নির্বাচনে হেরে গেলেও পদে বহাল থাকবেন করবিন!

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২০ এপ্রিল ২০১৭, বৃহস্পতিবার
বৃটেনে আগামী ৮ই জুনের নির্বাচনে যদি বিরোধী লেবার দল হেরেও যায় তাহলেও এর নেতা থাকবেন জেরেমি করবিন। এমনটাই তিনি প্রত্যাশা করছেন বলে এক রিপোর্টে ইঙ্গিত দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট। জেরেমি করবিনের খুব ঘনিষ্ঠ দলীয় কয়েকটি সূত্র জানিয়েছেন, নির্বাচনে পরাজিত হলে যদি পদত্যাগের দাবি ওঠে তা তিনি প্রত্যাখ্যান করতে পারেন এবং নতুন করে দলীয় প্রধান নির্বাচনে অংশ নিতে পারেন। কিন্তু নির্বাচনের ফল কি হয় তা না জানা পর্যন্ত দলীয় মূল লক্ষ্য কি সে বিষয়ে মন্তব্য করা কঠিন। তবে রিপোর্টে বলা হচ্ছে কমপক্ষে দলীয় কনফারেন্স পর্যন্ত তিনি পদ আঁকড়ে থাকতে পারেন। এ সময়ে তার যেসব মিত্র আছে তারা দলীয় নেতা নির্বাচন পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনার উদ্যোগ নিতে পারেন।
তবে এমন খবরে দলের ভিতরে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। একজন এমপি এ খবরে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন। তিনি বলেছেন, নির্বাচনে যদি প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে’র কাছে ভয়াবহভাবে হেরে যায় দল তাহলে পদ ধরে রাখার যোগ্য হবেন না জেরেমি করবিন। অন্য একজন এ পরিস্থিতিকে অদ্ভুত বলে মন্তব্য করেছেন। সাম্প্রতিক সময়ের জরিপ বলছে, নির্বাচনে লেবার পার্টি ৭০টি আসন হারাতে পারে। যদি তা-ই হয় তাহলে লেবার দলের আসন নেমে আসবে এক-তৃতীয়াংশে। সম্প্রতি দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্টের পক্ষে জরিপ চালায় কমরেস। তাতে দেখা যায় বিরোধী লেবারদের চেয়ে প্রধানমন্ত্রী এগিয়ে আছেন ২১ পয়েন্টে। নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার পর দলীয় কিছু নেতা নিজেদের সরিয়ে নিয়েছেন। ২০১৫ সালে এমনটা করেছেন এডওয়ার্ড মিলিব্যান্ড। ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়া সংক্রান্ত ব্রেক্সিট গণভোটে হেরে পদত্যাগ করেছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন। জেরেমি করবিনকে ভালভাবে জানেন, চেনেন এমন লেবার দলের সূত্রগুলো বলেছেন, নির্বাচনে পরাজিত হলেও পদে বহাল থাকতে পারেন করবিন। তবে লেবার দলের এক ঘনিষ্ঠ সূত্র বলেছেন, তিনি পদে এসেছেন মাত্র দু’বছর। এখনও তিনি পুরো মেয়াদ পূর্ণ করেন নি। এরই মধ্যে তাকে দ্বিতীয় দফায় নেতৃত্ব নির্বাচনের প্রতিযোগিতায় পড়তে হয়েছে। তাই কেন তিনি পদত্যাগ করবেন সে যুক্তি খুঁজে পাই না। আগামী সেপ্টেম্বরে দলের বার্ষিক সম্মেলন। সেখানে করবিনের মিত্ররা গঠনতন্ত্র সংস্কারের জন্য কিছু প্রস্তাব রাখতে পারেন। তাতে দলীয় প্রধান নির্বাচনে একজন প্রার্থীকে যে পরিমাণ এমপির মনোনয়ন পেতে হয় তা কমিয়ে আনার কথা বলা হবে। বর্তমানে লেবার দলে যে নিয়ম আছে তাতে একজন প্রার্থীকে দলীয় প্রধান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হলে দলের এমপিদের শতকরা ১৫ ভাগের সমর্থন পেতে হয়। আগামীতে দলীয় প্রধান পদে মনোনয়ন চাইতে পারেন বর্তমান ছায়া চ্যান্সেলর জন ম্যাকডোনেল অথবা রেবেকা লং-বেইলি। এক্ষেত্রে তারা বামপন্থি করবিনের চেয়ে বেশি সমর্থন পেতে পারেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীনের প্রস্তাব, যা বললেন মুখপাত্র...

দুদকের মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন মেয়র সাক্কু

স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন টিটু রায়

আনসারুল্লাহ’র দুই জঙ্গি কলকাতায় গ্রেপ্তার

‘আওয়ামী লীগ ৪০টির বেশি আসন পাবে না’

মায়ের বুক থেকে চুরি হওয়া শিশুটি উদ্ধার

চট্টগ্রামে সাইকেল আরোহীর পা ভাঙায় বাসে আগুন

নাইজেরিয়ায় মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলা, নিহত ৫০

উত্তর কোরিয়াকে সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষক বললেন ট্রাম্প

আ’লীগের দুই গ্রুপের সমাবেশ, ১৪৪ ধারা

‘নিজাম হাজারীর ক্যাডাররা খালেদার গাড়িবহরে হামলা করেছে’

যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগে বরখাস্ত মার্কিন এই টিভি উপস্থাপক

নিখোঁজের ৪ দিন পর বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের সঙ্গে এ সপ্তাহেই চুক্তি হবে- সুচি

সাকিবকে গুনতে হচ্ছে জরিমানা

সশস্ত্র বাহিনী জাতির এক গর্বিত প্রতিষ্ঠান: খালেদা জিয়া