যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কাতারের সন্ত্রাসবাদ-বিরোধী চুক্তি ‘যথেষ্ট নয়’: সৌদি জোট

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৩ জুলাই ২০১৭, বৃহস্পতিবার
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন মোকাবিলায় কাতারের করা চুক্তি ‘যথেষ্ট নয়’ মন্তব্য করেছে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোট। চার সদস্যের আরব দেশগুলোর এই জোট মাসখানেক আগে সন্ত্রাসবাদে অর্থায়নের অভিযোগ এনে কাতারের বিরুদ্ধে অবরোধ আরোপ করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চুক্তি করেছে কাতার। কিন্তু সৌদি জোট বলছে, অবরোধ অব্যাহত থাকবে। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।
সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও মিশর বলেছে, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনের উদ্যোগে হওয়া চুক্তিটি ‘যথেষ্ট নয়’। পূর্বে বিভিন্ন চুক্তিভঙ্গের অভিযোগ তুলে ধরে দেশ চারটি বলেছে, কাতার সরকারকে বিশ্বাস করা যায় না।
কাতার এই দেশগুলোর অভিযোগ অস্বীকার করেছে।
কাতারকে দুই সপ্তাহ আগে সংকট নিরসনে ১৩ দফা শর্ত দেয় সৌদি জোট। এই তালিকায় আল জাজিরা টিভি স্টেশন, তুরস্কের একটি সামরিক ঘাঁটি বন্ধ, মুসলিম ব্রাদারহুডের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন এবং ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক অবনমনের শর্ত উল্লেখ ছিল। কিন্তু কাতার এই দাবি পূরণ অসম্ভব বলে দাবি করে। পরে চার দেশের জোট জানায়, কাতারের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও আইনি পদক্ষেপ নেয়া অব্যাহত থাকবে।
মঙ্গলবার কাতারে গিয়ে দেশটির সঙ্গে সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন মোকাবিলায় একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী টিলারসন। মে মাসে সৌদি রাজধানী রিয়াদে আরব ইসলামিক আমেরিকান সম্মেলনে এই চুক্তি প্রস্তাব করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। টিলারসন এ সময় বলেন, এই পরিস্থিতিতে কাতার যেই অবস্থান নিয়েছে তা খুবই যৌক্তিক। কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, পুরো উপসাগরীয় অঞ্চলে কাতারই প্রথম এ চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। যেসব দেশ কাতারের ওপর অবরোধ আরোপ করেছে তাদেরকেও এই চুক্তি স্বাক্ষরের আহ্বান জানান তিনি।
বিবিসি’র খবরে বলা হয়, মুসলিম ব্রাদারহুড ও হামাসের মতো প্রতিবেশী আরব দেশে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবে নিবন্ধিত ইসলামী গোষ্ঠীকে সহায়তা দানের কথা স্বীকার করে কাতার। এই দুই গ্রুপকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী বলে মনে করে না ক্ষুদ্র কিন্তু ধনাঢ্য এই আরব দেশ। কিন্তু জঙ্গিগোষ্ঠী আল কায়েদা বা আইএস’কে সহায়তার অভিযোগ মানতে রাজি নয় কাতার।

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বিশ্ব সুন্দরীর মুকুট মানসী চিল্লার-এর

তবুও কুমিল্লার কাছে হারলো রংপুর

খেলার মাঠে দেয়াল ধসে দর্শক যুবকের মৃত্যু

‘বিচার বিভাগের স্বাধীনতার মৃত্যু ঘটেছে’

কুমারিত্বের দাম ৩ মিলিয়ন ডলার!

ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক আকরাম ৮ দিনের রিমান্ডে

১৫৪ টার্গেট গেইল-ম্যাককালামের

বাড়ি ফিরেছেন নিখোঁজ ব্যবসায়ী অনিরুদ্ধ রায়

শিক্ষার্থীদের মাথা ন্যাড়ার শর্তে এসএসসি’র ফরম পূরণ!

একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ

রাবি অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার

‘সমাবেশে জোর করে লোক আনা হয়েছে’

সমাবেশ মঞ্চে শেখ হাসিনা

যুদ্ধাপরাধের ২৯তম রায়ের আপেক্ষা

সিরিয়া ইস্যুতে আবারো রাশিয়ার ভেটো

ইরাক ও ইসরায়েল সুন্দরী একসঙ্গে সেলফি তুলে বিপাকে