সাবেক ছিটমহলের প্রথম বিয়েতে খুশির রোশনাই

বিশ্বজমিন

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৯ এপ্রিল ২০১৭, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ৭:১২
সাবেক ছিটমহলের প্রথম বিয়েতে আলোর রোশনাই না থাকলেও ছিল খুশির রোশনাই। গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে সাবেক ছিটের মানুষের আন্তরিক পরিবেশে মঙ্গলবার রাতে বিয়ে হয়েছে দিনহাটার ছিটমহলের অস্থায়ী শিবিরের কনে অনিতার সঙ্গে দিনহাটার সীমান্ত গ্রাম পাথরসনের রবি’র। দুই হাতের এই মিলনে সাক্ষী ছিলেন কোচবিহারের সাংসদ পার্থপ্রতিম রায়, দিনহাটার মহকুমা শাসক কৃষ্ণাভ ঘোষ প্রমুখ। সাংসদ পার্থপ্রতিম রায় নববধূ অনিতাকে আশীর্বাদ করার পাশাপাশি তার বাবার হাতে আর্থিক সাহায্য তুলে দিয়েছেন। সাবেক ছিটমহলের অস্থায়ী শিবিরের এই প্রথম বিয়ের অনুষ্ঠান ঘিরে ছিল সকলের মধ্যে প্রবল উৎসাহ। গায়ে হলুদ থেকে বরযাত্রীর অর্ভ্যথনা, কোনও কিছুই বাদ পড়েনি।  বেজেছে বিয়ের বাজনাও। ২০১৫ সালে ছিটমহল বিনিময়ের পর ওপারের সাবেক ভারতীয় ছিটমহল দাশিয়ার ছড়া থেকে এপারে এসে ভারতীয় নাগরিত্ব গ্রহণ করেন হরেকৃষ্ণ বর্মন। সেই থেকে হরেকৃষ্ণ বর্মন ও তার পরিবারের ঠাঁই দিনহাটার কৃষিমেলার মাঠের ছিটমহলের অস্থায়ী শিবিরে। কন্যা অনিতা দিনহাটা কলেজে বিএ প্রথম বর্ষে পড়াশোনা করছে। অনিতার পিতা মেয়েকে পাত্রস্থ করতে বামনহাটের পাথরসন গ্রামের রবি বর্মনকে মনোনীত করেন। পাত্র রবি পেশায় দর্জি। কনের পিতা হরেকৃষ্ণ বর্মন ওপারে জমিজমা ফেলে এসে এপারে দিনমজুরের কাজ করেন। তার মেয়ের বিয়েতে শুভানুধ্যায়ীরা সাহায্য নিয়ে এগিয়ে এসেছিলেন। অনেকেই আর্থিক সাহায্য করেছেন। ছিটমহলের অস্থায়ী শিবিরের বাসিন্দারা সকলেই বিয়েতে আনন্দ উপভোগ করেছেন। ভুরি ভোজেরও ব্যবস্থা ছিল।
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন