লক্ষ্যমাত্রা ২ লাখ ৭১ হাজার কোটি টাকা

শেষের পাতা

এমএম মাসুদ | ২২ এপ্রিল ২০১৭, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:২৬
মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপির প্রবৃদ্ধি ৭.৪ শতাংশ প্রাক্কলন করে আগামী বাজেটে রাজস্বপ্রাপ্তির সম্ভাব্য আকার দুই লাখ ৭১ হাজার ২৫৫ কোটি টাকা প্রস্তাব করা হয়েছে। এর মধ্যে এনবিআর থেকে আসবে ২ লাখ ৩৬ হাজার কোটি টাকা। বাকি ৩৫ হাজার কোটি টাকা আদায় করা হবে নন-এনবিআর তথা করবহির্ভূত খাত থেকে। এ ছাড়া আগের মতোই নতুন  বাজেটে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও বিদ্যুৎ খাতকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে। প্রস্তাবিত বিশাল বাজেট বাস্তবায়নে নিজস্ব সম্পদ আহরণের ওপর বেশি জোর দেয়ার কথা বলা হয়েছে। এনবিআর ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
 
জানা গেছে, আগামী বাজেটের আকার হতে পারে ৪ লাখ ২৬৭ কোটি টাকা বা কিছু কম। এর মধ্যে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) ১ লাখ ৫৩ হাজার ৩৩১ কোটি টাকা। নতুন বাজেটের আকার জিডিপির ১৮ শতাংশ এবং চলতি অর্থবছরের মূল বাজেট অপেক্ষা ১৫ শতাংশ বেশি।
সূত্র জানায়, এবার বাজেটে সামগ্রিকভাবে ঘাটতি দাঁড়াতে পারে ১ লাখ ২৯ হাজার কোটি টাকা। শতকরা হারে যা জিডিপির ৫.৮ শতাংশ। বিশাল এ ঘাটতি অর্থায়ন করা হবে ব্যাংক ও ব্যাংকবহির্ভূত থেকে নেয়া ঋণের মাধ্যমে। এর মধ্যে ব্যাংক থেকে নেয়া ঋণের লক্ষ্য ধরা হয়েছে প্রায় ৪৯ হাজার কোটি টাকা। এ ছাড়া ব্যাংকবহির্ভূত তথা সঞ্চয়পত্র থেকে আসবে প্রায় ২৬ হাজার কোটি টাকা। এনবিআর কর্মকর্তারা বলেন, ঘাটতি যা ধরা হয়েছে তা আরো কমে আসবে।
জানা গেছে, চলতি অর্থবছরে মূল বাজেটের আকার ছিল তিন লাখ ৪০ হাজার কোটি টাকা। পরে মূল বাজেট থেকে কমিয়ে সংশোধিত বাজেটের আকার নির্ধারণ করা হয় তিন লাখ ১৭ হাজার ১৭৪ কোটি টাকা।
সূত্র মতে, নতুন এডিপি এক লাখ ৫৩ হাজার কোটি টাকার মধ্যে নিজস্ব উৎস থেকে জোগান দেয়া হবে ৯৬ হাজার ৩৩১ কোটি টাকা। অন্যদিকে বৈদেশিক সহায়তা বাবদ আসবে ৫৭ হাজার কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরে সংশোধিত এডিপি ১ লাখ ১০ হাজার কোটি টাকা। আগামী বাজেটে মূল্যস্ফীতির হার ধরা হয়েছে ৫.৫ শতাংশ। বিশ্লেষকরা বলেন, নতুন বাজেটে এমপিদের নির্বাচনী এলাকার উন্নয়নকাজে বাড়তি থোক বরাদ্দ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ফলে এডিপি আকার বাড়ার সম্ভাবনা বেশি।
জানা গেছে, বেসরকারি বিনিয়োগ উৎসাহিত করতে আগামী বাজেটে পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপ বা পিপিপি আলাদাভাবে ২ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ থাকবে। একই সঙ্গে প্রবৃদ্ধির গতি ত্বরান্বিত করতে সরকারের অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত বড় প্রকল্পে বরাদ্দ অব্যাহত থাকছে। এ ছাড়া বিভিন্ন খাতে দেয়া ভর্তুকি ও রপ্তানিকে উৎসাহিত করতে প্রণোদনা দেয়া হবে। বিদ্যুতের চাহিদা মোতাবেক ভর্তুকি দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।
এদিকে সাম্প্রতিককালে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আসন্ন ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাবে উল্লেখযোগ্য কি কি থাকছে তা একাধিক অনুষ্ঠানে পূর্বাভাস দিয়েছে।  
এর মধ্যে সম্প্রতি সচিবালয়ে এক সভায় অর্থমন্ত্রী বলেছেন, আগামী অর্থবছরে বাজেট ঘাটতি মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ৫ শতাংশ ছাড়িয়ে যাবে। পরে অবশ্য এটা কমে যাবে। আর জিডিপির প্রবৃদ্ধির হার ধরা হবে ৭.৪ শতাংশ। চলতি অর্থবছরের বাজেটের আকার ৩ লাখ ৪০ হাজার ৬০৫ কোটি টাকা। এ ছাড়া আগামী অর্থবছরে রাজস্ব সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হবে ২ লাখ ৮৩ হাজার কোটি টাকা। এ ছাড়া বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আকার করা হবে ১ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকা।
ঝালকাঠির এক অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমরা যখন প্রথম ক্ষমতায় আসি তখন বাজেটের পরিমাণ ছিল ৯৫ হাজার কোটি টাকা। বর্তমানে চলছে ৩ লাখ ৪০ হাজার কোটি টাকার বাজেট। আগামী বাজেট হবে চার লাখ কোটি টাকার।
এ ছাড়া আসন্ন অর্থবছরের বাজেটে সরকারি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে টিউশন ফি বাড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেছেন, বেতন ও টিউশন ফিতে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের খরচ বিবেচনায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে। তিনি বলেন, যেসব সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিশেষ করে মেডিকেল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বেতন ও টিউশন ফি ১২ থেকে ২০ টাকার মধ্যে সেগুলোর টিউশন ফি বাড়িয়ে তা পাঁচগুণ করা হবে।
জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান বলেন, দেশের সুষম উন্নয়নের লক্ষ্যে আগামী জাতীয় বাজেট ব্যবসা ও শিল্পবান্ধব করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দেশের উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষের উন্নয়নের দিকে বাজেটে বিশেষ লক্ষ্য রাখা হয়েছে। আর এই বাজেটে ব্যক্তিখাতে রাজস্ব বৃদ্ধি না করে শিল্প ও সেবার খাত বৃদ্ধি করে বাজেটে রাজস্বের আওতা বৃদ্ধির পরিকল্পনা নেয়া হচ্ছে বলেও বলেন তিনি।
 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

গাজীপুরে প্রাক্তন তিন সেনা সদস্যসহ ৪জন গ্রেপ্তার

খান আতা ইস্যুতে এফডিসিতে চলচ্চিত্র পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

আদালত অঙ্গনে খালেদার আইনজীবীদের হাতাহাতি

বন্যায় ৩০ শতাংশ ধান উৎপাদন কম হতে পারে

রাজধানীতে নিরাপত্তাকর্মীকে কুপিয়ে যখম

জেনারেল মইনকে আশ্বস্ত করেছিলেন প্রণব

সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

গভীর রাজনৈতিক সঙ্কটের আশঙ্কা কাতালোনিয়ায়

নাইকোর আবেদন তিন সপ্তাহ মুলতবি

চল্লিশ বছর পর আবার...

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে দায়ী করলো যুক্তরাষ্ট্র

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সভাপতি মজনু গ্রেপ্তার

কুয়েতে এসি বিস্ফোরণে নিহত পাঁচজনের মরদেহ দেশে,বিকালে দাফন

আমাদের অনেক এমপি অত্যাচারী, অসৎ : অর্থমন্ত্রী

মিয়ানমার থেকে শূন্য হাতে ফিরলেন জাতিসংঘ কর্মকর্তা

নির্বাচনের সময় অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির শঙ্কার কথা বললেন বার্নিকাট