ছাতকে সংঘর্ষে যুবক নিহত

বাংলারজমিন

ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি | ১৯ মে ২০১৭, শুক্রবার
সুনামগঞ্জের ছাতকে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে একজন নিহত ও ৩৫ জন আহত হয়েছে। গতকাল সকালে জাউয়া কোনাপাড়া ও হাবিদপুর গ্রামবাসীর মধ্যে জাউয়াবাজারে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে গুরুতর আহত হাফেজ আবু সাইদ (২৫) সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু ঘটে। সে হাবিদপুর গ্রামের আবদুল কাইয়ুমের পুত্র। গুরুতর আহত ৪ জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ ৪ রাউন্ড টিয়রশেল নিক্ষপ করে। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, জাউয়া বাজারের একটি দোকান ভিটি নিয়ে জাউয়া-কোনাপাড়া গ্রামের মৃত ওসমান আলীর পুত্র আব্দুল ওয়াহিদ ও হাবিদপুর গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের পুত্র আব্দুল কাহারের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। বৃহস্পতিবার সকালে ওই  দোকান ভিটিতে আবদুল ওয়াহিদ ঘর তৈরি করতে গেলে আব্দুল কাহারের লোকজন এতে বাধা দেয়। এ ঘটনার জের ধরে উভয় গ্রামবাসী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে বাজার এলাকা পরিণত হয় রণক্ষেত্রে। এ সময় সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের উভয় পাশে যাত্রী ও মালবাহী গাড়ি আটকা পড়ে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণ করতে অন্তত ৪ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। সংঘর্ষে গুরুতর আহত আব্দুল কাইয়ুম (৭০) ও ফজলুল ইসলাম (২৪), মকবুল আলী (২৭), বদরুল আলমকে (২৫) সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আলী আহমদ (১৬), আব্দুল আজিজ (২৮), আব্দুল হামিদ (৪০), আব্দুল হাসিম (৪৫), আনোয়ার হোসেন (২১), সুমন মিয়া (১৪), মোহাম্মদ আলী (৩৫), সিরাজুল ইসলাম (৪০), আলমগীর হোসেন (২৪), আতাউর রহমান (১৭), আবদুল গনিসহ (২৭)-সহ আহতদের কৈতক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষে জড়িত সন্দেহে পুলিশ আজাদ মিয়া, হেলাল মিয়া, মনাউল্যাহ, কদরিছ, জমির আহমদ, আব্দুল মনাফ ও আব্দুল গফুরকে আটক করেছে। ছাতক থানার ওসি আতিকুর রহমান টিয়ারশেল নিক্ষেপের কথা স্বীকার করে জানান, পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে। বাজারে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।


 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন