সপ্তাহ ধরে অন্ধকারে ৭টি গ্রাম

বাংলারজমিন

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি | ২২ এপ্রিল ২০১৭, শনিবার
বিদ্যুৎ বিভাগের গাফলতির কারণে চিলমারীর ৭টি গ্রাম অন্ধকারে। প্রতিকারের নেই উদ্যোগ। হতাশায় মানুষ। শনিবার বিকালে চিলমারী উপজেলায় বয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড়ে গাছ-পালা উপড়ে ও ডাল ভেঙে, বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। জানা গেছে, শনিবার থেকে উপজেলার পাত্রখাতা, মিনাবাজার, কারেন্টবাজার, মাস্টারেরহাটসহ ৭টি গ্রাম গত এক সপ্তাহ থেকে রয়েছে অন্ধকারে। কিন্তু এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে এলাকাবাসী।
ফলে এলাকাবাসী একদিকে যেমন ভুতুড়ে অন্ধারের বসবাস করছে অপর দিকে বিভিন্ন ব্যবসায়ীকে ব্যবসা বন্ধ করে লাখ লাখ টাকার লোকসান গুনতে হয়েছে। এছাড়া রয়েছে চোর-ডাকাতের ভয়। শুধু তাই নয় ভুতুড়ে অবস্থায় অনেকটা নির্ঘুম রাত কাটিয়েছেন এখানকার বাসিন্দারা। এছাড়া ফ্রিজে রক্ষিত খাবারসামগ্রী নষ্ট হয়েছে, যা ব্যবহারের অনুপযোগী হওয়ায় ফেলে দিতে হচ্ছে। এলাকাবাসী জানায়, ঝড়ের ৬ দিন পর বৃহস্পতিবার পল্লীবিদ্যুতের লোকজন এলাকায় মেরামতের জন্য আসলেও ওই সময় কিছু সময়রের জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হলেও তা আবার চলে যায় কিন্তু এখন পর্যন্ত (শুক্রবার সময় ১১টা) তা আসার কোনো নাম নেই। তারা আরো জানান, পল্লীবিদ্যুতের লোকজনের গাফিলতির কারণে সাধারণ মানুষ দিনের পর দিন হয়রানির স্বীকার হচ্ছে। এ ব্যাপারে চিলমারী পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের নম্বরে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে মোবাইলটি রিসিভ করেননি কর্তৃপক্ষ।

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

জনগণের দেয়া রায় মেনে নেবে বিএনপি: ফখরুল

দুই নারীর একজন স্বামী, অন্যজন স্ত্রী

আ’লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১৫

নওগাঁয় যুবককে কুপিয়ে হত্যা

গার্মেন্টে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ তদন্ত করছে এইচ অ্যান্ড এম

নাশকতার অভিযোগে ২০ শিবিরকর্মী আটক

বিএনপির বিজয় র‌্যালিতে যুবলীগ-ছাত্রলীগের হামলা

বিজয় উৎসব পালন করতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় ৮ মুক্তিযোদ্ধাসহ আহত ৯

আমৃত্যু এক যোদ্ধার কথা

ছাত্রদলের পুষ্পস্তবক ছিঁড়লো ছাত্রলীগ

ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে নিহত ২

‘স্বাধীনতার ৪৬ বছরে জাতির প্রত্যাশা অনেকটাই পূরণ হয়েছে’

বঙ্গবন্ধুর গৃহবন্দি পরিবারকে যেভাবে উদ্ধার করেছিলেন কর্নেল তারা

মিয়ানমারে আটক দু’সাংবাদিককের মুক্তি দাবি জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রও

ভারতে তিন তালাক বিরোধী খসড়া আইনে সরকারের অনুমোদন

বিরোধীরা আসলেই কাগুজে বাঘ: মোজাম্মেল হক