অপরিকল্পিত নগরায়ন: নগরের দৃশ্যদূষণ যখন মনেরও দূষণ

দেশ বিদেশ

উম্মে আমাতুজ জাকিয়া | ২২ এপ্রিল ২০১৭, শনিবার
আমাদের চারপাশই আমাদের পরিবেশ। এই পরিবেশের মাটিদূষণ, পানিদূষণ, বায়ুদূষণ, শব্দদূষণের সঙ্গে আমরা খুব পরিচিত এবং সামান্য হলেও কিছুটা সচেতনতা আমাদের ভেতর এসেছে। মানুষ এসব দূষণ নিয়ে মতবিনিময় থেকে শুরু করে সচেতনতামূলক কাজ করে যাচ্ছে, যা সত্যি প্রশংসার দাবিদার। কিন্তু এই সব দূষণের মাঝে আরো একটা দূষণ তলিয়ে যাচ্ছে। আর আমাদের এড়িয়ে যাওয়ার কারণে ভয়ঙ্কর রূপ ধারণা করছে এই দূষণ। এই দূষণ হলো দর্শন সংক্রান্ত দূষণ। যাকে ইংরেজিতে ঠরংঁধষ চড়ষষঁঃরড়হ বলা হয়। আমরা যখন আমাদের চারপাশে তাকাই তখন চারপাশে যা কিছু আমাদের কাছে দৃষ্টিকটু অথবা উত্তেজনার সৃষ্টি করে তাই-ই দৃশ্যদূষণ।
আমার একটি অভিজ্ঞতালব্ধ ঘটনা বলছি। ছোটবেলায় আমি যে বাড়ি ছিলাম তার চারপাশে আম, জাম, কাঁঠাল, আমড়া, পেয়ারা, বরই, পাতাবাহার গাছ ছিল। ঘুম থেকে উঠেই বাইরে তাকালেই মনে একটা ছন্দ খেলে যেত কিন্তু ক্রমানয়ে ওই এলাকায় নগরায়নের কারণে  বৈদ্যুতিক তারের বিশাল এক কুণ্ডুলী, অশ্লীল সাইনবোর্ড এবং নানা ধরনের বিজ্ঞাপন চিত্র আর ব্যানারে এক অস্বস্তিপূর্ণ গোলযোগের জায়গা। ফলস্বরূপ, স্থান ত্যাগ, কিন্তু চোখ বন্ধ করলেই সেই বাড়ি পথ আর তার পরিবেশকে খুব অনুভব করি, যা আজ শুধুই কল্পনা আর স্মৃতি।
এই এলাকায় যে কিন্ডারগার্ডেনটিতে পড়তাম। ২০০৩ইং এর দিকে স্কুলটি সুনামের সঙ্গে এগিয়ে চলছিল। স্কুলটির ছাত্রছাত্রীরা এখন সবাই খুব সাফল্যের সঙ্গে বেশিরভাগ স্বনামধন্য জায়গাগুলোতে প্রতিষ্ঠিত। কিন্তু ধীরে ধীরে স্কুলটিকে নিয়ে গড়ে উঠে এক বাজার এবং স্কুলের তুলনায় বাজারটিই স্থান করে নেয়, অন্যদিকে স্কুলে লেখাপড়ার মান থেকে শুরু করে ছাত্রছাত্রীদের মানসিক পরিবর্তনও হয় উল্লেখ্যযোগ্য। বাজারের মধ্য দিয়ে স্কুলের পথ এবং স্কুলটি তার সুনাম ধরে রাখতে পারলো না। দুঃখ হয় খুব- এ ধরনের পরিকল্পনায় যারা আছেন। যারা স্কুলকে তার পরিবেশ রক্ষা করতে দেননি। দুঃখ হয় খুব আমার সেই চিরচেনা সুনামধন্য স্কুলটির এ বেহাল দশা দেখে। কারণ, আমরা এড়িয়ে যাই এবং যাচ্ছি। এই দৃশ্যদূষণকে আর দৃশ্যদূষণের প্রভাবকে। আমরা যখন কোনো খাওয়া পরিবেশন করি। তখন তার পরিবেশন যদি ভালো না হয় তাহলে তাতে রুচিও জন্মে না। তদ্রূপ আমাদের দৃষ্টিতে যদি পরিবেশ দৃষ্টিনন্দন না হয় তবে মনে শান্তিও জন্মে না। মানুষ স্বভাবই তার চারপাশে একটি সুন্দর পরিবেশের দাবিদার। রাস্তার চারপাশের পরিবেশ দৃষ্টিনন্দন হওয়াটাই যুক্তিসহজতা। কিন্তু ঢাকার বেশ কিছু রাস্তায় দাড়ালে রঙ বেরঙের ব্যানারে জর্জরিত, বৈদ্যুতিক তার, দৃষ্টিকটু পোস্টার, অশ্লীল ছবির পোস্টার যা হেঁটে যাওয়া অথবা চলন্ত গাড়িতে থাকা একটি মানুষের অস্বত্বির কারণ হয়ে যাবে সঙ্গে তো বায়ু দূষণ আছেই। এ ধরনের অশ্লীল পোস্টার এবং বিজ্ঞাপনের বিলবোর্ড মানুষের মনকে বিকৃত করে দেয় এবং অবচেতন মনে খারাপ চিন্তায় মশগুল থাকে। এ সমস্ত অশ্লীল পোস্টার, বিকৃত বিজ্ঞাপন চালকের জন্য দূঘর্টনার কারণ হতে পারে। অন্যদিকে অনেক সময় রাস্তায় বড় পর্দায় খেলা দেখানো হয় যা দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে মারাত্মক কারণ হতে পারে। তাই রাস্তা উন্নয়ন পরিকল্পনাতে যারা আছেন তারা এই বিষয়গুলোতে সুনজর দিবেন যা আপনার পরিকল্পনাকে আরো নিখুঁত করবে।
দৃশ্যদূষণকে যেসব কারণ প্রভাবিত করছে তা হলো বায়ুদূষণ, টেলিফোন ও বৈদ্যুতিক তার, সাইনবোর্ড, গাছ রোধন অনিরাপদ এবং অপরিকল্পিত নগরায়ন, ইটের ভাটা, খোলা আবজর্নার স্থান, অশ্লীল পোস্টার, বিজ্ঞাপন ও উত্তেজনা সৃষ্টিকারী বিলবোর্ড ইত্যাদি। দৃশ্যদূষণ (ডিজিুয়াল পলিউশন) যে কোনো দুঘর্টনাকে প্রভাবিত করে, মানসিক অশান্তি ঘটায় এবং গবেষণায় দেখা গেছে এ ধরনের অস্বস্তিপূর্ণ জায়গাগুলোতে অপরাধ প্রবৃত্তি বাড়ে ও অনিরাপত্তায় ভোগেন জনগণ। ঢাকা আমাদের রাজধানী। হয়তো রাজধানী নিজেই হাহাকার করছে তার নিজের সৌন্দর্য হারিয়ে। মুক্তির অপেক্ষায় এই দৃশ্যদূষণ থেকে। গবেষণায় দেখা গেছে, দৃষ্টিনন্দন রং যেমন নীল, সবুজ, গোলাপী, সাদা বেগুনী, ধূসর, হলুদ চোখে আরাম প্রদান করে। বিলবোর্ড পোস্টার বৈদ্যুতিক তার, ইত্যাদি কোথায় স্থাপিত হবে তার জন্য সুপরিকল্পিত নগরায়ন পরিকল্পনা করা দরকার এবং শিল্প যা মানুষকে তার পণ্য বিক্রয় বিজ্ঞাপনের সঙ্গে সঙ্গে পরিবেশের কথা মনে করিয়ে দিবে। দাঁত থাকতে দাঁতের মর্যাদা দিলে আমরা সত্যই অনেক বড় জাতির সামনে থেকে পথ ঘুরিয়ে সামনে চলতে পারবো। দৃশ্যদূষণ ব্যাপারে নগরায়ন পরিকল্পনা কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

যুবলীগ নেতাকে অস্ত্রের মুখে অপহরন

ধুমপানে বাধা দেয়ায় দোকানিকে সিগারেটের ছ্যাঁকা

পারমাণবিক যুদ্ধের হিম আতঙ্ক

লেবার নেতা হিসেবে সাদিক খানকে দেখতে চান বৃটিশ ভোটাররা

রোহিঙ্গাদের সমর্থনে বোস্টনে প্রতিবাদ বিক্ষোভ

কর্ণফুলীতে বিএনপির তিন প্রার্থীর নির্বাচন বর্জন

মনিপুর থেকে ১০৭ ‘বাংলাদেশী’ পুশব্যাক

পূর্ব লন্ডনে এসিড হামলায় আহত ৬

সাদুল্যাপুরে ১১২ মেট্রিক টন চাল জব্দ, গুদাম সিলগালা

রোহিঙ্গা ইস্যুতে এবার বিমসটেকেও ছায়া পড়েছে

রাজধানীতে আগুনে পুড়ে নিহত ১

চতুর্থ দফা ক্ষমতার দিকে দৃষ্টি মার্কেলের

‘অযথা এসব গুঞ্জনের কোন মানে হয় না’

সন্তানের নাড়ি কাটার সময়ও পাননি হামিদা

সেনাবাহিনীর কার্যক্রম শুরু, ফিরছে শৃঙ্খলা

কাল থেকে গণশুনানি