গণমাধ্যমে সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ নেই: ইনু

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১ মে ২০১৭, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৩৮
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বাংলাদেশে গণমাধ্যম উন্মূক্ত, বিকাশমান ও স্বাধীন। এখানে সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ নেই। গণমাধ্যম ও সরকার একে অপরের নিত্যসঙ্গী একথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখানে সাংবাদিকরা স্বাধীনভাবে কাজ করছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণমাধ্যমকে উন্মূক্ত করে দিয়েছেন। গতকাল বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটে (পিআইবি) ‘পিআইবি-সোহেল সামাদ পুরস্কার-২০১৬’ প্রদান উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন। পিআইবি’র মহাপরিচালক শাহ আলমগীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অনারারি অধ্যাপক ড. সাখাওয়াত আলী খান।
অন্যান্যের মধ্যে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইজে) সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল এবং সোহেল সামাদের পরিবারের সদস্য আদনান সামাদ ও নিলুফা আহমেদ করিম অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। তথ্যমন্ত্রী বলেন, সাংবাদিকতার স্বাধীনতার অর্থ স্বেচ্ছাচারিতা নয়। এর একটা নীতি নৈতিকতা রয়েছে। এর মূল্যবোধ রয়েছে। এর একটা মানবিক দিকও রয়েছে। সাংবাদিকতা পেশার স্বাধীনতার অপব্যাখ্যা দেয়াও এক ধরনের অপরাধ। এখানে সাংবাদিকদের আরো দায়িত্বশীল হতে হবে। তিনি বলেন, সাংবাদিকদের দেশের আইন-কানুন মেনে সংবাদ পরিবেশন করতে হবে। তাহলে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে। নতুবা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে। হাসানুল হক ইনু বলেন, সাংবাদিকদের প্রকাশিত প্রতিবেদনে কখনো সরকার অসন্তুষ্ট হতে পারে। এটা হস্তক্ষেপ নয়। সরকার সবসময় গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। শেখ হাসিনার সরকারের সেই মানদণ্ড রয়েছে। তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি সরকারের রেখে যাওয়া জঞ্জাল পরিষ্কার ও জঙ্গিবাদ দমনে বর্তমান সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। জঙ্গি দমনে সরকার জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে। বর্তমানে জঙ্গিরা অনেকটা দুর্বল হয়ে পড়েছে। তবে তারা একেবারে শেষ হয়নি। হাসানুল হক ইনু বলেন, দু’বছর পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের অধীনে আগামী সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সংবিধান রক্ষার্থে ও জনগণের স্বার্থেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সাংবাদিকদের উদ্দেশে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এ মুহূর্তে নির্বাচন নিয়ে মাখামাখির কিছুই নেই। আপনারা ব্লগার হত্যাকারী, জঙ্গিদের আশ্রয়দাতা, অর্থদাতা ও আগুনে পুড়িয়ে যারা মানুষ মেরেছে তাদের মুখোশ জনগণের কাছে উন্মোচন করুন। তিনি এসব অপরাধীর মামলার অগগ্রতি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করার জন্য সাংবাদিকদের প্রতি আহ্বান জানান। ইকবাল সোবহান চৌধুরী সাংবাদিকতা পেশাকে ঝুঁকিপূর্ণ উল্লেখ করে বলেন, সাংবাদিকদের দায়িত্ব অপরিসীম। তাদের কাছে জনগণের যে প্রত্যাশা তা পূরণে সাংবাদিকদের সতর্ক থাকতে হবে। জাতীয় সম্প্রচার নীতি প্রণয়নের ওপর গুরুত্ব দিয়ে তিনি ইলেকট্রনিক মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসমূহকে আরো দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান জানান। এর আগে ‘রক্ত বাণিজ্য’ শীর্ষক অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের জন্য বেসরকারি চ্যানেল আরটিভি’র সিনিয়র প্রতিবেদক আরাফাতুর রহমানকে ‘পিআইবি-সোহেল সামাদ পুরস্কার-২০১৬’ ও সনদ প্রদান করা হয়।

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Farid Ahmed

২০১৭-০৫-০১ ০১:৫৬:৪১

কিছু খারাপ লোকের খারাপ কাজের জন্য জাতী ধংশ হয় না। জাতীর নেতৃত্ব দানকারী নেতারা যখন মিথ্যাকে সত্য বলে ও অন্যায়কে ন্যায় বলে মানুষের ওপর চাপিয় দেয় তখন সেই জাতী ধংশ হওয়া থেকে রক্ষা পায়না।

Ruhul Amin Jakkar

২০১৭-০৪-৩০ ১২:৩৬:১৩

হামরানা এককালে বাঙ্গালি ছিলাম। বাট নেক্সটাইমে বাংলিশ হইয়া গেছি। মোগো বেঙ্গলি ল্যাঙ্গুয়েজে একটি প্রবাদ আছিলোঃ ঠাকুর ঘরে কে রে? (জবাব) আমি কলা খাইনা। মন্ত্রীর কথে হুইন্না হেইডা মনে অইলো।

আপনার মতামত দিন

বৃদ্ধা মিলু গোমেজ হত্যায় কেয়ারটেকার গ্রেপ্তার

ষোড়শ সংশোধনীর রিভিউ শুনানিতে আন্তর্জাতিক আইনজীবী নিয়োগের আবেদন

বিএনপি প্রার্থীকে প্রচারণায় বাধা দেয়ার অভিযোগ

চবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবরোধের ডাক

‘নির্বাচনে না আসলে বিএনপির অস্তিত্ব বিপন্ন হবে’

নিখোঁজ প্রকৌশলীর মরদেহ উদ্ধার

মালিবাগে গুদামে আগুন

ওয়ালটনে প্রতিষ্ঠাতা নজরুল ইসলাম মারা গেছেন

সাবেক প্রক্টর কারাগারে, প্রতিবাদে অবরুদ্ধ চবি

মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানিতে পদদলিত হয়ে ১১ জনের মৃত্যু

‘বিএনপি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেনা’

লেবাননে বৃটিশ কূটনীতিককে শ্বাসরোধ করে হত্যা

বিমানে দেখা এরশাদ-ফখরুলের

ছিনতাইকারীর টানাটানিতে মায়ের কোল থেকে পড়ে শিশুর মৃত্যু

‘উন্নয়ন কথামালায়, মানুষ কষ্টে আছে’

সারা দেশে বিএনপির প্রতিবাদ কর্মসূচি আগামীকাল