মাদক মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে খুলনায় তিন ছাত্রকে থানায় আটকে উৎকোচ আদায়

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা থেকে | ২১ এপ্রিল ২০১৭, শুক্রবার
খুলনার বটিয়াঘাটা থানায় তিনজন ছাত্রকে আটকে রেখে মাদক মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে পরিবারের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা ঘুষ নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার এ ঘটনায় ওই থানার এএসআই আর আমিনসহ দু’জন কনস্টেবলের বিরুদ্ধে মহাপুলিশ পরিদর্শক (আইজিপি) বরাবর লিখিত অভিযোগ প্রেরণ করা হয়েছে। নগরীর সোনাডাঙ্গা মডেল থানা এলাকার বসুপাড়া বাঁশতলা এলাকার বাসিন্দা কাপড় ব্যবসায়ী সরজিৎ মহলদার এ অভিযোগ করেছেন। এ অভিযোগের অনুলিপি একই সঙ্গে খুলনার রেঞ্জ ডিআইজি, কেএমপি কমিশনার, ডিআইজি সিকিউরিটি সেল, ঢাকা, জেলা প্রশাসক খুলনা, পুলিশ সুপার খুলনা ও অফিসার ইনচার্জ বটিয়াঘাটা বরাবর প্রেরণ করা হয়।
লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, খুলনা নগরীর বসুপাড়া বাঁশতলা এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাসকারী সরজিৎ মহলদারের ছেলে বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র শাওন মহলদার (২৩) গত ৯ এপ্রিল রাত ৯টার দিকে চড়ক পূজার অনুষ্ঠানে গ্রামের বাড়ি বটিয়াঘাটাস্থ বৃত্তি শলুয়ার উদ্দেশে মোটরসাইকেলযোগে রওনা হয়। এ সময় তার সঙ্গে অপর দুই সহপাঠী মলয় মণ্ডল (২৫) ও বৈষ্ণব রায় (২৩) ছিলেন। এ সময় বটিয়াঘাটা বারুই আবাদ নামন স্থানে সাদা পোশাকে ৩/৪ জন লোক তাদের মোটরসাইকেল থামানোর জন্য সিগন্যাল দেয়। কিন্তু ফাঁকা অন্ধকার জায়গায় ছিনতাইকারী বা ডাকাত ভেবে তারা না থামিয়ে কিছু দূরের মাইলমারা বাজারে লোকজনের মধ্যে গিয়ে তাদের মোটরসাইকেল থামান। পিছু নিয়ে আসা মোটরসাইকেলে তিনজন লোক তাদের কাছে এসে নিজেদের পুলিশ পরিচয় দেন এবং কেন ওই স্থানে থামাননি প্রশ্ন করেন। এ সময় তারা তাদের ভীতির বিষয়টি বলেন। কিন্তু এএসআই আল আমিনসহ ওই দুইজন কনস্টেবল এ তিনজন ছাত্রকে লোকজনের সামনে তল্লাশি চালিয়ে মারপিট করে সঙ্গে থাকা ল্যাপটপ, মোবাইল ফোন নিয়ে নেয়। এরপর থানায় নিয়ে আটকে রেখে শাওনের বাবা সরজিৎ মহলদারকে খবর পাঠায়। তিনি বটিয়াঘাটা থানায় গিয়ে এএসআই আল আমিনকে তাদের ছেড়ে দেয়ার অনুরোধ করেন। কিন্তু তার কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করা হয়। তা না হলে মাদক দিয়ে তিনজনকে কোর্টে চালান দেয়ার ভয় দেখানো হয়। সন্তানসহ তার দুই বন্ধুকে বাঁচাতে সর্বশেষ ২০ হাজার টাকা দিতে রাজি হন তিনি। এরপর এএসআই আলামিনের দেয়া দু’টি বিকাশ নম্বরে মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা ঘুষ দিয়ে ছেলেসহ তিনজনকে মুক্ত করে আনেন তিনি। তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত এএসআই আল আমিন অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন