বিপাকে নওয়াজ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৬ জুলাই ২০১৭, রবিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৩৬
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ রাজনৈতিক এক উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যে। আগামী শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট তার ভাগ্য নির্ধারণ করবে। পানামাগেট কেলেঙ্কারিতে সুপ্রিম কোর্ট গঠিত জয়েন্ট ইনভেস্টিগেশন টিমের (জেআইটি) রিপোর্ট জমা দেয়ার পর তা আরো ঘোলাটে হয়ে পড়েছে। ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে, জ্ঞাত আয়ের অতিরিক্ত সম্পদের মালিক নওয়াজ শরীফ ও তার পরিবারের সদস্যরা। এক্ষেত্রে অসদুপায় অবলম্বন করা হয়েছে। ফলে সুপ্রিম কোর্ট যদি শুক্রবার তাকে অযোগ্য ঘোষণা করে তাহলে এক অনিশ্চয়তা ভর করবে পাকিস্তানে। ঠিক এমন সময়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুমের সঙ্গে জরুরি টেলিফোন যোগাযোগের চেষ্টা করছেন নওয়াজ শরীফ। এ জন্য পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইসলামাবাদে অবস্থিত সংযুক্ত আরব আমিরাতের দূতাবাসে একটি চিঠি পাঠিয়েছে বুধবার। ওই চিঠির একটি কপি পেয়েছে পাকিস্তানের ডন পত্রিকা। ওই চিঠিতে লেখা হয়েছে, ‘টেলিফোনে জরুরি ভিত্তিতে শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুমের সঙ্গে কথা বলতে চান প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ’। চিঠিতে আরো উল্লেখ করা হয়েছে যে, এ বিষয়ে আবুধাবীতে অবস্থিত পাকিস্তানের দূতাবাস সংযুক্ত আরব আমিরাতের কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এরই মধ্যে যোগাযোগ করেছে।
 বিশ্বাসযোগ্য একটি সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে ডন নিউজ লিখেছে, সংযুক্ত আরব আমিরাতকে পাঠানো ওই চিঠিটির খসড়া করা হয়েছে ১২ই জুলাই। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক মহাপরিচালক ব্যক্তিগতভাবে গিয়ে বৃহস্পতিবার তা হস্তান্তর করেছেন ওই দেশের রাষ্ট্রদূতের কাছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাকিস্তানের কূটনৈতিক চ্যানেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনে ব্যর্থ হওয়ার পর এই চিঠিটি লেখা হয়েছে। এতে যত দ্রুত সম্ভব টেলিফোন যোগাযোগ, সম্ভব হলে ওইদিনই তা স্থাপনে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দূতাবাসকে অনুরোধ করা হয়। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ রকম কোনো ফোনালাফের খবর পাওয়া যায়নি। কূটনৈতিক এই বার্তা পাঠানো হয়েছে এমন এক সময়ে যখন পানামাগেট কেলেঙ্কারিতে হাবুডুবু খাচ্ছেন নওয়াজ। তার পদত্যাগ দাবিতে ক্ষমতাসীন দলের ওপর তীব্র চাপ সৃষ্টি করেছে বিরোধী দলগুলো। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী এমন দাবিতে মাথা নত করবেন না বলে দৃঢ়তার সঙ্গে জানিয়ে দিয়েছেন।


 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন