অপহরণের পর গণধর্ষণ

আরো ১০ দিন বন্ধ থাকবে লেকহেড স্কুল

জাতিসংঘকে দিয়ে রোহিঙ্গা সঙ্কটের সমাধান হবে নাঃ চীন

ম্যনইউয়ের টানা ৩৮

রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সংলাপে সহায়তা করতে আগ্রহী চীন

জল্পনার অবসান ঘটালেন জ্যোতি

চীনের বেইজিংয়ে অগ্নিকাণ্ড, নিহত ১৯ আহত ৮

ভাইস চেয়ারম্যানদের সঙ্গে বৈঠক করলেন খালেদা জিয়া

চার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এখন বাংলাদেশে

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মার্কিন প্রতিনিধি দল

সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত এমপি গোলাম মোস্তফা আহমেদ

বিশ্ব সুন্দরীর মুকুট মানসী চিল্লার-এর