ঝালকাঠিতে চুরির অপবাদে শিশু নির্যাতন আটক দুই

বাংলারজমিন

ঝালকাঠি প্রতিনিধি | ২০ মে ২০১৭, শনিবার
ঝালকাঠির সদর উপজেলার অলিপুর গ্রামের ৯ বছরের এক শিশুকে টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে অমানুষিক মারধর করে পা ভেঙে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে।
অলিপুর গ্রামের মৃত সুলতান মুন্সির ছেলে আলিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র সাগরের বিরুদ্ধে স্থানীয় জামে মসজিদের ঈমাম মোস্তফা কামালের কক্ষ থেকে দু’হাজার টাকা চুরির অভিযোগ করে এ নির্যাতন চালানো হয়। এ ঘটনায় শুক্রবার সকালে হৃদয় কারিগর ও জামাল হাংকে আটক করেছে পুলিশ।
সাগর ও তার মা রাশিদা বেগম জানায়, এলাকার দফাদার সত্তার, সোহরাব, হৃদয়, জামাল, আনোয়ারসহ অন্তত ১৫ জনে মিলে রোববার সন্ধ্যা সাগরকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যায়। এরপরে রাত ১০টা পর্যন্ত মারধরসহ মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে তাকে বস্তায় ভরে মুখ বেঁধে চামটা খালে ফেলে দেয়ার জন্য নিয়ে যায়। বাঁচার জন্য ঘরে বড় বোনের টাকা রাখা আছে বলে সেখান থেকে তাদের তা এনে দেয়ার কথা জানায়। এর পরে তারা শিশুটিকে বাড়িতে নিয়ে যায়।
মা এবং বড় বোন শহরে ডাক্তর দেখাতে গেলে তালাবদ্ধ ঘরের এক ফাঁক দিয়ে শিশুটি প্রবেশ করে পালিয়ে থাকে। দীর্ঘক্ষণ বেরিয়ে না আসায় বিক্ষুব্ধ হয়ে টিনের চালা ছুটিয়ে তাকে টেনে হিছড়ে বের করে পুনরায় নির্যাতন চালায়।
শহর থেকে ফিরে মা এবং বোন গিয়ে তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়। শিশুটির ভাই ইব্রাহিম বাদী হয়ে ঝালকাঠি থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলাচ্ছে।
ঝালকাঠি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. তাজুল ইসলাম জানান, এ ব্যাপারে নির্যাতিত শিশুর ভাই একটি অভিযোগ দিয়েছেন। এ ঘটনায় ইতিমধ্যে দু’জনকে আটক করা হয়েছে এবং মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান ওসি।

 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন