বগুড়ায় স্কুলছাত্র হত্যা

মুশফিকের পিতাকে আসামি করে থানায় মামলা

অনলাইন

বগুড়া প্রতিনিধি | ১৬ মে ২০১৭, মঙ্গলবার, ৯:১১
বগুড়ায় জাসদ নেতার ছেলে স্কুলছাত্র মাসুক ফেরদৌস মাসুক হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম মিত’ুর বাবা ব্যবসায়ী মাহবুব হামিদ তারাকে প্রধান আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই মামলায় আরও ১৫ জনকে আসামী করা হয়েছে। নিহত মাসুকের পিতা এড. এমদাদুল হক এমদাদ বাদী হয়ে এ অভিযোগ করেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর পর্যন্ত বগুড়া সদর থানায় মামলা দায়ের প্রস্তুতি চলছিলো। অভিযোগ অন্যান্য অভিযুক্তরা হলো- ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিমের চাচা ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মেজবাহুল হামিদ (৪৫),  মো. লাল মিয়া (৪০), মো. খায়রুল (৪২), আল আমিন হেলাল (৪০), ছামছুল (৪৮), মো. তারাজুল ইসলাম (৪২), মো. নাইম ইসলাম (১৮), মো. অনিক ইসলাম (১৯), মো. নাহিদ (৩২), কাঞ্চন (২৮), ফয়সাল (২২), শাকিল (২৮), সাকিব (২৪), বিটুল (২৮) ও আল মামুন (৩০)। অভিযোগে বলা হয়েছে, মাহবুব হামিদ তারা (৫৫) ও তার ছোট ভাই বগুড়া পৌরসভার ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মেজবাহুল হামিদের (৪৫) সঙ্গে পারিবারিক শত্রুতা এবং মাটিডালি উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে বাদীর শত্রুতা চলে আসছিল।
তারা বিভিন্ন সময় বাদী ও বাদীর পরিবারের ক্ষতি করার পরিকল্পনা করতে থাকে। তারই ধারাবাহিকতায় গত শনিবার রাতে প্রতিবেশী বেলাল হোসেন ফকিরের বাড়িতে তার ছেলে নাইমকে দিয়ে মাসুক ফেরদৌস মাসুককে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রধান আসামি মাহবুব হামিদ তারা ও অপর আসামি লালমিয়া মাসুককে জাপটে ধরলে অপর আসামি ফয়সাল মাসুককে হত্যার উদ্দেশ্যে পিছন থেকে ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এসময় মাসুক মাটিতে লুটিয়ে পড়লে হত্যাকারীরা উল্লাস করে চলে যায়। অধিক রক্তক্ষরণে মাসুকের মৃত্যু হয়।
এদিকে, হত্যাকা-ের পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করা হলেও সাফিন নামে এক কিশোরকে রেখে বাকি দু’জনকে পুলিশ ছেড়ে দিয়েছে। আটক সাফিন নিহত মাসুক ফেরদৌসের বন্ধু। অপরদিকে মাসুকের খুনিদের গ্রেপ্তার করে কঠোর শাস্তি প্রদানের দাবিতে এলাকাবাসী মঙ্গলবার মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। বগুড়া সদর থানার ইন্সপেক্টর (ওসি) এমদাদ হোসেন জানান, মাসুকের বাবা এড. এমদাদুল হক মাহবুব হামিদ তারাকে প্রধান আসামি করে ১৬ জনের বিরুদ্ধে থানায় এজাহার দাখিল করেছেন। এটি রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা ৭.৫৫ মিনিট) মামলার প্রক্রিয়া চলছিল বলে ওসি জানান।
 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

mahbub rahman

২০১৭-০৫-১৬ ০৯:৩১:৪৭

শিশু হত্যাকারী যেই হোক তার ফাসিঁ হতেই হবে। সেটা মুশফিকের বাবা, চাচা যেই হোক। শুনেছি এই তো কদিন আগেও মুশফিকদের পারিবারীক অবস্থা খুব বেশী ভাল ছিলনা.....আর আজকে একটু ক্ষমতা পেয়েই এই অবস্থা....নাকি এই বুড়ো বয়সে মুশফিকের বাবার মাথায় কাজ করছে না....তার কিছু করার আগে একটু চিন্তা করার দরকার ছিল....যে তার ছেলেটা দেশের একজন প্রতিনিধি...আমরা সাধারন মানুষের মন থেকে এই মুশফিকের প্রতি ভালবাসা ওঠে যেতে বেশী সময় লাগবে না....এটা তার মনে রাখা দরকার....তাদের অপকরমের জন্য আজ এই খেলোয়াড়টার জীবনে আধার যেন নেমে না আসে.....আজ যার মাধ্যমে দেশের ষোল কোটি মানুষ আপনাকে চেনে....ভালবাসে শ্রদ্ধার চোখে দেখে....কেন সামান্য কদিনের ক্ষমতার বড়াই করছেন আপনার পরিবার ??? আগে জানতাম আপনি স্কুল শিক্ষক...মানুষ গড়ার কারিগর...আজ জনগন জানল আপনি খুনী, হত্যাকারী....কোনটা শুনতে আপনার ভাল লাগবে বলতে পারেন ????

আপনার মতামত দিন

বাংলাদেশের রাজনীতি, বিকাশমান মধ্যবিত্ত এবং কয়েকটি প্রশ্ন

ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতাতে আহত ডিবি পুলিশ

প্রতিবেশীদের মধ্যে সুসম্পর্ক থাকা জরুরীঃ বাংলাদেশকে মিয়ানমার

তারেক রহমানের জন্মদিন পালন করবে বিএনপি

রোহিঙ্গা শিবিরে যেতে চান প্রণব মূখার্জি

তালাকপ্রাপ্ত নারীকে অপহরণের পর গণধর্ষণ

আরো ১০ দিন বন্ধ থাকবে লেকহেড স্কুল

জাতিসংঘকে দিয়ে রোহিঙ্গা সঙ্কটের সমাধান হবে নাঃ চীন

ম্যনইউয়ের টানা ৩৮

রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সংলাপে সহায়তা করতে আগ্রহী চীন

জল্পনার অবসান ঘটালেন জ্যোতি

চীনের বেইজিংয়ে অগ্নিকাণ্ড, নিহত ১৯ আহত ৮

ভাইস চেয়ারম্যানদের সঙ্গে বৈঠক করলেন খালেদা জিয়া

চার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এখন বাংলাদেশে

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মার্কিন প্রতিনিধি দল

সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত এমপি গোলাম মোস্তফা আহমেদ