বসিরহাটে সাম্প্রদায়িক হিংসা দমনে সেনা নামানো হয়েছে

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ৫ জুলাই ২০১৭, বুধবার
পশ্চিমবঙ্গের বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী জেলা উত্তর ২৪ পরগণার বসিরহাট মহকুমার বিস্তীর্ণ এলাকায়  তিন দিন ধরে চলা সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষ থামাতে বুধবার রাতে সেনাবাহিনীকে নামানো হয়েছে। নবান্ন সুত্রে বলা হয়েছে, প্রশাসন ও পুলিশ সেনাবাহিনীকে সহায়তা করবে। সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষের তৃতীয় দিন বুধবারও বসিরহাটের নানা জায়গায় ঘরবাড়িতে আগুন লাগনো হযেছে। রাস্তা কেটে দেয়া হয়েছে। অবরোধ করা হযেছে রেল চলাচল।  গোটা বসিরহাট মহকুমাতেই পরিস্থিতি থমথমে। মঙ্গলবার রাতেই কেন্ত্রীয় সরকার চার কোম্পানি বিএসএফ পাঠিয়েছে। উপদ্রুুত এলাকায় বিএসএফ জওয়ানরা টহল দিচ্ছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকে শান্তি বজায় রাখার আহ্বান জানিয়ে প্রচার চলছে। উত্তর ২৪ পরগণার জেলা শাসক জানিয়েছেন, বাদুড়িয়াসহ কয়েকটি অঞ্চলে ৫ জন বা তার বেশি মানুষের জমায়েতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। বসিরহাট ও সংলগ্ন এলাকায় রাতে কার্ফু জারি করা হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে যাতে আর উত্তেজনা ছড়ানো না হয় সেজন্য বসিরহাট মহকুমা ও সংলগ্ন অঞ্চলে নেট যোগাযোগ ব্যবস্থাকে মঙ্গলবার থেকেই বন্ধ করে দেয়া হযেছে। নবান্ন সূত্রের খবর, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক থেকে বসিরহাট মহকুমায়  কী চলছে, সে সম্পর্কে বুধবার মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে খোঁজ নিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। বিশদ রিপোর্ট চেয়ে পাঠানো হয়েছে। সোমবার (৩জুলাই) বিকেল থেকে এই সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষ শুরু হয়েছে। সৌরভ সরকার নামে দ্বাদশ শ্রেণির এক ছাত্র ফেসবুকে কাবাঘর নিয়ে একটি আপত্তিকর ছবি পোস্ট করে। এতে উত্তেজনা ছড়ায়। পুলিশ অবশ্য সোমবারই ওই ছাত্রকে গ্রেপ্তার করেছে। 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন