শেয়ার বাজারে লাভের জন্য ফুটবলারদের বাসে হামলা!

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ২১ এপ্রিল ২০১৭, শুক্রবার
বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের খেলোয়াড়দের বহনকারী বাসের ওপর বোমা হামলার আসল কারাণ জানা গেলো। শেয়ার বাজারে লাভ করার জন্য জার্মানি ও রাশিয়ার দ্বৈত নাগরিকত্বের অধিকারী এক ব্যক্তি ওই হামলা করে। তার সঙ্গে কোনো ইসলামী জঙ্গী গোষ্ঠীর সম্পর্ক নেই। গত ১১ এপ্রিল ইউয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগে কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে মোনাকোকে স্বাগত জানায় জার্মানির ক্লাব বরুসিয়া ডর্টমুন্ড। ওই ম্যাচ খেলতে ডর্টমুন্ডের খেলোয়াড়রা হোটেল থেকে বাসে করে স্টেডিয়ামে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে ভয়ঙ্কর বোমা হামলার শিকার হয় বাসটি।
এতে আহত হন বেশ কয়েকজন। ডর্টমুন্ডের স্প্যানিশ খেলোয়াড় মার্ক বারত্রা বাসের ভাঙা গ্লাসের আঘাতে মারাত্মক আহত হন। ওই ঘটনার পর সেখানে একটি চিঠি খুঁজে পায় জার্মানির পুলিশ। মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সন্ত্রাসী সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) এই হামলা করেছে বলে ওই চিঠিতে দাবি করা হয়। কিন্তু জার্মানির পুলিশ বিষয় শুরু থেকেই মেনে নেয়নি। শুরু থেকেই তাদের সন্দেহ হয়- এটা কোনো ইসলামী সন্ত্রাসী গোষ্ঠেীর হামলা নয়। যদিও ওই ঘটনায় ইরাকি বংশদ্ভুত এক ব্যক্তিকে সন্দেহ করে আটক করা হয়। কিন্তু তার কাছ থেকে হামলার ব্যাপারে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। তখন ইন্টারনেটে নজর রেখে ওই শহর থেকে ২৮ বছর বয়সী এক জার্মানি-রাশিয়ার দ্বৈত নাগরিকত্বের অধিকারী এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর আসল ঘটনা বেরিয়ে এসেছে। সে একজন শেয়ার ব্যবসায়ী। সে ওইদিন ডর্টমুন্ড ক্লাবের ১৫,০০০ শেয়ার কেনে। সে খেলোয়াড়দের বহনকারী বাসে হামলা করে। বাসটিকে পুরোপুরি উড়িয়ে দেয়া উদ্দেশ্য ছিল তার। কমপক্ষে কয়েকজন খেলোয়াড়ের মৃত্যু নিশ্চিত করতে চেয়েছিল সে। যাতে খেলোয়াড়দের মৃত্যুর পর ডর্টমুন্ডের শেয়ারের দাম পড়ে যায়। দাম পড়ে যাওয়া অবস্থায় সে আরো শেয়ার কিনবে। এবং পরে শেয়ারের দাম বাড়লে সে বেশি দামে বিক্রি করতে পারবে। শুধু শেয়ার বাজালে লাভ করার জন্য বিশ্বের সুপরিচিত একটি ক্লাবের খেলোয়াড়দের বহনকারী বাসের ওপর বোমা হামলায় বিশেষজ্ঞদের অবাক করেছে। সে খেলোয়াড়দের হামলার পরিকল্পনা আগেই করেছিল। এ জন্য খেলোয়াড়রা যে হোটেলে ছিল সেই হোটেলেই সে রুম নেয়। বাসের ওপর নজর রেখে সে বোমা হামলা করে। হামলার পর সে হোটেলে ফিরে যায়।    

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

‘অনুপ্রবেশকারীদের ৫০০০ পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না’

‘ক্ষমতা থাকলে সরকারকে টেনে-হিচড়ে নামান’

আগামীকাল আদালতে যাবেন খালেদা জিয়া

‘তদন্তের স্বার্থেই তনুর পরিবারকে ডাকা হয়েছে’

জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন ‘কুমির মানুষ’

আশ্রয়শিবিরে সংক্রমণযুক্ত পানির বিষয়ে ইউনিসেফের সতর্কতা

চীন, উত্তর কোরিয়ার ১৩ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ

রোহিঙ্গা সঙ্কট: উচ্চ আশা নিয়ে বাংলাদেশ-মিয়ানমার বৈঠক শুরু

ঘোড়ামারা আজিজসহ ছয় জনের মৃত্যুদণ্ড

নিবিড় পর্যবেক্ষণে মহিউদ্দিন চৌধুরী

হাফ ডজন গোলে দ্বিতীয় রাউন্ডে রিয়াল মাদ্রিদ

আফ্রিকার স্বৈরাচারদের মেরুদণ্ডে শিহরণ

সাভার আর মানিকগঞ্জে মাটির নিচে পানির 'খনি'

বরুশিয়ার আশা শেষ করলো টটেনহ্যাম

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীনের প্রস্তাব, যা বললেন মুখপাত্র...

দুদকের মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন মেয়র সাক্কু