উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতায় হাসিনার নেতৃত্ব চান ভুটানের সাবেক রাজা

দেশ বিদেশ

কূটনৈতিক রিপোর্টার | ২১ এপ্রিল ২০১৭, শুক্রবার
উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতার ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব প্রত্যাশা করেছেন ভুটানের চতুর্থ রাজা জিগমে সিংয়ে ওয়ানচুক। দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তি প্রতিষ্ঠা এবং উন্নয়নে অবদানের জন্য শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করে ৬১ বছর বয়সী ভুটানের সাবেক রাজা অন্যান্য ক্ষেত্রে আরো সমৃদ্ধির জন্য তার (প্রধানমন্ত্রীর) নেতৃত্ব কামনা করেন। তিনি বলেন, ‘এই অঞ্চলের পারস্পরিক সহযোগিতার ক্ষেত্রে আপনার  নেতৃত্বের প্রয়োজন রয়েছে। বিদ্যুৎ খাত,  যোগাযোগ, ব্যবসা-বাণিজ্য এবং পানি ব্যবস্থাপনার মতো খাতে এই সহযোগিতা এ অঞ্চলের জনগণের ভাগ্যোন্নয়নে সহায়ক হবে।’ ৩ দিনের ভুটান সফরের সমাপনীতে বুধবার রাতে থিম্পুর লা মেরিডিয়ান হোটেলে ভুটানের সাবেক রাজা ও প্রধানমন্ত্রীর মধ্যকার বৈঠকটি হয়। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক রাজাকে উদ্ধৃত করে এসব কথা বলেন। উল্লেখ্য, ভুটান সফর শেষে গতকালই প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরেছেন।
শেখ হাসিনার সঙ্গে ভুটানের বর্তমান রাজা জিগমে খেসার নামগেল ওয়াংচুকের পিতা জিগমে সিংগে ওয়াংচুকের সঙ্গে বৈঠক প্রসঙ্গে পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক ও প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম যৌথভাবে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। এ সময় উপ-প্রেস সচিব নজরুল ইসলামও উপস্থিত ছিলেন। সাবেক রাজাকে উদ্ধৃত করে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, “উনি (চতুর্থ রাজা) বলেছেন, উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতা; বিদ্যুৎ, কানেকটিভি, বাণিজ্য, পানি ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রই হোক, প্রধানমন্ত্রীর যেন নেতৃত্ব থাকে। তাহলে এ অঞ্চলের জনগণের ভাগ্যের উন্নয়ন হবে।” তিনি এ-ও বলেছেন, সকল দেশের সঙ্গে সমান বন্ধুত্ব বজায় রেখে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণতা দৃষ্টান্তযোগ্য।
যৌথ বিবৃতি- পানিসম্পদ ও যোগাযোগে একসঙ্গে কাজ করবে ঢাকা-থিম্পু: এদিকে বাংলাদেশ ও ভুটান দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো সুসংহত করার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছে এবং পারস্পরিক স্বার্থে বিদ্যুৎ, পানিসম্পদ খাতে সহযোগিতা জোরদারে দ্বিপক্ষীয় ও উপ-আঞ্চলিকভাবে কাজ করার ব্যাপারে সম্মত হয়েছে। ভুটানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তিনদিনের রাষ্ট্রীয় সফরের শেষে এক যৌথ বিবৃতিতে এ অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হয়। দুই প্রধানমন্ত্রী স্বাক্ষরিত ওই বিবৃতিতে বলা হয়, এই অঞ্চল ও বিশ্বের বৃহত্তর শান্তি, সমৃদ্ধি ও উন্নয়নের জন্য দুই দেশ একত্রে কাজ করার ব্যাপারে সম্মত হয়েছে। ২৬-দফা বিবৃতিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভুটানের প্রধানমন্ত্রী দাসোশেরিং তোবগে তাদের দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে পারস্পরিক স্বার্থে বিদ্যুৎ, পানিসম্পদ এবং যোগাযোগের ক্ষেত্রে উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতার সুযোগ গ্রহণের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। উপ-আঞ্চলিক যোগাযোগ বৃদ্ধির গুরুত্ব বিবেচনা করে উভয়পক্ষ এ লক্ষ্যে দ্বিপক্ষীয় এবং উপ-আঞ্চলিকভাবে কাজ করতে সম্মত হয়েছে। আঞ্চলিক কাঠামোয় নীতিগত সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে জলবিদ্যুৎ খাতে সহযোগিতার জন্য বাংলাদেশ, ভুটান ও ভারতের মধ্যে প্রস্তাবিত ত্রিপক্ষীয় সমঝোতা স্মারকের (এমওইউ) বিষয়টিকে তারা স্বাগত জানান। উভয় প্রধানমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন যে, পরবর্তীতে তিনটি দেশের নেতারা যখন একত্রিত হবেন তখন এই এমওইউ স্বাক্ষর হবে। তারা আঞ্চলিক যোগাযোগের জন্য বিবিআইএন মোটর ভেহিকেল এগ্রিমেন্টের গুরুত্ব অনুধাবন করেন এবং দ্রুত এই চুক্তি বাস্তবায়নে তাদের আগ্রহের কথা ব্যক্ত করেন। দুই প্রধানমন্ত্রী ভুটান ও বাংলাদেশের মধ্যে বিদ্যমান ঐতিহাসিক জোরদার সম্পর্ক এবং বোঝাপড়ার কথা স্মরণ করেন।

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

সমাপনীতে অনুপস্থিত ১৪৫৩৮৩ শিক্ষার্থী

ঈদ-ই মিলাদুন্নবি ২ ডিসেম্বর

দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির জন্য তারেক রহমানকে দরকার: এমাজউদ্দিন

দল থেকে বরখাস্ত মুগাবে

দেখা হলো, কথা হলো কাদের-ফখরুলের

আখতার হামিদ সিদ্দিকী আর নেই

ইইউ প্রতিনিধি ও তিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন

‘এবার প্রশ্নপত্র ফাঁসের কোনো সুযোগ নেই’

নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করবে না শেখ হাসিনার সরকার-নৌ মন্ত্রী

‘আমি ব্যবসায়িক প্রতিহিংসার শিকার’

সেনা মোতায়েন নিয়ে বৈঠকে কোনো আলোচনা হয়নি : সিইসি

২০১৮ সালে প্রবল ভুমিকম্পের আশঙ্কা!

কেয়া চৌধুরী এমপি’র উপর হামলার ঘটনায় মামলা

বাংলাদেশের রাজনীতি, বিকাশমান মধ্যবিত্ত এবং কয়েকটি প্রশ্ন

সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত এমপি গোলাম মোস্তফা আহমেদ

খেলার মাঠে দেয়াল ধসে দর্শক যুবকের মৃত্যু