জীবন দিয়ে প্রতিবাদ জানালো কলেজছাত্রী মুনি

এক্সক্লুসিভ

কালাই (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি | ২২ এপ্রিল ২০১৭, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৩৫
হতদরিদ্র পরিবারের মেয়ে মুনি। পড়াশুনা করতে চেয়েছিল সে। মুনি কালাই উপজেলার নান্দাইল দীঘি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। নিয়মিত সে কলেজে যাতায়াত করতো। এরই মাঝে প্রতিবেশী এক যুবক মুনিকে প্রতিনিয়ত কুপ্রস্তাব দিয়ে আসে। মুনি ওই যুবকের বিষয়ে তার মা-বাবাকে জানায়। গত বৃহস্পতিবার সকালে কলেজছাত্রীর বাবা মোজাহার হোসেন জরুরি কাজে বগুড়ার শিবগঞ্জে এবং মা মনোয়ারা বেগম ১০ টাকা কেজি দরের চাল কিনতে পুনট ইউনিয়ন পরিষদে যান। মা-বাবার অনুপস্থিতি টের পেয়ে সুযোগ বুঝে ওইদিন বিকালে প্রতিবেশী মন্টু মিয়ার ছেলে শাহিন কলেজছাত্রী মুনিদের বাড়িতে প্রবেশ করে তাকে জড়িয়ে ধরে এবং কুপ্রস্তাব দেয়। এতে সে রাজি না হয়ে অবশেষে নিজের চরিত্রে দাগ না লাগাতে ওইদিন সন্ধ্যায় নিজ ঘরে আত্মহত্যা করেছে। ঘটনাটি জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার উৎরাইল গ্রামে ঘটেছে। এ বিষয়ে মেয়ের বাবা বাদী হয়ে কালাই থানায় লম্পট শাহিন ও তার বাবা মন্টু মিয়া এবং তার মা ফাহিমাকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।   
প্রতিবেশীরা জানান, মুনি কালাই উপজেলার নান্দাইল দীঘি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঘর থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মুনির পরিবার ওই যুবকের কুপ্রস্তাব এবং জড়িয়ে ধরার বিষয় নিশ্চিত করেছে। এবং বলছে তার কারণেই সে আত্মহত্যা করেছে।
মেয়েটির মা মনোয়ারা বেগম জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে মুনিকে বাড়িতে রেখে ১০ টাকা কেজি দরের চাল নিতে তিনি পুনট ইউনিয়ন পরিষদে যান। সেখান থেকে সন্ধ্যার সময় বাড়িতে ফিরে আসেন। ঘণ্টা খানেক পর মুনিকে ডাকতে গিয়ে দেখা যায় ঘরের দরজা বন্ধ। প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় দরজা ভাঙার পর ঘরের বাঁশের আড়ার সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় মুনিকে।
মুনির বাবা মোজাহার আলী বলেন, প্রতিবেশী  শাহিন আমার কলেজপড়ুয়া মেয়েকে অনেক আগে থেকেই কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছে। এ বিষয়ে তার বাবা ও মাকে জানানো হয়েছে। তারপরও বৃহস্পতিবার দিনের বেলায় আমি এবং আমার স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে সে বাড়ি ঢুকে আমার মেয়েকে জড়িয়ে ধরে এবং কুপ্রস্তাব দেয়। আমার মেয়ে মুনি তা সহ্য করতে না পেরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। আমার মেয়েকে ওরা হত্যা করেছে। ওদের বিরুদ্ধে আমি থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছি। এদিকে কলেজছাত্রীর মৃত্যুর খবর পেয়ে তার কলেজের শিক্ষক ও সহপাঠীরা পরের দিন শুক্রবার সকালে তাদের বাড়িতে ভিড় করেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য থানায় নিয়ে আসেন।   
কালাই থানার অফিসার ইনচার্জ নুরুজ্জামান চৌধুরী বলেন, লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ওই ঘটনায় মেয়ের বাবা বাদী প্রতিবেশী তিন জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।
 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বাংলামোটরে বাস চাপায় রিকশা চালক নিহত, গাড়িতে আগুন

চীন, ভারত ও রাশিয়ার সঙ্গে ব্যাপকভিত্তিক আলোচনায় ঢাকা

গলায় ছুরি বসানোর পর যেভাবে বেঁচে আসেন রোহিঙ্গা যুবক

স্মার্টকার্ড প্রকল্পে তালগোল সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব দিতে চায় ইসি

রিজলভের জরিপ কী বার্তা দিচ্ছে

রোহিঙ্গাদের বাঙালি বানানোর কুপরিকল্পিত বর্মী কৌশল

এবার ধরা খেলেন সচিব ও পুলিশ কর্মকর্তা

কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা

সংখ্যালঘুরা সরকার গঠনে সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারে

গলা টিপে ধরতেই আফসানার দেহ নিথর হয়ে পড়ে

আওয়ামী লীগে স্নায়ুযুদ্ধ বিএনপি’র শেখ সুজাত

রোহিঙ্গা ইস্যুতে নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক কাল

ভুটানে ব্যান্ডউইথ রপ্তানি নিয়ে নতুন জটিলতা

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় চট্টগ্রামে ১০ শিক্ষকের জামিন

সীমান্তে স্থল মাইন বিস্ফোরণে রোহিঙ্গা যুবক নিহত

সাংবাদিক শিমুল হত্যা: পলাতক ৯ আসামীর আত্মসমর্পণ