পশ্চিমবঙ্গে নতুন আইনে প্রথম জরিমানা এক করপোরেট হাসপাতালকে

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২৪ জুন ২০১৭, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৫১
চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগে পশ্চিমবঙ্গে নতুন আইনে গঠিত ‘পশ্চিমবঙ্গ ক্লিনিক্যাল এস্টাব্লিশমেন্ট রেগুলেটরি কমিশন’  তাদের প্রথম রায়ে কলকাতার এক নামী করপোরেট হাসপাতালকে আর্থিক জরিমানা করেছে। শুক্রবার কমিশন চিকিৎসায় গাফিলতির জেরে চার মাসের  শিশু কুহেলী চক্রবর্তীর মৃত্যুর ঘটনায় অ্যাপোলো গ্লেনেগ্লস হাসপাতালকে ৩০ লক্ষ রুপি জরিমানা করেছে । কমিশন মন্তব্য করেছে, পাঁচ মিনিটের  কোলনোস্কোপির জন্য একটি শিশুকে যদি তিন দিনের বেশি হাসপাতালে ফেলে রাখা হয়, সেটাকে কোনও ভাবেই চিকিৎসার ‘স্ট্যান্ডার্ড প্রোটোকল’  বলা যায় না । কমিশন সূত্রে বলা হয়েছে, হাসপাতালে পরিষেবায় ঘাটতি ও গাফিলতি প্রমাণিত হওয়ায় এই জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানার ৩০ লক্ষ রুপি মধ্যে এক সপ্তাহের মধ্যে ১০ লক্ষ রুপি দিতে হবে শিশুটির অভিভাবকদের। বাকি টাকা দিতে হবে তিন সপ্তাহের মধ্যে। অন্যথায় ওই অর্থের উপরে ৯ শতাংশ হারে সুদ দিতে হবে অ্যাপোলোকে। কমিশন  জানিয়েছে, চিকিৎসক মহেশ গোয়েঙ্কা, ভি আর শ্রীবাস্তব এবং সঞ্জয় মহাবরের তরফেও শিশুটির চিকিৎসায় গাফিলতি হয়েছে। খতিয়ে দেখার জন্য চিকিৎসকদের বিষয়টি পাঠানো হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য মেডিক্যাল  কাউন্সিলে। তবে শিশুটির অভিভাবকেরা জানিয়েছেন, তাঁরা অর্থ চান না। দোষী চিকিৎসকদের শাস্তিই তাঁদের একমাত্র কাম্য। হরিদেবপুরের বাসিন্দা  অভিজিৎ চক্রবর্তী ও সালু চক্রবর্তীর মেয়ে কুহেলীকে ১৫ই এপ্রিল ইএসআই জোকা থেকে কোলনোস্কোপির জন্য অ্যাপোলোয় ভর্তি করানো হয়। ১৯শে   এপ্রিল সেখানেই তার মৃত্যু হয়। ২৩শে এপ্রিল কুহেলির বাবা-মা চিকিৎসা  কমিশনে অভিযোগ দায়ের করেন। ৫ই জুন কমিশনের প্রথম শুনানি হয়। কমিশন জানিয়েছে, মেডিক্যাল রেকর্ড থেকে এটা পরিষ্কার যে, ১৫ই এপ্রিল  ভর্তির পর থেকে ১৭ই এপ্রিল সকাল পর্যন্ত শিশুটি অ্যাপোলোয় কার্যত  কোনও চিকিৎসাই পায়নি। বেসরকারী হাসপাতালগুলোর চিকিৎসা গাফিলতি নিয়ে গুরুতর নানা অভিযোগ ওঠার পরিপ্রেক্ষিতে পশ্চিমবঙ্গ সরকার নতুন আইন করে শাস্তির বিধান রেখেছে।
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন