সপ্তাহ ধরে অন্ধকারে ৭টি গ্রাম

বাংলারজমিন

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি | ২২ এপ্রিল ২০১৭, শনিবার
বিদ্যুৎ বিভাগের গাফলতির কারণে চিলমারীর ৭টি গ্রাম অন্ধকারে। প্রতিকারের নেই উদ্যোগ। হতাশায় মানুষ। শনিবার বিকালে চিলমারী উপজেলায় বয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড়ে গাছ-পালা উপড়ে ও ডাল ভেঙে, বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। জানা গেছে, শনিবার থেকে উপজেলার পাত্রখাতা, মিনাবাজার, কারেন্টবাজার, মাস্টারেরহাটসহ ৭টি গ্রাম গত এক সপ্তাহ থেকে রয়েছে অন্ধকারে। কিন্তু এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে এলাকাবাসী।
ফলে এলাকাবাসী একদিকে যেমন ভুতুড়ে অন্ধারের বসবাস করছে অপর দিকে বিভিন্ন ব্যবসায়ীকে ব্যবসা বন্ধ করে লাখ লাখ টাকার লোকসান গুনতে হয়েছে। এছাড়া রয়েছে চোর-ডাকাতের ভয়। শুধু তাই নয় ভুতুড়ে অবস্থায় অনেকটা নির্ঘুম রাত কাটিয়েছেন এখানকার বাসিন্দারা। এছাড়া ফ্রিজে রক্ষিত খাবারসামগ্রী নষ্ট হয়েছে, যা ব্যবহারের অনুপযোগী হওয়ায় ফেলে দিতে হচ্ছে। এলাকাবাসী জানায়, ঝড়ের ৬ দিন পর বৃহস্পতিবার পল্লীবিদ্যুতের লোকজন এলাকায় মেরামতের জন্য আসলেও ওই সময় কিছু সময়রের জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হলেও তা আবার চলে যায় কিন্তু এখন পর্যন্ত (শুক্রবার সময় ১১টা) তা আসার কোনো নাম নেই। তারা আরো জানান, পল্লীবিদ্যুতের লোকজনের গাফিলতির কারণে সাধারণ মানুষ দিনের পর দিন হয়রানির স্বীকার হচ্ছে। এ ব্যাপারে চিলমারী পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের নম্বরে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে মোবাইলটি রিসিভ করেননি কর্তৃপক্ষ।

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

‘অভিযোগ কাল্পনিক ও বানোয়াট’

মইনকে আশ্বস্ত করেছিলেন প্রণব

ব্লু হোয়েল গেম জায়েজ নয়

শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন চায় জেপি

রোহিঙ্গাদের দেখতে আসছেন জর্ডানের রানী

পেপ্যাল ‘জুম’ সার্ভিস বাংলাদেশে

হাওরে সরকারি প্রকল্পে লুটপাট হয়েছে

প্রার্থী নিয়ে নির্ভার আওয়ামী লীগ-বিএনপি

গণমাধ্যম-সশস্ত্র বাহিনীর সম্পর্ক নিয়ে সেমিনার

সিলেটে ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত, সেক্রেটারিসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

খালেদা জিয়ার পুরো জবানবন্দি

বরিশালে বিচারকের ভূমিকায় বেঞ্চ সহকারী, তোলপাড়

গাজীপুরে প্রাক্তন তিন সেনা সদস্যসহ ৪জন গ্রেপ্তার

খান আতা ইস্যুতে এফডিসিতে চলচ্চিত্র পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

আদালত অঙ্গনে খালেদার আইনজীবীদের হাতাহাতি

বন্যায় ৩০ শতাংশ ধান উৎপাদন কম হতে পারে