বাউফলে ৭ দিন ধরে বিদ্যুৎবিহীন ২৭ পরিবার

বাংলারজমিন

বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি | ১৯ মে ২০১৭, শুক্রবার
পটুয়াখালীর বাউফলে পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের দুই কর্মচারীকে মারধরের ঘটনাকে কেন্দ্র করে দীর্ঘ ৭দিন ধরে বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় রয়েছে উপজেলার কনকদিয়া ইউনিয়নের ঝিলনা গ্রামের ২৭টি পরিবার। বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন  করে দেয়া হয়েছে একটি মসজিদের। বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় বর্তমানে চরম অস্বস্তিকর পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছে ওই ২৭ পরিবারের শিশু নারী পুরুষসহ প্রায় ২ শতাধিক সাধারণ মানুষ। সব থেকে বেশি দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে নারী  শিশু ও স্কুল-কলেজপড়ুয়া শিক্ষার্থীরা। বিদ্যুতের অভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে তাদের লেখাপড়া। রহিমা খাতুন বালিকা বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ভুক্তভোগী জুঁই বলেন,‘ বিদ্যুৎ না থাকায় পড়াশুনায়  পিছিয়ে পড়েছেন তারা। অসহ্য গরমে কোন ভাবেই পড়ার টেবিলে বসা যাচ্ছে না। তাই লেখাপড়া নিয়ে আমরা শঙ্কিত।’ বিদ্যুৎ না থাকায়  ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ঝিলনা সিকদার বাড়ি জামে মসজিদে আগত মুসল্লিসহ স্থানীয় সাধারণ মানুষ। বিদ্যুত বঞ্চিত ওই গ্রামের বাসিন্দা ভুক্তভোগী এনামুল বারী লিটন বলেন, ‘একটি মিথ্যা ঘটনাকে ইস্যু সাজিয়ে গত ১২ তারিখ রাতে ২৭টি পরিবারের বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্ন কওে দেয় পল্লীবিদ্যুৎ কর্মীরা। সকল আইন অমান্য করে সম্পূর্ণ গায়ের জোরে আমাদের বিদ্যুৎ সংযোগগুলো কেটে দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের কর্মকর্তাদের কাছে একাধিকবার বলা হলেও এ নিয়ে কোনো ভ্রূক্ষেপ করছেন না তারা।’ এ বিষয়ে পটুয়াখালী পল্লীবিদ্যুতের বাউফল জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার একেমএম আজাদ সংযোগ বিচ্ছিন্ন থাকার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ২৭ পরিবার নয়, ১১টি মিটারের সংযাগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। বিদ্যুৎ লাইনের পাশে ঝুঁকিপূর্ণ গাছের ডাল কাটাকে কেন্দ্র করে ওই বাড়ির লোকজন অন্যায়ভাবে পল্লীবিদ্যুৎ কর্মীদেরকে মারধর করার কারণে পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির বোর্ড মিটিংয়ে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন