‘বৃটেনকে অবশ্যই ব্রেক্সিটের মূল্য চুকাতে হবে’

দেশ বিদেশ

মানবজমিন ডেস্ক | ১ মে ২০১৭, সোমবার
ফরাসি প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওঁলাদে শনিবার সতর্ক করে বলেছেন, বৃটেনকে অবশ্যই ব্রেক্সিটের মূল্য চুকাতে হবে। বৃটেনের সঙ্গে ব্রেক্সিট আলোচনার জন্য একটি গাইডলাইন প্রণয়নে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সদস্য রাষ্ট্রগুলোর নেতারা জড়ো হয়েছেন। ইইউর গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ফ্রান্সের এই নেতা ব্রাসেলসের ওই সম্মেলনস্থলে পৌঁছার পর মন্তব্য করেন, ‘বৃটেনকে অবধারিতভাবে একটি মূল্য চুকাতে হবে। কারণ, এটাই তারা চেয়েছে।’ এ খবর দিয়েছে এএফপি। তবে ওঁলাদে এ-ও বলেন যে, ‘আমরা অবশ্যই শাস্তিদায়ী হবো না। কিন্তু এটিও সপষ্ট যে, ইউরোপ জানে কীভাবে নিজেদের স্বার্থ সুরক্ষিত রাখতে হয়। এটিও জানা কথা যে, ইইউর মধ্যে বৃটেনের যে অবস্থান ছিল, ইইউর বাইরে ওই অবস্থান অত ভালো হবে না।’ বৃটেনে ৮ই জুন আগাম নির্বাচনের ডাক দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। অনেকেই মনে করছেন, এই নির্বাচনে বড় ব্যবধানে জয়ী হলে দরকষাকষির টেবিলে শক্তিশালী অবস্থানে থাকবেন মে। কিন্তু এমন ধারণা উড়িয়ে দিয়ে ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আমি নির্বাচনী যুক্তিটি বুঝি। কিন্তু এটি ইইউকে প্রভাবিত করবে না। ইইউর নীতি ও উদ্দেশ্য ইতিমধ্যে নির্ধারিত হয়ে গেছে। আলোচনার সময় ওই পথই অনুসরণ করবে ইইউ।’
লুক্সেমবার্গের প্রধানমন্ত্রী জ্যাভিয়ার বেটেলও ওই ধারণা নাকচ করে দেন। তিনি বলেন, ‘আসলে নিজ দল কনজারভেটিভ পার্টির একটি অভ্যন্তরীণ সমস্যা সমাধান করতে চান মে। হার্ড ব্রেক্সিট বা সফট ব্রেক্সিটের জন্য নয়, তেরেসার ব্রেক্সিট নিয়েই এই ভোট। আমরা খুবই ঐক্যবদ্ধ। আপনি অবাক মনে হচ্ছে, কিন্তু এটাই সত্য।’ ইইউর প্রধান ব্রেক্সিট আলোচক মাইকেল বার্নিয়েরও অবশ্য বলেছেন, ইইউ ঐক্যবদ্ধ থাকলেই বরং বৃটেনের সুবিধা। কারণ, এর ফলে ব্রেক্সিট চুক্তি হওয়ার সম্ভাবনা বাড়াবে।  তিনি বলেন, ‘এই অসাধারণ বৈঠক প্রমাণ করে ২৭টি সদস্যরাষ্ট্রের ঐক্যবদ্ধ অবস্থান। কিন্তু এটি বৃটেন বিরোধী নয়। আমি মনে করি, আমাদের ঐক্য বরং বৃটেনের স্বার্থের পক্ষে।’ ইইউ প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড টাস্কও জোর দিয়ে বলেছেন, চুক্তি হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পেলে বৃটেন লাভবান হবে। লন্ডনে তেরেসা মে অভিযোগ করেন, ২৭টি দেশ বৃটেনের বিরুদ্ধে একজোট হয়েছে। তার ওই বক্তব্যের জবাবেই এই যুক্তি দেন টাস্ক।
সম্মেলনস্থলে পৌঁছে তিনি বলেন, ‘ইইউ২৭ হিসেবে আমাদের অটুট থাকতে হবে। আর তা হলেই কেবল আমরা আলোচনার উপসংহারে পৌঁছতে পারবো। অর্থাৎ, আমাদের ঐক্যের অর্থ হলো যুক্তরাজ্যের স্বার্থ।’ অনুষ্ঠিতব্য দরকষাকষি নিয়ে ইইউ ও বৃটেনের নেতাদের মধ্যে কথার লড়াই চলছে। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল সমপ্রতি বলেন, আলোচনা নিয়ে বৃটেনের উচিত  হবে না বিভ্রান্তিতে বসবাস করা। জার্মান অর্থমন্ত্রী উলফগ্যাং শবল শনিবার এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ইইউ জোট ত্যাগের পর অন্য দেশগুলো যে সুবিধা পায় না, সেটি বৃটেন পেতে পারে না।


 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন