আপন জুয়েলার্সের ৯৩ কোটি টাকার স্বর্ণ জব্দ

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৬ মে ২০১৭, মঙ্গলবার, ৩:১০ | সর্বশেষ আপডেট: ৩:১০
আপন জুয়েলার্সের গুলশান শাখা থেকে ৯৩ কোটি টাকার বেশি স্বর্ণ ও হীরা সাময়িকভাবে জব্দ করেছে শুল্ক ও গোয়েন্দা অধিদপ্তর। এসব স্বর্ণের বৈধ কাগজপত্র পাওয়া যায়নি বলে শুল্ক গোয়েন্দারা দাবি করেছেন। ঢাকার শুলশানে আপন জুয়েলার্সের বিক্রয় কেন্দ্রে সোমবার অভিযান চালানো হয়। রাতে শুল্ক ও গোয়েন্দা অধিদপ্তরের ফেসবুক পাতায় জানানো হয়েছে, দোকানটি থেকে ২১১ কেজি স্বর্ণ আর ৩৬৮ গ্রাম হীরা আটক করা হয়েছে। এই বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ ও ডায়মন্ডের বৈধ সরবরাহের কোন কাগজ দেখাতে পারেননি আপন জুয়েলার্স কর্তৃপক্ষ। আটককৃত স্বর্ণ ও হীরার মূল্য ৯৩ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য আইনানুগভাবে সাময়িক আটক করে এগুলো দোকানের ভল্টে সিলগালা করে জিম্মা দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশ জুয়েলারি অ্যাসোসিয়েশনের নেতারা ও দোকান মালিক সমিতির প্রতিনিধি এ সময় উপস্থিত ছিলেন বলেও জানানো হয়েছে।

এর আগে এই প্রতিষ্ঠানটির পাঁচটি বিক্রয়কেন্দ্র সিলগালা করে দেয়া হয়। কিন্তু যে বিক্রয় কেন্দ্রটিতে আগে অভিযান চালায়নি শুল্ক গোয়েন্দারা, সেটিতে সোমবার অভিযান চালিয়ে এই বিপুল স্বর্ণালঙ্কার আটক করা হয়। আপন জুয়েলার্স নামে ওই জুয়েলারিটিতে বিপুল পরিমাণ সোনা এবং হীরা মজুদ কোথা থেকে এলো সে ব্যাপারে তাৎক্ষণিক ব্যাখ্যা দিতে না পারার অভিযোগে আপন জুয়েলার্স এর মালিকদের আগামী ১৭ই মে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ।

বনানীতে দু'জন ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলায় প্রধান অভিযুক্ত সাফাত আহমেদের বাবা দিলদার আহমেদ আপন জুয়েলার্স এর অন্যতম মালিক। বনানীর ধর্ষণের অভিযোগ নিয়ে ব্যাপক আলোচনার প্রেক্ষাপটে এই স্বর্ণ এবং হীরার মজুদ নিয়ে প্রশ্ন উঠে। শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ আপন জুয়েলার্সের বিক্রয়কেন্দ্র বন্ধ করে দেয়ার পাশাপাশি মালিকদেরও তলব করে।
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Zahir

২০১৭-০৫-১৬ ০৭:২৪:৩২

I think the allegation of rape is fabricated and is aimed at just to loot the gold and other valuables of Apon Jewellers. The girls are not from a modest family and they are biased by a mastermind leads a premeditated coup.

Ashraf hossain raju

২০১৭-০৫-১৬ ০০:৫৪:২০

হাসুৃম না কান্দুম কিছুই বুঝতে পারতাছি না।।

Nirvrosto

২০১৭-০৫-১৫ ২২:১৬:৫৩

আমার ধারনা যে আসল ঘটনা থেকে দৃষ্টি অন্যদিকে ফেরানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। শেষ পর্যন্ত মূল ঘটনা চাপা পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। শুল্কগোয়েন্দারা এতদিন খোজ নেন নি কেন ? অন্য জুয়েলাররা কি পুতপবিত্র ?

Alam

২০১৭-০৫-১৫ ২১:৪৭:৫১

দেশের সব কিছু লুট করর এখন ব্যাক্তিগত সম্পদ এর দিকে নজর পরসে। এখানে সিলেট এর ব্যবসায়িদের পেছনে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। Rap হইসে না sex করসে তা বিচরে প্রমাণ হয় নি এখন ও আর মিডিয়া তাদের সম্পদ এর পেছনে উদ্দেশ্য প্রনদিত ভাবে লাগছে।

আপনার মতামত দিন