কেড়ে নেয়া হবে আসমা আল আসাদের বৃটিশ নাগরিকত্ব!

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৮ এপ্রিল ২০১৭, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:০০
বৃটিশ রাজনীতিতে ব্রেক্সিট ছাপিয়ে এখন আলোচনায় সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের স্ত্রী, বৃটিশ নাগরিক আসমা আল আসাদ। তার বৃটিশ নাগরিকত্ব বাতিলের দাবি উঠেছে লিবারেল ডেমোক্রেটদের (লিব ডেম) পক্ষ থেকে। এর কারণ? আসমা আল আসাদ পশ্চিমাদের আক্রমণ করে এবং সিরিয়ায় সরকারপন্থি ‘শহীদ’দের প্রশংসা করে সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট দিয়েছেন। এসব সাইটে তার অনুসারী ৫ লাখেরও বেশি। তিনি যদি অব্যাহতভাবে এ ধারায় পোস্ট দিতে থাকেন তাহলে তার বৃটিশ নাগরিকত্ব বাতিলের আবেদন করবে লিবারেল ডেমোক্রেটরা। এ বিষয়ে তারা বৃটিশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে টিঠিও লিখবে।  দলীয় মুখপাত্র টম ব্রেক বলেছেন, সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের মুখপাত্র হিসেবে কথা বলছেন সিরিয়ার ফার্স্টলেডি। ওই শাসকগোষ্ঠী বর্বর। রাসায়নিক হামলা চালানোর পরও আন্তর্জাতিক মর্যাদা থাকা আসমা তার স্বামীর পক্ষ নিয়েছেন। বৃটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন অন্য দেশগুলোকে সিরিয়া ইস্যুতে আরো কিছু করার আহ্বান জানিয়েছেন। কিন্তু আসমা আল আসাদকে বৃটিশ সরকার একটি কথাই বলতে পারে। তাহলো বর্বর কর্মকান্ডের পক্ষ অবলম্বন করা বন্ধ করুন। না হয় আপনার বৃটিশ নাগরিকত্ব কেড়ে নেয়া হবে। এ নিয়ে বৃটেনজুড়ে চায়ের কাপে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়। সব মিডিয়াই বিষয়টিকে লুফে নিয়েছে। অনলাইন গার্ডিয়ান লিখেছে, আসমা আল আসাদ কি একজন যুদ্ধাপরাধী? বৃটিশ জাতীয় নিরাপত্তার জন্য কি তিনি হুমকি? লিবারেল ডেমোক্রেট দলের পররাষ্ট্র বিষয়ক মুখপাত্র টম ব্রেকের আবেদন যদি আমলে নেয়া হয় তাহলে এসব প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীকে। উল্লেখ্য, আসলা আল আসাদের জন্ম বৃটেনে। তিনি জন্মসূত্রে বৃটিশ নাগরিক। এ ছাড়া তার রয়েছে সিরিয়ার নাগরিকত্ব। তিনি ছিলেন একজন ব্যাংকার। ২০০০ সালে বাশার আল আসাদের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বর্তমানে তিনি তিন সন্তানের মা। বয়স ৪১ বছর। যদি কারো দ্বৈত্য নাগরিকত্বের বেলায় একটি বাতিল হয়ে যায় তাহলে স্বাভাবিকভাবেই  তিনি নাগরিক হিসেবে স্বীকৃতি পাবেন। কিন্তু ২০০৩ সাল থেকে যেসব মানুষ বৃটেনে জন্মেছেন এবং তাদের যদি দ্বৈত্য নাগরিকত্ব থাকে অথবা স্বরাষশ্ট্রমন্ত্রী মনে করেন যে ওই ব্যক্তি অন্য একটি দেশের নাগরিক তাহলে তার নাগরিকত্ব বাতিল করা যেতে পারে। এখানেই আটকে আছে ধর্মীয় নেতা আবু হামজার বিষয়টি। তিনি একই সঙ্গে মিশর ও বৃটেনের নাগরিক। মিশর তার নাগরিকত্ব বাতিল করেছে। ফলে বৃটেন আবু হামজার নাগরিকত্ব বাতিল করতে পারছে না। এ বিষয়ে উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল। কিন্তু যেহেতু তার মিশরীয় নাগরিকত্ব বাতিল হয়ে গেছে তাই তার আইনজীবীরা আদালতে যুক্তি তুলে ধরেছেন। তারা বলেছেন, যদি বৃটেন তার নাগরিকত্ব বাতিল করে তাহলে আবু হামজা রাষ্ট্রহীন হয়ে পড়বেন। তাদের সে আবেদন সফল হয়েছে। সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বা এতে জড়িত থাকার সন্দেহে অনেকের নাগরিকত্ব বাতিল করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। গত বছর ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিজমের এক তথ্যে দেখা গেছে, ২০১০ সালে বৃটেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। তারপর থেকে সন্ত্রাসে জড়িত থাকার অভিযোগে তিনি এ যাবত কমপক্ষে ৩৩ জনের বৃটিশ নাগরিকত্ব বাতিল করেছেন। এই ধারা ব্যবহার করা হচ্ছে অন্য অপরাধের ক্ষেত্রেও। বিশেষ করে রোচডেলে শিশুর ওপর যৌন নির্যাতন চালানোর অভিযোগে ৪ ব্যক্তিকে পাকিস্তানে ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। এর মাধ্যমে তাদের বৃটিশ নাগরিকত্ব বাতিল করা হবে। ওদিকে বর্তমানে বৃটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাম্বার রাড। বৃটিশ জাতীয়তা বিষযক আইনের অধীনে আসমা আল আসাদের নাগরিকত্ব বাতিল করার মতো ক্ষমতা তার হাতে আছে। তাই তার প্রতি টম ব্রেক আহ্বান জানিয়েছেন, যুক্তরাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ স্বার্থের জন্য এটা করা উচিত। যে গৃহযুদ্ধ আঞ্চলিক অস্থিতিশীলতা এনেছে, সন্ত্রাসকে প্রস্ফুটিত হতে সহায়তা করেছে সেই গৃহযুদ্ধের আগুনের ওপর বসে সিরিয়া শাসন করছেন আসাদ সরকার। তাই এক্ষেত্রে রায় কি হওয়া উচিত তা পরিষ্কার। আসমা আল আসাদের রয়েছে দ্বৈত্য নাগরিকত্ব। তাই বৃটিশ নাগরিকত্ব কেড়ে নেয়া হলে তিনি একটি দেশের নাগরিক থাকবেন। শাসকগোষ্ঠীর একজন হয়ে থাকবেন, যে দেশের প্রতি তিনি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। তিনি যদি আসাদ সরকারের হত্যাযজ্ঞের পক্ষেই কথা বলতে থাকেন তাহলে বৃটিশ সরকারের উচিত হবে তার নাগরিকত্ব বাতিল করা। তাকে এর মাধ্যমে বোঝানো যে, তার কর্মকান্ড যুক্তরাজ্যের স্বার্থ বিরোধী।
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

কর্ণফুলীতে বিএনপির তিন প্রার্থীর নির্বাচন বর্জন

পূর্ব লন্ডনে এসিড হামলায় আহত ৬

সাদুল্যাপুরে ১১২ মেট্রিক টন চাল জব্দ, গুদাম সিলগালা

রোহিঙ্গা ইস্যুতে এবার বিমসটেকেও ছায়া পড়েছে

রাজধানীতে আগুনে পুড়ে নিহত ১

চতুর্থ দফা ক্ষমতার দিকে দৃষ্টি মার্কেলের

‘অযথা এসব গুঞ্জনের কোন মানে হয় না’

সন্তানের নাড়ি কাটার সময়ও পাননি হামিদা

সেনাবাহিনীর কার্যক্রম শুরু, ফিরছে শৃঙ্খলা

কাল থেকে গণশুনানি

সার্ক সম্মেলন নিয়ে এবারও অনিশ্চয়তা

মাদরাসায় শিক্ষক নিয়োগ মন্ত্রণালয়ে অভিযোগের স্তূপ

যেখানে এখনো পৌঁছেনি ত্রাণ

স্বস্তিতে বিএনপি আওয়ামী লীগ টেনশনে

চলছে পূজার শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

বজ্রপাতে নিহত ১১