চলচ্চিত্রে সম্ভাবনার জায়গায় বেড়েছে সংকট

বিনোদন

কামরুজ্জামান মিলু | ১৮ মে ২০১৭, বৃহস্পতিবার
অনেক আগে থেকেই আমরা শুনে আসছি আমাদের দেশীয় চলচ্চিত্রের সংকট বা বেহাল চিত্রের কথা। কিন্তু এই কথাগুলোর পরও অনেক নির্মাতা-প্রযোজক সাহস করে একের পর এক নতুন ছবি নির্মাণ করছেন। ছবিতে লগ্নি করে আশায় বুক বাঁধছেন। তবে গত কয়েক মাসে নতুন ছবি যেগুলো মুক্তি পেয়েছে একটিও ব্যবসায়িক সাফল্যের মুখ দেখেনি। সে নিরিখে বলা যায়, সম্ভাবনার কথা বলা হলেও বেড়েছে সংকট। যার ফলে চলতি বছরে অনেক প্রযোজক ছবিতে লগ্নি করতে চাইলেও তারা ক্রমান্বয়ে দূরে সরে যাচ্ছেন। এ প্রসঙ্গে বিশিষ্ট পরিচালক মনতাজুর রহমান আকবর বলেন, বছরে এক বা দু’টি হিট-সুপারহিট ছবি দিয়ে চলচ্চিত্রের সংকট কাটবে না। একটা সময় আমরা দেখেছি রাজ্জাক সাহেব, আলমগীর, ওয়াসিম, ফারুক ভাইয়ের পাশাপাশি ইলিয়াস কাঞ্চন, রুবেল, মৌসুমী, মান্নাসহ অনেক তারকা বিভিন্ন ধরনের গল্পের ছবিতে অভিনয় করেছেন। তিন-চারটা প্রজন্মের সমাবেশ থাকত বছরজুড়ে। আর শিল্পীদেরও কাজে মনোযোগ ছিল। সেই পেশাদারি মনোযোগটা এখন আর নেই বললেই চলে। শিল্পীদের সংকটের পাশাপাশি যোগ হয়েছে নতুন সংকট। সেটা হচ্ছে ভালো মানের পরিচালকের অভাব। আর সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে জাজ মাল্টিমিডিয়া রোমান্টিক ছবি ‘ভালোবাসার রং’ দিয়ে যাত্রা শুরু করল ডিজিটাল চলচ্চিত্র। এরপর থেকে প্রায় অনেকে শুধু রোমান্টিক ছবি নির্মাণের প্রতি ঝুঁকে পড়লেন। কিন্তু একটা ইন্ডাস্ট্রি তো এক ধরনের গল্পের ছবি দিয়ে চলতে পারে না। দর্শক সামাজিক, রোমান্টিকের পাশাপাশি অ্যাকশন ছবি দেখতে পছন্দ করেন। এসব ছবি করার  মতো শিল্পীরও অভাব রয়েছে আমাদের। তাই সবকিছু মিলে সংকট কাটছে না। দীর্ঘ সময় চলচ্চিত্রে হিট-সুপারহিট ছবি উপহার দিয়েছেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী। এখনও কাজ করছেন এই গুণী অভিনেত্রী। তিনি এ প্রসঙ্গে বলেন, চলচ্চিত্রের উন্নয়নে কাজ করার দায়িত্ব সবার। আমরা শিল্পীরা একা একটা ইন্ডাস্ট্রিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারব না। যেসব সমস্যা প্রতিনিয়ত তৈরি হচ্ছে সেগুলোর সমাধান হওয়াটা খুবই জরুরি। আর ভালো মানের গল্পটা খুবই জরুরি। ভালো ও মৌলিক গল্পের চিত্রনাট্যের পাশাপাশি ভালো পরিচালক ও অভিনয়শিল্পীও খুবই জরুরি হয়ে পড়েছে। আর পাশাপাশি সিনেমা হলের পরিবেশ, পাইরেসিসহ অনা সমস্যাগুলো তো আমাদের রয়েছেই। বর্তমানে চলচ্চিত্রে তারকাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দর্শকপ্রিয় নায়ক হিসেবে ছবি উপহার দিয়েছেন শাকিব খান। তিনি এই প্রসঙ্গে বলেন, বর্তমানে ঢাকার চলচ্চিত্রে বেশকিছু সংকট তৈরি হয়েছে। প্রযোজক, পরিচালক, শিল্পী এবং অন্যান্য টেকনিশিয়ান মিলেই একটি ভালো ছবি তৈরি হয়। কিন্তু প্রতিদিনই নিত্যনতুন সংকটের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। যেমন ভারতের শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের লোকাল প্রোডাকশন (ঢাকায়) ‘রংবাজ’ ছবিতে শামীম আহমেদ রনী নামে নতুন একজন নির্মাতা কাজ করছিলেন। আমার সঙ্গে তাদের কথাও হয়েছিল এরপরের ছবিতে এদেশের আরেকজন পরিচালক কাজ করবেন। এর ফলে আমাদের দেশের কাজের ক্ষেত্রটা  বেড়ে যেত। তবে শুটিং চলাকালীন রনীকে পরিচালক সমিতি থেকে নিষিদ্ধ করার কারণে সংকট বাড়লো। এসবের দ্রুত সমাধান না করলে তো কাজের ক্ষেত্রে আমরা পিছিয়েই থাকব। সম্ভাবনার জায়গায় সংকট বেড়ে যাচ্ছে আমাদের। সবাই মিলে এক হয়ে সমস্যার সমাধান করে একত্রে কাজ করতে হবে আমাদের। এদিকে সিনেমা হলের কর্ণধারের মুখে শোনা যায় ভিন্ন কথা। রাজধানীর মধুমিতা সিনেমা হলের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, এ বছরে চলচ্চিত্রের ব্যবসার অবস্থা খুবই বাজে। এখন পর্যন্ত ভালো কনটেন্টের ছবি হাতে পাইনি। কোনো ছবিই ভালো চলছে না। আর শাকিব খানকে নিয়ে যা হচ্ছে তা সত্যিই ইন্ডাস্ট্রির জন্য ভালো কিছু না। শাকিবের সবকিছুই যে ঠিক তা আমি বলছি না। তবে শাকিব এমন একজন হিরো যিনি একা একটি লম্বা সময় এই ইন্ডাস্ট্রিকে টেনে নিয়ে গেছেন। এটা তো মানতে হবে। শাকিবের পর অনন্ত জলিলের ছবিও দর্শক গ্রহণ করেছিল। এখন তো তেমন কোনো নায়ক-নায়িকা ছবি হিট উপহার দিতে পারছে না। একটা ইন্ডাস্ট্রি টিকে থাকতে হলে পুরো বছরে বেশকিছু সুপারহিট ছবি দরকার।

 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

লিচু খেয়ে শিশু মৃত্যুর জন্য দায়ী নিষিদ্ধ কীটনাশক: গবেষণা

বরিশালের সেই বিচারককে বদলীর প্রস্তাব

বিএনপি জাতীয়-আন্তর্জাতিক চক্রান্তের মাধ্যমে নির্বাচনকে ভুন্ডল করার পাঁয়তারা করছে: নাসিম

ত্রিপুরা পাড়ায় আরো ১ শিশুর মৃত্যু, ফের আতংক

সিদ্দিকুরের ঘটনায় সন্তুষ্ট না হলে আরও তদন্ত কমিটি

বিশ্বকাপ সামনে রেখে ‘খড়ের স্টেডিয়াম’!

মাধবপুরে প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যঙ্গ করে ফেসবুকে দেয়ায় যুবক গ্রেফতার

‘ভারতের প্রেসিডেন্ট হিসেবে সম্মানিত বোধ করছি’

২৪ ঘন্টার মধ্যে সিটিসেল চালুর নির্দেশ

মওদুদের দুর্নীতির মামলার আদালত বদলাবে

সৌদি আরবের মুদি দোকানের দরজা বন্ধ হচ্ছে বিদেশীদের জন্য